প্রতিপক্ষের লাথিতে যুবকের মৃত্যু
jugantor
প্রতিপক্ষের লাথিতে যুবকের মৃত্যু

  শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি  

৩০ জুলাই ২০২১, ১৭:৫৯:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বাগেরহাটের শরণখোলায় তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিপক্ষের লাথিতে মুনসুর হাওলাদার (৩৫) নামের এক দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ব্যাপারে শুক্রবার ময়নাতদন্ত শেষে মৃতদেহ শরণখোলায় নিয়ে আসার পর তার স্ত্রী শিউলি বেগম থানায় হত্যা মামলা দায়ের করবেন বলে পুলিশ জানায়।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার মধ্যে খোন্তাকাটা গ্রামের সোমেদ হাওলাদারের পুত্র দিনমজুর মুনসুর হাওলাদার তার চাচা আলমগীর হোসেনের বাড়ি ও গাছপালা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করেন। গত ২৭ জুলাই দুপুরে তার দায়িত্বে থাকা একটি নারিকেল গাছ থেকে না বলে কয়েকটি ডাব পারেন একই গ্রামের সমশের হাওলাদারের পুত্র শহিদুল হাওলাদার (৩৭)।

এ সময় মুনসুর ডাব পাড়ার প্রতিবাদ করলে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি বেধে যায়। একপর্যায়ে শহিদুল মুনসুরের স্পর্শকাতর স্থানে একটি লাথি মারলে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর অবস্থার অবনতি ঘটায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকালে তার মৃত্যু হয়।

শরণখোলা থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। আসামি গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিপক্ষের লাথিতে যুবকের মৃত্যু

 শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি 
৩০ জুলাই ২০২১, ০৫:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাগেরহাটের শরণখোলায় তুচ্ছ ঘটনায় প্রতিপক্ষের লাথিতে মুনসুর হাওলাদার (৩৫) নামের এক দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  

এ ব্যাপারে শুক্রবার ময়নাতদন্ত শেষে মৃতদেহ শরণখোলায় নিয়ে আসার পর তার স্ত্রী শিউলি বেগম থানায় হত্যা মামলা দায়ের করবেন বলে পুলিশ জানায়।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার মধ্যে খোন্তাকাটা গ্রামের সোমেদ হাওলাদারের পুত্র দিনমজুর মুনসুর হাওলাদার তার চাচা আলমগীর হোসেনের বাড়ি ও গাছপালা রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করেন। গত ২৭ জুলাই দুপুরে তার দায়িত্বে থাকা একটি নারিকেল গাছ থেকে না বলে কয়েকটি ডাব পারেন একই গ্রামের সমশের হাওলাদারের পুত্র শহিদুল হাওলাদার (৩৭)। 

এ সময় মুনসুর ডাব পাড়ার প্রতিবাদ করলে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি বেধে যায়। একপর্যায়ে শহিদুল মুনসুরের স্পর্শকাতর স্থানে একটি লাথি মারলে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পর অবস্থার অবনতি ঘটায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকালে তার মৃত্যু হয়।

শরণখোলা থানার ওসি মো. সাইদুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। আসামি গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন