জীবিত বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা বন্ধ
jugantor
জীবিত বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা বন্ধ

  বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি  

২৪ আগস্ট ২০২১, ১৭:৩৪:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় চুরানব্বই বছরের এক বৃদ্ধা জীবিত থাকলেও তাকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভাতা বন্ধ হয়ে পড়ায় বিছানাগত অসুস্থ মায়ের ওষুধের টাকা জোগাড় করা নিয়ে শ্রমিকের কাজ করে সংসার চালানো আব্দুল খালেক এখন বিপাকে পড়েছেন। ভুক্তভোগী বৃদ্ধার নাম মোছা. জোবেদা বেগম।

তিনি উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চিথলিয়া গ্রামের মৃত ইসমাইলের মেয়ে এবং একই এলাকার মৃত খোকার স্ত্রী।

জোবেদা বেগমের ছেলে আব্দুল খালেক জানান, প্রায় ১২ বছর ধরে তার মা বয়স্ক ভাতা পাচ্ছিলেন। কিন্তু গত রমজান মাস থেকে বিকাশ অ্যাকাউন্টে বয়স্ক ভাতার টাকা দেওয়ার কথা জানানোর পর থেকে আর টাকা পাননি। পরপর দুই দফায় টাকা না পেয়ে বিষয়টি নিয়ে মায়ের পক্ষ থেকে তিনি অফিসে যোগাযোগ করলে জানতে পারেন নথি অনুযায়ী তার মা মৃত।

সে কারণে তার মায়ের বয়স্ক ভাতা বন্ধ হয়ে গেছে। ওই সময় অফিস থেকে তাকে মৃত্যু সনদ নিয়ে দুই মাসের বকেয়া উত্তোলন করার পরামর্শ দেওয়া হয় বলেও তিনি অভিযোগ করেন। বিষয়টি নিয়ে তিনি নিজে স্থানীয় মেম্বার-চেয়ারম্যানসহ সমাজসেবা অফিসে ধরনা দিয়েও কোনো লাভ হয়নি।

একদিকে দিনমুজুরের কাজ করে সংসার চালাতে তিনি হিমশিম খাচ্ছেন, অন্যদিকে ভাতার টাকা বন্ধ হয়ে পড়ায় তিনি নিয়মিত মায়ের ওষুধ কিনতে পারছেন না। জীবিত থাকার পরও কীভাবে তার মাকে মৃত দেখানো হলো এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না।

এ বিষয়ে অসুস্থ বৃদ্ধা জোবেদা বেগম বলেন, তাকে মৃত দেখিয়ে আর সরকারি টাকা দেওয়া হচ্ছে না। ওষুধ কিনতে না পেরে ধীরে ধীরে বিছানাগত হয়ে পড়েছেন।

এ বিষয়ে সমাজসেবা কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ভুক্তভোগীর ভাতা প্রাপ্তির যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জীবিত বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা বন্ধ

 বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি 
২৪ আগস্ট ২০২১, ০৫:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় চুরানব্বই বছরের এক বৃদ্ধা জীবিত থাকলেও তাকে মৃত দেখিয়ে বয়স্ক ভাতা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

ভাতা বন্ধ হয়ে পড়ায় বিছানাগত অসুস্থ মায়ের ওষুধের টাকা জোগাড় করা নিয়ে শ্রমিকের কাজ করে সংসার চালানো আব্দুল খালেক এখন বিপাকে পড়েছেন। ভুক্তভোগী বৃদ্ধার নাম মোছা. জোবেদা বেগম। 

তিনি উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চিথলিয়া গ্রামের মৃত ইসমাইলের মেয়ে এবং একই এলাকার মৃত খোকার স্ত্রী। 

জোবেদা বেগমের ছেলে আব্দুল খালেক জানান, প্রায় ১২ বছর ধরে তার মা বয়স্ক ভাতা পাচ্ছিলেন। কিন্তু গত রমজান মাস থেকে বিকাশ অ্যাকাউন্টে বয়স্ক ভাতার টাকা দেওয়ার কথা জানানোর পর থেকে আর টাকা পাননি। পরপর দুই দফায় টাকা না পেয়ে বিষয়টি নিয়ে মায়ের পক্ষ থেকে তিনি অফিসে যোগাযোগ করলে জানতে পারেন নথি অনুযায়ী তার মা মৃত। 

সে কারণে তার মায়ের বয়স্ক ভাতা বন্ধ হয়ে গেছে। ওই সময় অফিস থেকে তাকে মৃত্যু সনদ নিয়ে দুই মাসের বকেয়া উত্তোলন করার পরামর্শ দেওয়া হয় বলেও তিনি অভিযোগ করেন। বিষয়টি নিয়ে তিনি নিজে স্থানীয় মেম্বার-চেয়ারম্যানসহ সমাজসেবা অফিসে ধরনা দিয়েও কোনো লাভ হয়নি। 

একদিকে দিনমুজুরের কাজ করে সংসার চালাতে তিনি হিমশিম খাচ্ছেন, অন্যদিকে ভাতার টাকা বন্ধ হয়ে পড়ায় তিনি নিয়মিত মায়ের ওষুধ কিনতে পারছেন না। জীবিত থাকার পরও কীভাবে তার মাকে মৃত দেখানো হলো এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। 

এ বিষয়ে অসুস্থ বৃদ্ধা জোবেদা বেগম বলেন, তাকে মৃত দেখিয়ে আর সরকারি টাকা দেওয়া হচ্ছে না। ওষুধ কিনতে না পেরে ধীরে ধীরে বিছানাগত হয়ে পড়েছেন।

এ বিষয়ে সমাজসেবা কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ভুক্তভোগীর ভাতা প্রাপ্তির যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন