স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর ভিডিও, গ্রেফতার ২
jugantor
স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর ভিডিও, গ্রেফতার ২

  নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি  

২১ আগস্ট ২০২১, ১৪:১১:১৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ধর্ষণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় এক স্কুলছাত্রীকে (১৭) তুলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোরে চন্দ্রগঞ্জ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- শরীফপুর ইউনিয়নের বাবুনগর গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে আব্দুর রহমান (২৮) ও একই এলাকার দুলালের ছেলে ইব্রাহিম (২২)।

এরআগে শুক্রবার রাতে ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকালে বাড়ির পাশে এক বান্ধবীর কাছ থেকে পরীক্ষার নোট নিতে যাচ্ছিলেন শরীফপুর ইউনিয়নের দশম শ্রেণির এক ছাত্রী।

পথে আব্দুর রহমান তাকে মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে নির্মাণাধীন একটি ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যায়।

পরে ওইস্থানে তাকে জোরপূর্বক হাত বেঁধে ধর্ষণ করে। এসময় রহমান মোবাইলে তার বন্ধু ইব্রাহিমকে ডেকে আনেন। পরে তারা দুজনে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। এসময় তারা ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে।

এভাবে দুজন বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পালাক্রমে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। মাগরিবের আজানের পর আব্দুর রহমান ভিকটিমের কানে থাকা স্বর্ণের দুল ও নাকফুল জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ঘর থেকে বের করে দেয়।

পরে ঘটনাটি ভিকটিম বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবাকে জানায়। শুক্রবার রাতে তার বাবা থানায় গিয়ে মামলা দায়ের করেন।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান সিকদার বলেন, রাতে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে আমরা বিশেষ অভিযান পরিচালনা শনিবার ভোরে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করি। দুপুরে তাদের বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এইদিকে ভিকটিমকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্কুলছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের পর ভিডিও, গ্রেফতার ২

 নোয়াখালী ও কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি 
২১ আগস্ট ২০২১, ০২:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ধর্ষণ
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় এক স্কুলছাত্রীকে (১৭)  তুলে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোরে চন্দ্রগঞ্জ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- শরীফপুর ইউনিয়নের বাবুনগর গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে আব্দুর রহমান (২৮) ও একই এলাকার দুলালের ছেলে ইব্রাহিম (২২)।

এরআগে শুক্রবার রাতে ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকালে বাড়ির পাশে এক বান্ধবীর কাছ থেকে পরীক্ষার নোট নিতে যাচ্ছিলেন শরীফপুর ইউনিয়নের দশম শ্রেণির এক ছাত্রী।

পথে আব্দুর রহমান তাকে মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে নির্মাণাধীন একটি ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যায়।

পরে ওইস্থানে তাকে জোরপূর্বক হাত বেঁধে ধর্ষণ করে। এসময় রহমান মোবাইলে তার বন্ধু ইব্রাহিমকে ডেকে আনেন। পরে তারা দুজনে পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। এসময় তারা ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে।

এভাবে দুজন বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পালাক্রমে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। মাগরিবের আজানের পর আব্দুর রহমান ভিকটিমের কানে থাকা স্বর্ণের দুল ও নাকফুল জোর করে ছিনিয়ে নিয়ে তাকে ঘর থেকে বের করে দেয়।

পরে ঘটনাটি ভিকটিম বাড়িতে গিয়ে তার মা-বাবাকে জানায়। শুক্রবার রাতে তার বাবা থানায় গিয়ে মামলা দায়ের করেন।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান সিকদার বলেন, রাতে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে আমরা বিশেষ অভিযান পরিচালনা শনিবার ভোরে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করি। দুপুরে তাদের বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এইদিকে ভিকটিমকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন