বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ফলকে ঠিকাদারের নাম!
jugantor
বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ফলকে ঠিকাদারের নাম!

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি  

১৪ আগস্ট ২০২১, ২২:২২:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রধান ফটকের সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের ফলকে অবাঞ্ছিতভাবে ঠিকাদারের নাম খোদাই করা হয়েছে।

শনিবার সকালে ম্যুরালটি উদ্বোধন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

তবে ম্যুরাল উদ্বোধন করতে এসে আমন্ত্রিত অতিথিরা লক্ষ্য করেন ম্যুরালের ফলকে অবাঞ্ছিতভাবে ঠিকাদারের নাম খোদাই করা হয়েছে। এ নিয়ে শুরু হয় গুঞ্জন। ঠিকাদার মোস্তাফিজার রহমান রবিন প্রতিমন্ত্রীর আপন চাচাতো ভাই হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি কেউই। তবে ঘটনাটি প্রশাসনের নজরে এলে প্রতিমন্ত্রী ফলকটি সংশোধনের নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আবদুল্লাহ জানান, কাজটি করা ঠিক হয়নি। প্রতিমন্ত্রীর চাচাতো ভাই ও ঠিকাদার রবিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ফলে কেউ মুখ খোলেননি। এছাড়াও ফলকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও নির্মাণের দায়িত্বে থাকা এলজিইডির নামও সেখানে উল্লেখ করা হয়নি।

নির্মাণের দায়িত্বে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী মেজবাহ উল হক জানান, উপজেলা পরিষদের রাজস্ব উন্নয়ন বাজেট থেকে সাড়ে ৬ লাখ টাকায় এ গুরুত্বপূর্ণ ম্যুরালটি এলজিইডির তত্ত্বাবধানে নির্মাণ করা হয়। ফলকের প্রাথমিক স্যাম্পলে ঠিকাদারের নাম ছিল না। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদার মোস্তাফিজার রহমান রবিন বলেন, এ নিয়ে আমার কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কাজ করেছি আমার নাম থাকবে না কেন?

ফলকে ঠিকাদারের নাম লেখার ব্যাপারে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান জানান, ঠিকাদার ভুলবশত নিজের নাম লিখেছেন। এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রীকে জানালে তিনি ২-৩ দিনের মধ্যে ফলক সংশোধনের জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, বিষয়টি তিনি অবহিত হয়েছেন এবং এটি দ্রুত অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন।

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ফলকে ঠিকাদারের নাম!

 কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি 
১৪ আগস্ট ২০২১, ১০:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রধান ফটকের সামনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালের ফলকে অবাঞ্ছিতভাবে ঠিকাদারের নাম খোদাই করা হয়েছে।

শনিবার সকালে ম্যুরালটি উদ্বোধন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

তবে ম্যুরাল উদ্বোধন করতে এসে আমন্ত্রিত অতিথিরা লক্ষ্য করেন ম্যুরালের ফলকে অবাঞ্ছিতভাবে ঠিকাদারের নাম খোদাই করা হয়েছে। এ নিয়ে শুরু হয় গুঞ্জন। ঠিকাদার মোস্তাফিজার রহমান রবিন প্রতিমন্ত্রীর আপন চাচাতো ভাই হওয়ায় বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি কেউই। তবে ঘটনাটি প্রশাসনের নজরে এলে প্রতিমন্ত্রী ফলকটি সংশোধনের নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আবদুল্লাহ জানান, কাজটি করা ঠিক হয়নি। প্রতিমন্ত্রীর চাচাতো ভাই ও ঠিকাদার রবিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ফলে কেউ মুখ খোলেননি। এছাড়াও ফলকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও নির্মাণের দায়িত্বে থাকা এলজিইডির নামও সেখানে উল্লেখ করা হয়নি।

নির্মাণের দায়িত্বে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী মেজবাহ উল হক জানান, উপজেলা পরিষদের রাজস্ব উন্নয়ন বাজেট থেকে সাড়ে ৬ লাখ টাকায় এ গুরুত্বপূর্ণ ম্যুরালটি এলজিইডির তত্ত্বাবধানে নির্মাণ করা হয়। ফলকের প্রাথমিক স্যাম্পলে ঠিকাদারের নাম ছিল না। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদার মোস্তাফিজার রহমান রবিন বলেন, এ নিয়ে আমার কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কাজ করেছি আমার নাম থাকবে না কেন?

ফলকে ঠিকাদারের নাম লেখার ব্যাপারে রৌমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান জানান, ঠিকাদার ভুলবশত নিজের নাম লিখেছেন। এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রীকে জানালে তিনি ২-৩ দিনের মধ্যে ফলক সংশোধনের জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশ প্রদান করেছেন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, বিষয়টি তিনি অবহিত হয়েছেন এবং এটি দ্রুত অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন