করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা
jugantor
করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:০১:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা

দেশ স্বাধীন করলেও করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড বিএম কলেজের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ মো. মহিবুর রহমান। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টায় তিনি মারা যান।

এর আগে তিনি করোনা পজিটিভ হয়ে ২ আগস্ট রাজশাহী মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের জোতরাঘব গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমানের মুক্তিযুদ্ধে একসঙ্গে অংশগ্রহণকারী সহকর্মী ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল খালেক জানান, মহিবুর ১৯৭১ সালে দেশকে রক্ষা আর জীবন বাঁচানোর তাগিদে ভারতে গিয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে যুদ্ধে নামে তিনি। কমান্ডার কর্নেল উসমান ও গিয়াস উদ্দীনের অধীনে ৭ নম্বর সেক্টরে ১১৩ জন সৈন্য নিয়ে রংপুর, দিনাজপুর, যশোর, বেনাপোলসহ বিভিন্ন জায়গায় বীরত্বের সঙ্গে যুদ্ধ করেছেন তিনি।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেই বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমান জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড বিএম কলেজের প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। পরে তিনি ২০০৮ সালে অবসরগ্রহণ করেন।

তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। স্বাধীনতাযুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমানের ৩ স্ত্রী, ৬ ছেলে, ৪ মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ বহু গুণগ্রাহী আছেন।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যদায় মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে জোতরাঘব গ্রামের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা

 বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
০৫ আগস্ট ২০২১, ০৫:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা
ফাইল ছবি

দেশ স্বাধীন করলেও করোনার কাছে হেরে গেলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড বিএম কলেজের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ মো. মহিবুর রহমান। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টায় তিনি মারা যান।

এর আগে তিনি করোনা পজিটিভ হয়ে ২ আগস্ট রাজশাহী মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি হন। তিনি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের জোতরাঘব গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমানের মুক্তিযুদ্ধে একসঙ্গে অংশগ্রহণকারী সহকর্মী ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল খালেক জানান, মহিবুর ১৯৭১ সালে দেশকে রক্ষা আর জীবন বাঁচানোর তাগিদে ভারতে গিয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে যুদ্ধে নামে তিনি। কমান্ডার কর্নেল উসমান ও গিয়াস উদ্দীনের অধীনে ৭ নম্বর সেক্টরে ১১৩ জন সৈন্য নিয়ে রংপুর, দিনাজপুর, যশোর, বেনাপোলসহ বিভিন্ন জায়গায় বীরত্বের সঙ্গে যুদ্ধ করেছেন তিনি।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেই বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমান জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড বিএম কলেজের প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। পরে তিনি ২০০৮ সালে অবসরগ্রহণ করেন। 

তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। স্বাধীনতাযুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা মহিবুর রহমানের ৩ স্ত্রী, ৬ ছেলে, ৪ মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ বহু গুণগ্রাহী আছেন।

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় জোতরাঘব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রাষ্ট্রীয় মর্যদায় মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে জোতরাঘব গ্রামের কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন