সংসার তুমি বড় স্বার্থপর: এমপি শিবলি সাদিক
jugantor
সংসার তুমি বড় স্বার্থপর: এমপি শিবলি সাদিক

  বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি  

২৭ আগস্ট ২০২১, ২২:১৮:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

নিজের জীবনের নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন দিনাজপুর-৬ আসনের এমপি শিবলী সাদিক। তার বাবার বিনাচিকিৎসায় মৃত্যু, আত্মীয়স্বজন বন্ধুবান্ধবদের অবহেলা তিনি তুলে ধরেছেন তার সেই স্ট্যাটাসে।

তার দেওয়া সেই স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হলো:

আমার বাবা হারিয়ে যাওয়ার গল্পটা একটু ভিন্ন। খুব সাধারণ জীবনযাপন করতেন আমার বাবা, তবে মানুষকে খুব ভালোবাসতেন। এতটাই ভালোবাসতেন জীবনের শেষ কয়েকটা দিন, আমি দেখেছি শরীর সঙ্গ দিচ্ছিল না, তারপরও অনেক কষ্ট করে মানুষের মাঝে থাকার চেষ্টা করেছেন।

খুব অবাক লাগে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের এলাকায় একটা প্রোগ্রামে এসেছিলেন, বাবার শরীর এতটাই খারাপ ছিল, উনি নিঃশ্বাস নিতে পারছিলেন না, অক্সিজেন লেভেলটা অনেকটা কমে গিয়েছিল তার, গাড়িতে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে সেই প্রোগ্রামের মঞ্চের পাশে গাড়িতে বসেছিল। আজ একটি কথা বারবার মনে হয়- বাবা যখন খুবই অসুস্থ, তখন তার চিকিৎসা করার মতো আমার কোনো অবস্থান ছিল না।

বাবা কিডনি রোগী ছিল, প্রতি সপ্তাহে ডায়ালাইসিস করতে হতো, এলাকার দু-একজন পরিচিত ডাক্তারের সাহায্যে সরকারি হাসপাতালে ফ্রিতে তার ডায়ালাইসিস করাতেন আমার ছোট মা, কারণ ডায়ালাইসিস করার মতো টাকা ছিল না তার কাছে। তখনো তার নামে কয়েকশ বিঘা জমি ছিল। চাইলেই কিছু জমি বিক্রি করে নিজের চিকিৎসা করাতে পারতেন।

তার জীবদ্দশায় অনেক মানুষকে অনেক কিছু দিয়েছেন, তিনি হয়তো দেখতে চেয়েছিলেন তাকে ভালোবেসে তার পরিবারের মানুষজন অথবা বন্ধুবান্ধব এ দুঃসময়ে এগিয়ে আসে কিনা, কেউ এগিয়ে আসেনি সেই সময়, মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে অতি নিকটাত্মীয়রা।
বয়সের ভারে নয়, সামান্য কটা টাকার জন্য বিনাচিকিৎসায়,অকালে মৃত্যুবরণ করলেন আমার বাবা। যে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড আমার বাবাকে এখনো জীবিত রেখেছে, হাজারো লক্ষ মানুষের হৃদয়ে সেই রাজনৈতিক অবস্থানটা।

এখন কোনো অসুস্থ মানুষ দেখলেই বাবার কথা খুব মনে পড়ে, আমি আমার বাবার জন্য কিছুই করতে পারিনি। একটা ইনসুলিন কত যে মূল্যবান, তা এখন আমি বুঝি। তোমাকে অনেক ভালোবাসি বাবা, তোমার শূন্যতা সারাক্ষণ অনুভব করি, তোমার জন্য কিছু করতে না পারার কষ্টটা বাকি জীবনে আমাকে বয়ে বেড়াতে হবে এটাই বাস্তবতা। সংসার, তুমি বড় স্বার্থপর।

সংসার তুমি বড় স্বার্থপর: এমপি শিবলি সাদিক

 বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি 
২৭ আগস্ট ২০২১, ১০:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নিজের জীবনের নানা অভিজ্ঞতা নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন দিনাজপুর-৬ আসনের এমপি শিবলী সাদিক। তার বাবার বিনাচিকিৎসায় মৃত্যু, আত্মীয়স্বজন বন্ধুবান্ধবদের অবহেলা তিনি তুলে ধরেছেন তার সেই স্ট্যাটাসে। 

তার দেওয়া সেই স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হলো:

আমার বাবা হারিয়ে যাওয়ার গল্পটা একটু ভিন্ন। খুব সাধারণ জীবনযাপন করতেন আমার বাবা, তবে মানুষকে খুব ভালোবাসতেন। এতটাই ভালোবাসতেন জীবনের শেষ কয়েকটা দিন, আমি দেখেছি শরীর সঙ্গ দিচ্ছিল না, তারপরও অনেক কষ্ট করে মানুষের মাঝে থাকার চেষ্টা করেছেন।

খুব অবাক লাগে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের এলাকায় একটা প্রোগ্রামে এসেছিলেন, বাবার শরীর এতটাই খারাপ ছিল, উনি নিঃশ্বাস নিতে পারছিলেন না, অক্সিজেন লেভেলটা অনেকটা কমে গিয়েছিল তার, গাড়িতে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে সেই প্রোগ্রামের মঞ্চের পাশে গাড়িতে বসেছিল। আজ একটি কথা বারবার মনে হয়- বাবা যখন খুবই অসুস্থ, তখন তার চিকিৎসা করার মতো আমার কোনো অবস্থান ছিল না।

বাবা কিডনি রোগী ছিল, প্রতি সপ্তাহে ডায়ালাইসিস করতে হতো, এলাকার দু-একজন পরিচিত ডাক্তারের সাহায্যে সরকারি হাসপাতালে ফ্রিতে তার ডায়ালাইসিস করাতেন আমার ছোট মা, কারণ ডায়ালাইসিস করার মতো টাকা ছিল না তার কাছে। তখনো তার নামে কয়েকশ বিঘা জমি ছিল। চাইলেই কিছু জমি বিক্রি করে নিজের চিকিৎসা করাতে পারতেন।

তার জীবদ্দশায় অনেক মানুষকে অনেক কিছু দিয়েছেন, তিনি হয়তো দেখতে চেয়েছিলেন তাকে ভালোবেসে তার পরিবারের মানুষজন অথবা বন্ধুবান্ধব এ দুঃসময়ে এগিয়ে আসে কিনা, কেউ এগিয়ে আসেনি সেই সময়, মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে অতি নিকটাত্মীয়রা।
বয়সের ভারে নয়, সামান্য কটা টাকার জন্য বিনাচিকিৎসায়,অকালে মৃত্যুবরণ করলেন আমার বাবা। যে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড আমার বাবাকে এখনো জীবিত রেখেছে, হাজারো লক্ষ মানুষের হৃদয়ে সেই রাজনৈতিক অবস্থানটা। 

এখন কোনো অসুস্থ মানুষ দেখলেই বাবার কথা খুব মনে পড়ে, আমি আমার বাবার জন্য কিছুই করতে পারিনি। একটা ইনসুলিন কত যে মূল্যবান, তা এখন আমি বুঝি। তোমাকে অনেক ভালোবাসি বাবা, তোমার শূন্যতা সারাক্ষণ অনুভব করি, তোমার জন্য কিছু করতে না পারার কষ্টটা বাকি জীবনে আমাকে বয়ে বেড়াতে হবে এটাই বাস্তবতা। সংসার, তুমি বড় স্বার্থপর।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন