সেতুমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিস্ফোরণ, ৬টি ককটেল উদ্ধার
jugantor
সেতুমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিস্ফোরণ, ৬টি ককটেল উদ্ধার

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

০২ আগস্ট ২০২১, ২১:৫৯:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে গ্রামের বাড়ির সামনের সড়কে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে ঘটনাস্থল থেকে ৬টি অবিস্ফোরিত ককটেল, ১টি বিস্ফোরিত ও ১ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকাল ৪টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বড় রাজাপুর গ্রামের বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কে এ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন আনোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সুপ্রভাত চাকমা ঘটনাস্থলে রয়েছে। তবে কে বা কারা দিনদুপুরে এ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়েছে এ বিষয়ে ওসি কিছু জানাতে পারেননি।

ওসি আরও জানান, মন্ত্রীর বাড়ির সামনে বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কের ফাঁকা জায়গায় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এছাড়া ৫টি অবিস্ফোরিত ককটেল ও একটি কার্তুজ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশীদ মঞ্জু বলেন, এটি একটি সাজানো নাটক। বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়ক একটি আঞ্চলিক মহাসড়ক। এ সড়কে বারবার ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে কাদের মির্জা ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে চায়। যুক্তরাষ্ট্র থেকে কাদের মির্জার নির্দেশে কোম্পানীগঞ্জকে অস্থিতিশীল রাখতে এবং প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীদের ফাঁসানের জন্য তার অনুসারীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ সময় তিনি পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান, তারা যেন বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, খবর পাওয়ার পরপরই আমি সার্কেল এসপিসহ অফিসার পাঠিয়েছি; তাদের রিপোর্ট পাওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এদিকে বিকালে বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে মাস্টারপাড়া এলাকায় উপজেলা আওয়ামী লীগের অনুসারী আসিফ (১৮) নামে একজনকে পিটিয়ে আহত করে মেয়র কাদের মির্জা অনুসারীরা। আহত আসিফকে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিতে নেওয়ার সময় নার্সিং হোমের সামনে মেয়র কাদের মির্জার অনুসারী সাইফুল ইসলামকে (২৮) একা পেয়ে পিটিয়ে আহত করে।

আহত আসিফ বসুরহাট পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের বেলায়েত হোসেনের ছেলে এবং সাইফুল ইসলাম চরকাঁকড়া ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ডের আবদুর রশীদের ছেলে।

সেতুমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিস্ফোরণ, ৬টি ককটেল উদ্ধার

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
০২ আগস্ট ২০২১, ০৯:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে গ্রামের বাড়ির সামনের সড়কে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে ঘটনাস্থল থেকে ৬টি অবিস্ফোরিত ককটেল, ১টি বিস্ফোরিত ও ১ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার বিকাল ৪টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বড় রাজাপুর গ্রামের বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কে এ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন আনোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সুপ্রভাত চাকমা ঘটনাস্থলে রয়েছে। তবে কে বা কারা দিনদুপুরে এ ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়েছে এ বিষয়ে ওসি কিছু জানাতে পারেননি।

ওসি আরও জানান, মন্ত্রীর বাড়ির সামনে বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কের ফাঁকা জায়গায় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এছাড়া ৫টি অবিস্ফোরিত ককটেল ও একটি কার্তুজ ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশীদ মঞ্জু বলেন, এটি একটি সাজানো নাটক। বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়ক একটি আঞ্চলিক মহাসড়ক। এ সড়কে বারবার ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে কাদের মির্জা ঘোলাপানিতে মাছ শিকার করতে চায়। যুক্তরাষ্ট্র থেকে কাদের মির্জার নির্দেশে কোম্পানীগঞ্জকে অস্থিতিশীল রাখতে এবং প্রতিপক্ষের নেতাকর্মীদের ফাঁসানের জন্য তার অনুসারীরা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ সময় তিনি পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান, তারা যেন বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন করে।  

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, খবর পাওয়ার পরপরই আমি সার্কেল এসপিসহ অফিসার পাঠিয়েছি; তাদের রিপোর্ট পাওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এদিকে বিকালে বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে মাস্টারপাড়া এলাকায় উপজেলা আওয়ামী লীগের অনুসারী আসিফ (১৮) নামে একজনকে পিটিয়ে আহত করে মেয়র কাদের মির্জা অনুসারীরা। আহত আসিফকে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিতে নেওয়ার সময় নার্সিং হোমের সামনে মেয়র কাদের মির্জার অনুসারী সাইফুল ইসলামকে (২৮) একা পেয়ে পিটিয়ে আহত করে।

আহত আসিফ বসুরহাট পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের বেলায়েত হোসেনের ছেলে এবং সাইফুল ইসলাম চরকাঁকড়া ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ডের আবদুর রশীদের ছেলে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন