কাদের মির্জার অনুসারীদের হামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ
jugantor
কাদের মির্জার অনুসারীদের হামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৮ আগস্ট ২০২১, ১৯:২৬:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় কাদের মির্জা অনুসারীদের হামলায় শাহজাহান সাজু (৩৮) নামে বসুরহাট পৌরসভা স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার দুপুর সোয়া ১টার দিকে বসুরহাট পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ডের মওদুদ স্কুলসংলগ্ন আদর্শপাড়া দোকানঘরে এ ঘটনা ঘটে।

শাহজাহান সাজু ওই এলাকার আহছান উল্যাহর ছেলে। তিনি কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

মেয়র কাদের মির্জার ভাগিনা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু জানান, কাদের মির্জার হাতুড়ি বাহিনীর কেচ্ছা রাসেল, জিসান, পিচ্চি মাসুদের নেতৃত্বে ১০-১২ জন হামলা চালিয়ে গুলি ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে সাজুর হাত-পা ভেঙে মাথায় আঘাত করেছে।

কাদের মির্জার সন্ত্রাসীরা একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটালেও পুলিশ একটি মামলাও নিচ্ছে না, আবার কাউকে গ্রেফতারও করছেন না। উল্টো আমাদের ছেলেদের হয়রানি করছে।

মঞ্জু দাবি করেন, পৌরসভা থেকে সন্ত্রাসীরা পুলিশের সামনে দিয়ে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বের হয় আবার অপারেশন শেষে প্রবেশ করে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি পুলিশের কাছে আর কোনো অভিযোগ না দিয়ে এবার ভিন্ন চিন্তা করব।

এ ঘটনার পর নোয়াখালীর অ্যাডিশনাল পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আকরামুল হাসান, কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশসহ প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, কোম্পানীগঞ্জের ঘটনাগুলোয় আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এ ব্যাপারে পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার জানান, এখনো কোনো অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কাদের মির্জার অনুসারীদের হামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৮ আগস্ট ২০২১, ০৭:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় কাদের মির্জা অনুসারীদের হামলায় শাহজাহান সাজু (৩৮) নামে বসুরহাট পৌরসভা স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার দুপুর সোয়া ১টার দিকে বসুরহাট পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ডের মওদুদ স্কুলসংলগ্ন আদর্শপাড়া দোকানঘরে এ ঘটনা ঘটে।

শাহজাহান সাজু ওই এলাকার আহছান উল্যাহর ছেলে। তিনি কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। 

মেয়র কাদের মির্জার ভাগিনা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু জানান, কাদের মির্জার হাতুড়ি বাহিনীর কেচ্ছা রাসেল, জিসান, পিচ্চি মাসুদের নেতৃত্বে ১০-১২ জন হামলা চালিয়ে গুলি ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে সাজুর হাত-পা ভেঙে মাথায় আঘাত করেছে।

কাদের মির্জার সন্ত্রাসীরা একের পর এক হামলার ঘটনা ঘটালেও পুলিশ একটি মামলাও নিচ্ছে না, আবার কাউকে গ্রেফতারও করছেন না। উল্টো আমাদের ছেলেদের হয়রানি করছে।

মঞ্জু দাবি করেন, পৌরসভা থেকে সন্ত্রাসীরা পুলিশের সামনে দিয়ে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বের হয় আবার অপারেশন শেষে প্রবেশ করে। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি পুলিশের কাছে আর কোনো অভিযোগ না দিয়ে এবার ভিন্ন চিন্তা করব।

এ ঘটনার পর নোয়াখালীর অ্যাডিশনাল পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আকরামুল হাসান, কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশসহ প্রশাসনের বিভিন্ন সংস্থা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

নোয়াখালী পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, কোম্পানীগঞ্জের ঘটনাগুলোয় আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এ ব্যাপারে পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার জানান, এখনো কোনো অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন