ছেলে চুরি করায় বাবার আত্মহত্যা 
jugantor
ছেলে চুরি করায় বাবার আত্মহত্যা 

  ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি  

০৯ আগস্ট ২০২১, ১৯:৫৩:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ছেলে সাইকেল চুরির অভিযোগে আটক হওয়ায় মান-সম্মান হারানোর ভয়ে বাবার বিষপানে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের ফুটানীবাজার নামক এলাকায়।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, উপজেলার ছিট পাইকেরছড়া গ্রামের সোনাউল্লাহ মিয়ার পুত্র রুবেল মিয়া (১৭) তার সহযোগী কালীরহাট গ্রামের আশিক মিয়া (১৮) ও একই গ্রামের আজিজুল হকের পুত্র সুমন মিয়া (১৮) গত শুক্রবার রাতে বঙ্গ সোনাহাট ইউনিয়নের গনাইরকুটি গ্রামের জনৈক আব্দুল লতিফের পুত্র আলতাফুরের (১৮) একটি বাইসাইকেল চুরি করে বিক্রি করে।

গতকাল রোববার দুপুরে চুরির টাকা ভাগাভাগি করার সময় ভাগে বনিবনা না হওয়ায় তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। এতে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে বাজারের লোকজন রুবেলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে গত বুধবার ভোরে সোনাহাট নতুন ব্রিজের কাজে ব্যবহৃত ২টি ব্যাটারি ও একটি বৈদ্যুতিক মোটর চুরির কথাও স্বীকার করে।

অপরদিকে ব্রিজের কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্সের প্রজেক্ট ম্যানেজার শামীম রেজা ব্যাটারি ও মোটর চুরির বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার থানায় একটি জিডি করেন।
পুলিশ খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হলে স্থানীয় জনতাকর্তৃক আটক রুবেলকে হেফাজতে নিয়ে থানায় নিয়ে আসে।

চুরির ঘটনায় পুত্র রুবেলকে পুলিশের হাতে আটক হওয়ায় মান-সম্মান হারানো ও লোকলজ্জার ভয়ে রুবেলের পিতা সোনাউল্লাহ মিয়া সন্ধ্যায় বিষপান করেন। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাত ১১টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, রুবেলের বিরুদ্ধে সাইকেল ও ব্যাটারি চুরির কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না থাকায়, অপ্রাপ্ত বয়স ও তার পিতা বিষপানে অসুস্থ হলে চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আসাদুল হকের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।

ছেলে চুরি করায় বাবার আত্মহত্যা 

 ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি 
০৯ আগস্ট ২০২১, ০৭:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ছেলে সাইকেল চুরির অভিযোগে আটক হওয়ায় মান-সম্মান হারানোর ভয়ে বাবার বিষপানে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের ফুটানীবাজার নামক এলাকায়।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, উপজেলার ছিট পাইকেরছড়া  গ্রামের সোনাউল্লাহ মিয়ার পুত্র রুবেল মিয়া (১৭) তার সহযোগী কালীরহাট গ্রামের আশিক মিয়া (১৮) ও একই গ্রামের আজিজুল হকের পুত্র সুমন মিয়া (১৮) গত শুক্রবার রাতে বঙ্গ সোনাহাট ইউনিয়নের গনাইরকুটি গ্রামের জনৈক আব্দুল লতিফের পুত্র আলতাফুরের (১৮) একটি বাইসাইকেল চুরি করে বিক্রি করে। 

গতকাল রোববার দুপুরে চুরির টাকা ভাগাভাগি করার সময় ভাগে বনিবনা না হওয়ায় তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। এতে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে বাজারের লোকজন রুবেলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে গত বুধবার ভোরে সোনাহাট নতুন ব্রিজের কাজে ব্যবহৃত ২টি ব্যাটারি ও একটি বৈদ্যুতিক মোটর চুরির কথাও স্বীকার করে। 

অপরদিকে ব্রিজের কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্সের প্রজেক্ট ম্যানেজার শামীম রেজা ব্যাটারি ও মোটর চুরির বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার থানায় একটি  জিডি করেন।
পুলিশ খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হলে স্থানীয় জনতাকর্তৃক আটক রুবেলকে হেফাজতে নিয়ে থানায় নিয়ে আসে।

চুরির ঘটনায় পুত্র রুবেলকে পুলিশের হাতে আটক  হওয়ায় মান-সম্মান হারানো ও লোকলজ্জার ভয়ে রুবেলের পিতা সোনাউল্লাহ মিয়া সন্ধ্যায় বিষপান করেন। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার রাত ১১টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। 

ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, রুবেলের বিরুদ্ধে সাইকেল ও ব্যাটারি চুরির কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না থাকায়, অপ্রাপ্ত বয়স ও তার পিতা বিষপানে অসুস্থ হলে চর ভূরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আসাদুল হকের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন