রাতের আঁধারে পরকীয়া করতে গিয়ে প্রেমিক ধরা, অতঃপর
jugantor
রাতের আঁধারে পরকীয়া করতে গিয়ে প্রেমিক ধরা, অতঃপর

  গলাচিপা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৭ আগস্ট ২০২১, ১৫:০৫:৫০  |  অনলাইন সংস্করণ

পরকীয়া

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় রাতের আঁধারে পরকীয়া প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধরা খেলেন আল আমীন (২৬) নামে এক যুবক। এ সময় তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহত আল আমীনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ সোহানসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে।

আল আমীন গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের আলতাফ হোসেন গাজীর ছেলে। তিনি ঢাকায় বিমানবাহিনীর বাশার রেঞ্জে মাস্টাররোলে শ্রমিকের কাজ করেন।

পুলিশ ও অন্যান্য সূত্র জানায়, আল আমীন দিন কয়েক আগে বাড়িতে ফেরেন। তার সঙ্গে অনেক আগ থেকে এক গৃহবধূর পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল।

শনিবার গভীর রাতে আল আমীন ওই গৃহবধূর সঙ্গে দেখা করতে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে প্রেমিকার ছেলে সোহান তার তিন মামাসহ কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে ফাঁদ পাতে। আল আমীন সে ফাঁদে ধরা পড়ে। সোহান ও তার সঙ্গীরা আল আমীনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

সংজ্ঞাহীন অবস্থায় আল আমীনকে প্রথমে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং সর্বশেষ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, আল আমীনের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন। এ ঘটনায় আল আমীনের ভগ্নিপতি হাতেম মাতবর রোববার রাতে গলাচিপা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গলাচিপা থানার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার জানান, মামলার প্রধান আসামি সোহানসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় ব্যবহৃত ধারালো বঁটি, চাকু ও দা মামলার আলামত হিসেবে উদ্ধার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিরও গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

রাতের আঁধারে পরকীয়া করতে গিয়ে প্রেমিক ধরা, অতঃপর

 গলাচিপা ও দক্ষিণ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৭ আগস্ট ২০২১, ০৩:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পরকীয়া
ফাইল ছবি

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় রাতের আঁধারে পরকীয়া প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধরা খেলেন আল আমীন (২৬) নামে এক যুবক। এ সময় তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহত আল আমীনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ সোহানসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে।

আল আমীন গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের আলতাফ হোসেন গাজীর ছেলে। তিনি ঢাকায় বিমানবাহিনীর বাশার রেঞ্জে মাস্টাররোলে শ্রমিকের কাজ করেন।

পুলিশ ও অন্যান্য সূত্র জানায়, আল আমীন দিন কয়েক আগে বাড়িতে ফেরেন। তার সঙ্গে অনেক আগ থেকে এক গৃহবধূর পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল।

শনিবার গভীর রাতে আল আমীন ওই গৃহবধূর সঙ্গে দেখা করতে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে প্রেমিকার ছেলে সোহান তার তিন মামাসহ কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে ফাঁদ পাতে। আল আমীন সে ফাঁদে ধরা পড়ে। সোহান ও তার সঙ্গীরা আল আমীনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

সংজ্ঞাহীন অবস্থায় আল আমীনকে প্রথমে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং সর্বশেষ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, আল আমীনের অবস্থা সঙ্কটাপন্ন। এ ঘটনায় আল আমীনের ভগ্নিপতি হাতেম মাতবর রোববার রাতে গলাচিপা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গলাচিপা থানার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার জানান, মামলার প্রধান আসামি সোহানসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় ব্যবহৃত ধারালো বঁটি, চাকু ও দা মামলার আলামত হিসেবে উদ্ধার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিরও গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন