পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১
jugantor
পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

১৭ আগস্ট ২০২১, ২৩:৪৮:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর রায়পুরায় পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে(১২) বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় জুবায়েদ (১৫) নামে এক কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকালে আদিয়াবাদ এলাকা থেকে ওই কিশোরকে আটক করা হয়। ধর্ষণের ঘটনাটি সোমবার রাতে ঘটলেও তা উভয়পক্ষ গোপন রাখার চেষ্টা চালায়।

রায়পুরা উপজেলার আদিয়াবাদ ইউনিয়নের শেরপুর পূর্বপাড়া এলাকায় এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। নির্যাতিতা স্থানীয় একটি প্রাইমারি স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।

আটক কিশোর জুবায়েদ একই ইউনিয়নের শেরপুর গ্রামের মো. জাকারিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় স্কুল ছাত্রসহ আরো চারজন জড়িত রয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্যাতিতার পরিবার।

নির্যাতিতার বাবা জানায়, সোমবার সন্ধ্যার পর তার মেয়েকে বাড়ি থেকে কৌশলে ডেকে নিয়ে যান দূর সম্পর্কের মামাতো ভাই সাজিব। পরে বাড়ির অদূরের একটি পরিত্যক্ত মুরগির খামারে নিয়ে সাজিব ও জুবায়েদসহ তাদের আরও তিন সহযোগী পালাক্রমে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে অসুস্থ অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়।

ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারটি প্রাথমিকভাবে মেয়ের দুরঅবস্থার কথা গোপন করার চেষ্টা করেন। পরে ধর্ষকদের নানা হুমকি-ধামকি আর মেয়েটির চিকিৎসা ঘটনার পর এলাকায় জানাজানি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ বিকালে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযান
চালিয়ে জড়িত একজনকে গ্রেফতার করেন।

মূল আসামি গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চিরুনি অভিযান চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের হয়নি।

রায়পুরা থানার পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা স্কুল ছাত্রী গণধর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মেয়েটির সঙ্গে সাজিব নামে ছেলেটির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে কি না তা পুলিশ তদন্ত করবে। এ ঘটনায় একজন ধর্ষককে আটক করা হয়েছে।
মামলার প্রস্তুতি চলছে। অন্য আসামিদের আটকের পুলিশের অভিযান চলছে।

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
১৭ আগস্ট ২০২১, ১১:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর রায়পুরায় পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে (১২) বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

এ ঘটনায় জুবায়েদ (১৫) নামে এক কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ। 

মঙ্গলবার বিকালে আদিয়াবাদ এলাকা থেকে ওই কিশোরকে আটক করা হয়। ধর্ষণের ঘটনাটি সোমবার রাতে ঘটলেও তা উভয়পক্ষ গোপন রাখার চেষ্টা চালায়। 

রায়পুরা উপজেলার আদিয়াবাদ ইউনিয়নের শেরপুর পূর্বপাড়া এলাকায় এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। নির্যাতিতা স্থানীয় একটি প্রাইমারি স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী।

আটক কিশোর জুবায়েদ একই ইউনিয়নের শেরপুর গ্রামের মো. জাকারিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় স্কুল ছাত্রসহ আরো চারজন জড়িত রয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্যাতিতার পরিবার।

নির্যাতিতার বাবা জানায়, সোমবার সন্ধ্যার পর তার মেয়েকে বাড়ি থেকে কৌশলে ডেকে নিয়ে যান দূর সম্পর্কের মামাতো ভাই সাজিব। পরে বাড়ির অদূরের একটি পরিত্যক্ত মুরগির খামারে নিয়ে সাজিব ও জুবায়েদসহ তাদের আরও তিন সহযোগী পালাক্রমে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে অসুস্থ অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়।

ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারটি প্রাথমিকভাবে মেয়ের দুরঅবস্থার কথা গোপন করার চেষ্টা করেন। পরে ধর্ষকদের নানা হুমকি-ধামকি আর মেয়েটির চিকিৎসা ঘটনার পর এলাকায় জানাজানি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ বিকালে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযান
চালিয়ে জড়িত একজনকে গ্রেফতার করেন। 

মূল আসামি গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চিরুনি অভিযান চালাচ্ছে বলে জানা গেছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের হয়নি। 

রায়পুরা থানার পরিদর্শক গোলাম মোস্তফা স্কুল ছাত্রী গণধর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মেয়েটির সঙ্গে সাজিব নামে ছেলেটির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে কি না তা পুলিশ তদন্ত করবে। এ ঘটনায় একজন ধর্ষককে আটক করা হয়েছে।
মামলার প্রস্তুতি চলছে। অন্য আসামিদের আটকের পুলিশের অভিযান চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন