কাদের মির্জার অনুসারীদের গুলিতে আহত ছাত্রলীগ নেতা
jugantor
কাদের মির্জার অনুসারীদের গুলিতে আহত ছাত্রলীগ নেতা

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৫ আগস্ট ২০২১, ২২:২০:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে চলমান দ্বন্দ্বের জের ধরে কাদের মির্জার অনুসারীদের গুলিতে উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য করিম উদ্দিন শাকিল (২৫) আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড করালিয়া আলতাফ উদ্দিন মেস্তরী বাড়ির দরজায় এ ঘটনা ঘটে। আহত শাকিল বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের মো. সেলিমের ছেলে। আহত অবস্থায় শাকিলকে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ছাত্রলীগ নেতা করিম উদ্দিন শাকিল মেয়র কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শাকিল তার বাড়ির পাশে করালিয়া এলাকায় একটি জানাজায় অংশগ্রহণ করতে গেলে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কাদের মির্জার অনুসারী শহীদ উল্যাহ রাসেল প্রকাশ কেচ্ছা রাসেল, পিচ্চি মাসুদ, মানিক, দিলিপ দাস, জিসান, ফাহাদ তার ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা তার দুই পায়ে গুলি করে এবং তাকে রড ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু অভিযোগ করে বলেন, মেয়র কাদের মির্জা অনুসারী কেচ্ছা রাসেল, পিচ্চি মাসুদ, মানিক, দিলিপ দাস, জিসান, ফাহাদসহ ১০-১৫ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী হত্যার উদ্দেশে ছাত্রলীগ নেতা শাকিলের ওপর ৯ রাউন্ড গুলি ও পিটিয়ে পা ভেঙে দেয়।

এ বিষয়ে জানার জন্য মেয়র কাদের মির্জা ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুলকে বারবার ফোন দিয়েও পাওয়া যায়নি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন আনোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, শাকিলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

কাদের মির্জার অনুসারীদের গুলিতে আহত ছাত্রলীগ নেতা

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৫ আগস্ট ২০২১, ১০:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে চলমান দ্বন্দ্বের জের ধরে কাদের মির্জার অনুসারীদের গুলিতে উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য করিম উদ্দিন শাকিল (২৫) আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড করালিয়া আলতাফ উদ্দিন মেস্তরী বাড়ির দরজায় এ ঘটনা ঘটে। আহত শাকিল বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের মো. সেলিমের ছেলে। আহত অবস্থায় শাকিলকে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।  

ছাত্রলীগ নেতা করিম উদ্দিন শাকিল মেয়র কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শাকিল তার বাড়ির পাশে করালিয়া এলাকায় একটি জানাজায় অংশগ্রহণ করতে গেলে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কাদের মির্জার অনুসারী শহীদ উল্যাহ রাসেল প্রকাশ কেচ্ছা রাসেল, পিচ্চি মাসুদ, মানিক, দিলিপ দাস, জিসান, ফাহাদ তার ওপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা তার দুই পায়ে গুলি করে এবং তাকে রড ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু অভিযোগ করে বলেন, মেয়র কাদের মির্জা অনুসারী কেচ্ছা রাসেল, পিচ্চি মাসুদ, মানিক, দিলিপ দাস, জিসান, ফাহাদসহ ১০-১৫ জন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী হত্যার উদ্দেশে ছাত্রলীগ নেতা শাকিলের ওপর ৯ রাউন্ড গুলি ও পিটিয়ে পা ভেঙে দেয়।

এ বিষয়ে জানার জন্য মেয়র কাদের মির্জা ঘোষিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুলকে বারবার ফোন দিয়েও পাওয়া যায়নি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন আনোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, শাকিলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন