বাবাকে নিয়ে এমপিকন্যার আবেগঘন স্ট্যাটাস
jugantor
বাবাকে নিয়ে এমপিকন্যার আবেগঘন স্ট্যাটাস

  মো. আবদুল বাতেন, চান্দিনা (কুমিল্লা)  

০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯:২৯:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

আপনজন হারানোর শোক সহ্য করা অনেক কঠিন। কেউ চান না তার আপনজন হারিয়ে যাক। প্রিয়জন বা আপনজন হারিয়ে কেউবা শোকে পাথর হন আবার কেউবা সারা জীবন চোখের পানিতে বুক ভাসান।

কুমিল্লা-৭ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক ডেপুটি স্পিকার সদ্যপ্রয়াত অধ্যাপক মো. আলী আশরাফকে হারিয়ে চোখের পানিতে বুক ভাসাচ্ছেন তার পরিবার, প্রিয়জন, আস্থাভাজন কর্মীরা। মনের চাপা কষ্ট সহ্য করতে না পেরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বহিঃপ্রকাশও করছেন অনেকে।

এরই মধ্যে সোমবার দুপুরে পিতাকে নিয়ে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির বড় মেয়ে আইরিন পারভীন রীনা। কানাডার একটি কলেজের ইংরেজি শিক্ষক তিনি।

তিনি তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন- আব্বু, আমি ফোনটা সারাক্ষণ হাতে নিয়ে থাকি তোমার ফোন আসবে এই আশায়। কতদিন হয়ে গেল তুমি ফোন কর না! ফোনটা করেই তুমি বলবে- রিন কেমন আছো? এত সুন্দর করে তুমি আমায় রিন বলে ডাক! কতদিন তোমার ডাক শুনি না বাবা!

পত্রিকা বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ যখন তোমার নামের আগে মরহুম লিখে অথবা লিখে ‘মৃত্যুর সময়'- আমি ‘মরহুম’ অথবা ‘মৃত্যু’ এই শব্দগুলো তোমার ব্যাপারে লিখলে মানতে পারি না বাবা, কোনোভাবেই মানতে পারি না! আমি ভাবি তুমি চান্দিনায় গেছ, মিটিং অথবা তোমার প্রাণপ্রিয় জনগণের মাঝে ব্যস্ত আছ, তাই আমায় ফোন করতে পারছ না।

বসে বসে তোমার বক্তৃতাগুলো শুনি। তোমার কথাগুলো মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনি। কত সুন্দর করে তুমি কথা বলো বাবা!

প্রতিবার নামাজ পড়তে যেয়ে তোমার কবরের ছবিটা আমার চোখে ভেসে উঠে- ‘আব্বু তুমি ওখানে কেমন আছো?’ চোখের জল বাঁধ মানে না!

রাতে আরামদায়ক বিছানায় শুয়ে মনে হয়, আমার বাবা মাটিতে শুয়ে আছে। তখন আর শুয়ে থাকতে পারি না, উঠে যাই। বাবা তুমি কেমন আছো? আমি, আমরা কেউ ভালো নেই বাবা, তোমাকে ছাড়া কেউ ভালো নেই!

মনকে বুঝাই, বেহেশতে যেয়ে তোমার সঙ্গে যখন আমার দেখা হবে, ছোট্ট খুকিটির মতো তোমার হাত ধরে বেহেস্তের বাগানে হাঁটব তখন। রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বা ইয়ানিস সাগিরা।

এমপি তনয়ার এমন আবেগঘন স্ট্যাটাসে অধ্যাপক আলী আশরাফের ভক্ত ও নেতাকর্মীরাও আবেগঘন মন্তব্য প্রদান করছেন। আবার কেউবা সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। সব কিছুর বিনিময়েও আর ফিরে আসবেন না কিংবদন্তি ওই নেতা।

সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির কবর জিয়ারত করেছেন কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। সোমাবর বিকাল সাড়ে ৫টায় চান্দিনার গল্লাই গ্রামে মরহুম অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির কবর জিয়ারত করে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া প্রার্থনা করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসন থেকে পাঁচবার নির্বাচিত প্রবীণ সংসদ সদস্য অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

ওই রাতে রাজধানী গুলশানের আজাদ মসজিদে প্রথম জানাজা, পরদিন শনিবার বেলা ১১টায় চান্দিনা মহিলা কলেজ মাঠে দ্বিতীয় জানাজা, দুপুর ২টায় নবাবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তৃতীয় জানাজা, বিকাল ৫টায় গল্লাই ইসমাইল দাখিল মাদ্রাসা মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা এবং শেষ জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় অধ্যাপক মো. আলী আশরাফের লাশ।

বাবাকে নিয়ে এমপিকন্যার আবেগঘন স্ট্যাটাস

 মো. আবদুল বাতেন, চান্দিনা (কুমিল্লা) 
০৩ আগস্ট ২০২১, ০৭:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আপনজন  হারানোর শোক সহ্য করা অনেক কঠিন। কেউ চান না তার আপনজন হারিয়ে যাক। প্রিয়জন বা আপনজন হারিয়ে কেউবা শোকে পাথর হন আবার কেউবা সারা জীবন চোখের পানিতে বুক ভাসান। 

কুমিল্লা-৭ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক ডেপুটি স্পিকার সদ্যপ্রয়াত অধ্যাপক মো. আলী আশরাফকে হারিয়ে চোখের পানিতে বুক ভাসাচ্ছেন তার পরিবার, প্রিয়জন, আস্থাভাজন কর্মীরা। মনের চাপা কষ্ট সহ্য করতে না পেরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বহিঃপ্রকাশও করছেন অনেকে।

এরই মধ্যে সোমবার দুপুরে পিতাকে নিয়ে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির বড় মেয়ে আইরিন পারভীন রীনা। কানাডার একটি কলেজের ইংরেজি শিক্ষক তিনি।

তিনি তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন- আব্বু, আমি ফোনটা সারাক্ষণ হাতে নিয়ে থাকি তোমার ফোন আসবে এই আশায়। কতদিন হয়ে গেল তুমি ফোন কর না! ফোনটা করেই তুমি বলবে- রিন কেমন আছো? এত সুন্দর করে তুমি আমায় রিন বলে ডাক! কতদিন তোমার ডাক শুনি না বাবা!

পত্রিকা বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ যখন তোমার নামের আগে মরহুম লিখে অথবা লিখে ‘মৃত্যুর সময়'- আমি ‘মরহুম’ অথবা ‘মৃত্যু’ এই শব্দগুলো তোমার ব্যাপারে লিখলে মানতে পারি না বাবা, কোনোভাবেই মানতে পারি না! আমি ভাবি তুমি চান্দিনায় গেছ, মিটিং অথবা তোমার প্রাণপ্রিয় জনগণের মাঝে ব্যস্ত আছ, তাই আমায় ফোন করতে পারছ না।

বসে বসে তোমার বক্তৃতাগুলো শুনি। তোমার কথাগুলো মন্ত্রমুগ্ধের মতো শুনি। কত সুন্দর করে তুমি কথা বলো বাবা!

প্রতিবার নামাজ পড়তে যেয়ে তোমার কবরের ছবিটা আমার চোখে ভেসে উঠে- ‘আব্বু তুমি ওখানে কেমন আছো?’ চোখের জল বাঁধ মানে না!

রাতে আরামদায়ক বিছানায় শুয়ে মনে হয়, আমার বাবা মাটিতে শুয়ে আছে। তখন আর  শুয়ে থাকতে পারি না, উঠে যাই। বাবা তুমি কেমন আছো? আমি, আমরা কেউ ভালো নেই বাবা, তোমাকে ছাড়া কেউ ভালো নেই!

মনকে বুঝাই, বেহেশতে যেয়ে তোমার সঙ্গে যখন আমার দেখা হবে, ছোট্ট খুকিটির মতো তোমার হাত ধরে বেহেস্তের বাগানে হাঁটব তখন। রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বা ইয়ানিস সাগিরা।

এমপি তনয়ার এমন আবেগঘন স্ট্যাটাসে অধ্যাপক আলী আশরাফের ভক্ত ও নেতাকর্মীরাও আবেগঘন মন্তব্য প্রদান করছেন। আবার কেউবা সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। সব কিছুর বিনিময়েও আর ফিরে আসবেন না কিংবদন্তি ওই নেতা। 

সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির কবর জিয়ারত করেছেন কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। সোমাবর বিকাল সাড়ে ৫টায় চান্দিনার গল্লাই গ্রামে মরহুম অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপির কবর জিয়ারত করে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া প্রার্থনা করেন তিনি। 

প্রসঙ্গত, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসন থেকে পাঁচবার নির্বাচিত প্রবীণ সংসদ সদস্য অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

ওই রাতে রাজধানী গুলশানের আজাদ মসজিদে প্রথম জানাজা, পরদিন শনিবার বেলা ১১টায় চান্দিনা মহিলা কলেজ মাঠে দ্বিতীয় জানাজা, দুপুর ২টায় নবাবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তৃতীয় জানাজা, বিকাল ৫টায় গল্লাই ইসমাইল দাখিল মাদ্রাসা মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা এবং শেষ জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় অধ্যাপক মো. আলী আশরাফের লাশ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন