শ্রমিক লীগ নেত্রী গ্রেফতার, দল থেকে বহিষ্কার
jugantor
শ্রমিক লীগ নেত্রী গ্রেফতার, দল থেকে বহিষ্কার

  তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১১ আগস্ট ২০২১, ০০:০৩:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

এক শ্রমিক লীগ নেত্রী ছিনতাই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন। মনু মিয়া নামের এক ব্যক্তির দায়ের করা ছিনতাই মামলায় মঙ্গলবার দুপুরে তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত নেত্রীর নাম মৌসুমী আক্তার (২৫)। তিনি কুমিল্লার তিতাস উপজেলা শ্রমিক লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক। এঘটনায় মৌসুমী আক্তারকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

তিতাস উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আল-আমিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মৌসুমী আক্তার ছাড়াও হাছিনা আক্তার (২৬) , আঁখি সরকার (২০) ও শিউলী (২০) নামের আরও তিন নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মৌসুমী তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি এলাকার রুবেল মিয়ার স্ত্রী।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার (৯ আগস্ট) তিতাস উপজেলার শ্রীমদ্দি গ্রামের মো. মনু মিয়া মেয়ে শারমিনকে নিয়ে ২ লাখ ১২ হাজার টাকা সোনালী ব্যাংকের হোমনা শাখায় জমা দিতে যান। ব্যাংকে ভিড় থাকায় তারা টাকা জমা না দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে হোমনা বাজারে অভিযুক্ত মৌসুমীসহ চার নারী তাদের গতিরোধ করে শারমিনের ব্যাগে থেকে এক লাখ টাকা নিয়ে যান। এ সময় শারমিনের চিৎকারে উপস্থিত লোকজন তিন নারী ছিনতাইকারীকে আটক করেন। তবে মৌসুমী পালিয়ে যান। পরবর্তীতে কৌশলে যোগাযোগ করে এক লাখ টাকার মধ্যে ৮০ হাজার টাকা দিলেই আটকদের ছেড়ে দেওয়া হবে- এমন প্রলোভন দিলে মৌসুমী ৮০ হাজার টাকা নিয়ে ঘটনাস্থলে যান।পরে স্থানীয়রা মৌসুমীসহ চার নারীকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন।

হোমনা থানার ওসি মো. আবুল কায়েস আকন্দ জানান, ভুক্তভোগী মনু মিয়া বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর প্রাথমিক তদন্তে ঘটনায় শ্রমিক লীগ নেত্রী মৌসুমী আক্তারসহ চার নারীর সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মৌসুমীসহ চারজনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শ্রমিক লীগ নেত্রী গ্রেফতার, দল থেকে বহিষ্কার

 তিতাস (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১১ আগস্ট ২০২১, ১২:০৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এক শ্রমিক লীগ নেত্রী ছিনতাই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন। মনু মিয়া নামের এক ব্যক্তির দায়ের করা ছিনতাই মামলায় মঙ্গলবার দুপুরে তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

গ্রেফতারকৃত নেত্রীর নাম মৌসুমী আক্তার (২৫)। তিনি কুমিল্লার তিতাস উপজেলা শ্রমিক লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক। এ ঘটনায় মৌসুমী আক্তারকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

তিতাস উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আল-আমিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মৌসুমী আক্তার ছাড়াও হাছিনা আক্তার (২৬) , আঁখি সরকার (২০) ও শিউলী (২০) নামের আরও তিন নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মৌসুমী তিতাস উপজেলার জিয়ারকান্দি এলাকার রুবেল মিয়ার স্ত্রী।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার (৯ আগস্ট) তিতাস উপজেলার শ্রীমদ্দি গ্রামের মো. মনু মিয়া মেয়ে শারমিনকে নিয়ে ২ লাখ ১২ হাজার টাকা সোনালী ব্যাংকের হোমনা শাখায় জমা দিতে যান। ব্যাংকে ভিড় থাকায় তারা টাকা জমা না দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে হোমনা বাজারে অভিযুক্ত মৌসুমীসহ চার নারী তাদের গতিরোধ করে শারমিনের ব্যাগে থেকে এক লাখ টাকা নিয়ে যান। এ সময় শারমিনের চিৎকারে উপস্থিত লোকজন তিন নারী ছিনতাইকারীকে আটক করেন। তবে মৌসুমী পালিয়ে যান। পরবর্তীতে কৌশলে যোগাযোগ করে এক লাখ টাকার মধ্যে ৮০ হাজার টাকা দিলেই আটকদের ছেড়ে দেওয়া হবে- এমন প্রলোভন দিলে মৌসুমী ৮০ হাজার টাকা নিয়ে ঘটনাস্থলে যান।পরে স্থানীয়রা মৌসুমীসহ চার নারীকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন।

হোমনা থানার ওসি মো. আবুল কায়েস আকন্দ জানান, ভুক্তভোগী মনু মিয়া বাদী হয়ে মামলা দায়েরের পর প্রাথমিক তদন্তে ঘটনায় শ্রমিক লীগ নেত্রী মৌসুমী আক্তারসহ চার নারীর সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় মৌসুমীসহ চারজনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন