রাস্তায় ধানের চারা
jugantor
রাস্তায় ধানের চারা

  যুগান্তর প্রতিবেদন, রাঙ্গাবালী   

০৪ আগস্ট ২০২১, ২২:৫৬:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বর্ষা মৌসুম এলেই পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার মৌডুবি ইউনিয়নের একটি রাস্তা কাদাপানিতে নাকাল হয়ে পড়ে। ফলে কর্দমাক্ত রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় পথচারীদের পোহাতে হয় দুর্ভোগ। ওই রাস্তায় ধানের চারা রোপণ করে অভিনব প্রতিবাদ করা হয়।

সরেজমিন দেখা গেছে, শ্রাবণের টানা বর্ষণে মৌডুবি বাজার থেকে নিউ মার্কেট হয়ে নিজকাটা লঞ্চঘাট পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার এ কাচা রাস্তা খানাখন্দ আর কাদাপানিতে বেহাল দশায় রূপ নিয়েছে। সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই যানবাহন চলা তো দূরের কথা, পায়ে হেঁটে চলাচল করাই কষ্টকর হয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, মৌডুবি ইউনিয়নের হাফেজকান্দা, মীরকান্দা, খাসমহল, মৃধাকান্দা, নিজকাটাসহ আরও কয়েকটি গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তা এটি। কিন্তু প্রতিবছর বর্ষা মৌসুম এলেই রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হয় হাজারও মানুষের। তাই এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি, জনদুর্ভোগ কমাতে রাস্তাটি পাকাকরণ করা হোক।

দীর্ঘদিনেও সেই দাবি পূরণ না হওয়ায় বুধবার দুপুরে কর্দমাক্ত ওই রাস্তায় ধানের চারা রোপণ করে অভিনব প্রতিবাদ করা হয়। এ প্রতিবাদের উদ্যোক্তা স্থানীয় ফরিদ হাওলাদার, সোহেল খান ও তানজিল মৃধা। তাদের প্রতিবাদে সমর্থন জানিয়ে স্থানীয় লোকজন বলেন, রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের আর উপযোগী নেই। এটি এখন ধান ক্ষেতে পরিণত হয়েছে। তাই ধানের চারা লাগিয়েই প্রতিবাদ করা হয়।

মৌডুবি বাজারের ব্যবসায়ী এআর সুজন বলেন, জনপ্রতিনিধিদের অনেক প্রতিশ্রুতি শুনেছেন এলাকাবাসী। কিন্তু দীর্ঘদিনেও রাস্তাটি পাকাকরণের উদ্যোগ নেয়নি কেউ। এখন আর প্রতিশ্রুতি নয়, কাজে বাস্তবায়ন চায় এলাকার মানুষ।

এ ব্যাপারে মৌডুবি ইউনিয়ন পরিষদের প্রশাসক মনিরুল ইসলাম বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি যাতে পাকাকরণ করা হয়, সে বিষয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবো।

রাস্তায় ধানের চারা

 যুগান্তর প্রতিবেদন, রাঙ্গাবালী  
০৪ আগস্ট ২০২১, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বর্ষা মৌসুম এলেই পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার মৌডুবি ইউনিয়নের একটি রাস্তা কাদাপানিতে নাকাল হয়ে পড়ে। ফলে কর্দমাক্ত রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় পথচারীদের পোহাতে হয় দুর্ভোগ। ওই রাস্তায় ধানের চারা রোপণ করে অভিনব প্রতিবাদ করা হয়।

সরেজমিন দেখা গেছে, শ্রাবণের টানা বর্ষণে মৌডুবি বাজার থেকে নিউ মার্কেট হয়ে নিজকাটা লঞ্চঘাট পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার এ কাচা রাস্তা খানাখন্দ আর কাদাপানিতে বেহাল দশায় রূপ নিয়েছে। সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই যানবাহন চলা তো দূরের কথা, পায়ে হেঁটে চলাচল করাই কষ্টকর হয়ে যায়।

স্থানীয়রা জানান, মৌডুবি ইউনিয়নের হাফেজকান্দা, মীরকান্দা, খাসমহল, মৃধাকান্দা, নিজকাটাসহ আরও কয়েকটি গ্রামের মানুষের চলাচলের প্রধান রাস্তা এটি। কিন্তু প্রতিবছর বর্ষা মৌসুম এলেই রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হয় হাজারও মানুষের। তাই এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি, জনদুর্ভোগ কমাতে রাস্তাটি পাকাকরণ করা হোক।

দীর্ঘদিনেও সেই দাবি পূরণ না হওয়ায় বুধবার দুপুরে কর্দমাক্ত ওই রাস্তায় ধানের চারা রোপণ করে অভিনব প্রতিবাদ করা হয়। এ প্রতিবাদের উদ্যোক্তা স্থানীয় ফরিদ হাওলাদার, সোহেল খান ও তানজিল মৃধা। তাদের প্রতিবাদে সমর্থন জানিয়ে স্থানীয় লোকজন বলেন, রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের আর উপযোগী নেই। এটি এখন ধান ক্ষেতে পরিণত হয়েছে। তাই ধানের চারা লাগিয়েই প্রতিবাদ করা হয়।

মৌডুবি বাজারের ব্যবসায়ী এআর সুজন বলেন, জনপ্রতিনিধিদের অনেক প্রতিশ্রুতি শুনেছেন এলাকাবাসী। কিন্তু দীর্ঘদিনেও রাস্তাটি পাকাকরণের উদ্যোগ নেয়নি কেউ। এখন আর প্রতিশ্রুতি নয়, কাজে বাস্তবায়ন চায় এলাকার মানুষ।

এ ব্যাপারে মৌডুবি ইউনিয়ন পরিষদের প্রশাসক মনিরুল ইসলাম বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি যাতে পাকাকরণ করা হয়, সে বিষয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করবো।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন