সেনাবাহিনীর হাতে অস্ত্রসহ ৪ সন্ত্রাসী আটক
jugantor
সেনাবাহিনীর হাতে অস্ত্রসহ ৪ সন্ত্রাসী আটক

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

৩১ জুলাই ২০২১, ১৮:০৫:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

রাঙ্গামাটির লংগদুতে সেনাবাহিনীর অভিযানে অস্ত্রসহ ৪ ইউপিডিএফ (প্রসীত) সদস্য আটক হয়েছে।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টায় সেনাবাহিনীর একটি টহল দল লংগদু উপজেলার ছোট কাট্টালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের ৪ জন চাঁদা কালেক্টরকে অস্ত্রসহ আটক করে।

আটকরা হলো- সুরেন চাকমা (৩৬), অন্নাসং চাকমা (৪৫), অনিল চাকমা (১৯) এবং সাইমন চাকমা (৪০)।

আটকদের কাছ থেকে ১টি একে-২২ রাইফেল, ৭৭ রাউন্ড গুলি, ১টি অস্ত্রের ম্যাগজিন, ১টি ওয়াকিটকি সেট, ১টি সোলার চার্জার, চাঁদা আদায়ের রশিদ বই, ৪টি মোবাইল সেট, ১টি হাত ঘড়ি, ১টি ভুয়া আইডি কার্ড, রাষ্ট্রবিরোধী স্লোগান সংবলিত ব্যানার, নগদ ৬৩ হাজার ৫৯২ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়।

আটকরা দীর্ঘদিন ধরে রাঙ্গামাটির বিভিন্ন উপজেলায় সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও চাঁদাবাজির মাধ্যমে অস্থিরতা সৃষ্টি করে আসছিল। এসব সন্ত্রাসীরা ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের সশস্ত্র শাখার সক্রিয় সদস্য বলে জানা গেছে।

আটকদের ব্যাপারে আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।পার্বত্য চট্টগ্রামের নিরাপত্তা পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে সেনাবাহিনীর এরূপ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে বাহিনীর পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

সেনাবাহিনীর হাতে অস্ত্রসহ ৪ সন্ত্রাসী আটক

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
৩১ জুলাই ২০২১, ০৬:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাঙ্গামাটির লংগদুতে সেনাবাহিনীর অভিযানে অস্ত্রসহ ৪ ইউপিডিএফ (প্রসীত) সদস্য আটক হয়েছে। 

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টায় সেনাবাহিনীর একটি টহল দল লংগদু উপজেলার ছোট কাট্টালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের ৪ জন চাঁদা কালেক্টরকে অস্ত্রসহ আটক করে। 

আটকরা হলো- সুরেন চাকমা (৩৬), অন্নাসং চাকমা (৪৫), অনিল চাকমা (১৯) এবং সাইমন চাকমা (৪০)। 

আটকদের কাছ থেকে ১টি একে-২২ রাইফেল, ৭৭ রাউন্ড গুলি, ১টি অস্ত্রের ম্যাগজিন, ১টি ওয়াকিটকি সেট, ১টি সোলার চার্জার, চাঁদা আদায়ের রশিদ বই, ৪টি মোবাইল সেট, ১টি হাত ঘড়ি, ১টি ভুয়া আইডি কার্ড, রাষ্ট্রবিরোধী স্লোগান সংবলিত ব্যানার, নগদ ৬৩ হাজার ৫৯২ টাকা ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। 

আটকরা দীর্ঘদিন ধরে রাঙ্গামাটির বিভিন্ন উপজেলায় সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও চাঁদাবাজির মাধ্যমে অস্থিরতা সৃষ্টি করে আসছিল। এসব সন্ত্রাসীরা ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের সশস্ত্র শাখার সক্রিয় সদস্য বলে জানা গেছে।

আটকদের ব্যাপারে আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণ করা হচ্ছে।পার্বত্য চট্টগ্রামের নিরাপত্তা পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে সেনাবাহিনীর এরূপ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে বাহিনীর পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন