টিকা নেওয়ার পর মৃত্যু, ঘর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি!
jugantor
টিকা নেওয়ার পর মৃত্যু, ঘর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি!

  পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি  

০৮ আগস্ট ২০২১, ১৯:২৪:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জে করোনার টিকা নেওয়ার পর আলেফ উদ্দিন (৬৫) মারা গেছেন। তার লাশ ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার রাতেই তাকে দাফন করা হয়েছে। তার পরিবারকে আর্থিক সহায়তা ও সরকারি বরাদ্দে ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

ওই ঘটনায় আলেফ উদ্দিনের স্ত্রী-সন্তানদের সান্ত্বনা দিতে শনিবার রাতেই উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মণ্ডল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায় রায়পুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামে যান।

আলেফের স্ত্রী রহিমা বেগম জানান, তার স্বামী দীর্ঘদিন ধরে হাঁপানি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। পাশাপাশি তার শারীরিক দুর্বলতাও ছিল। ওই অবস্থায় টিকা নেওয়া তার ঠিক হয়নি। অপরদিকে টিকা নেওয়ার পর আলেফের মৃত্যু হলে শনিবার বিকালেই পুলিশ বিশেষ ব্যবস্থায় লাশের ময়নাতদন্ত করার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায় বলেন, আমি আলেফ উদ্দিনের বাড়িতে গিয়ে তার বাড়িঘর দেখে খারাপ লেগেছে। আলেফ উদ্দিনের বিধবা স্ত্রী রহিমার জন্য সরকারি বরাদ্দে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মণ্ডল বলেন, পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম পুরুষ আলেফ মারা যাওয়ায় আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। তার পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব লাশ ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

টিকা নেওয়ার পর মৃত্যু, ঘর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি!

 পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি 
০৮ আগস্ট ২০২১, ০৭:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের পীরগঞ্জে করোনার টিকা নেওয়ার পর আলেফ উদ্দিন (৬৫) মারা গেছেন। তার লাশ ময়নাতদন্ত শেষে শনিবার রাতেই তাকে দাফন করা হয়েছে। তার পরিবারকে আর্থিক সহায়তা ও সরকারি বরাদ্দে ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। 

ওই ঘটনায় আলেফ উদ্দিনের স্ত্রী-সন্তানদের সান্ত্বনা দিতে শনিবার রাতেই উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মণ্ডল ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায় রায়পুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামে যান। 

আলেফের স্ত্রী রহিমা বেগম জানান, তার স্বামী দীর্ঘদিন ধরে হাঁপানি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। পাশাপাশি তার শারীরিক দুর্বলতাও ছিল। ওই অবস্থায় টিকা নেওয়া তার ঠিক হয়নি। অপরদিকে টিকা নেওয়ার পর আলেফের মৃত্যু হলে শনিবার বিকালেই পুলিশ বিশেষ ব্যবস্থায় লাশের ময়নাতদন্ত করার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিরোদা রানী রায় বলেন, আমি আলেফ উদ্দিনের বাড়িতে গিয়ে তার বাড়িঘর দেখে খারাপ লেগেছে। আলেফ উদ্দিনের বিধবা স্ত্রী রহিমার জন্য সরকারি বরাদ্দে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হবে। 

উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মণ্ডল বলেন, পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম পুরুষ আলেফ মারা যাওয়ায় আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। তার পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। 

থানার ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব লাশ ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন