সড়ক সংস্কারের ২ মাসেই পিচভেদ করে উঠে যায় পাথর

  শরীয়তপুর ০৬ মে ২০১৮, ১৩:৫৫ | অনলাইন সংস্করণ

শরীয়তপুর

শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা পৌরসভাসংলগ্ন গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়কের কাজ হওয়ার দুই মাস না যেতেই জুতা দিয়ে আঁচড় কাটতেই পিচভেদ করে উঠে যাচ্ছে পাথর। সড়কটির কাজে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পুনরায় এটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

ডামুড্যা পৌরসভার প্রকৌশলী মোবারক হোসেন ও সহকারী প্রকৌশলী রাজীব ভক্ত সড়কের কাজ নিম্নমানের হয়েছে বলে স্বীকার করেন।

তারা বলেন, নিম্নমানের কাজ হচ্ছিল দেখে তারা বাধা দিয়েছিলেন। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

‘তবে তাদের কাছে তথ্য না জানতে চেয়ে বরং মেয়রের কাছে গিয়ে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া ভালো হয় বলেন,’ এ দুই প্রকৌশলী।

ডামুড্যা পৌরসভার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে পৌরসভার বার্ষিক উন্নয়ন সহায়তা প্রকল্পের অধীনে পৌরসভার ঋষিপাড়া থেকে চৌরাস্তা মসজিদ পর্যন্ত সড়কটি ৫০০ মিটার দীর্ঘ ও সাড়ে চার মিটার প্রস্থ ২১ লাখ ১৭ হাজার টাকা ব্যয়ে পাকাকরণের কাজ পায় দুই ঠিকাদার।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দুটি হল ডামুড্যা উপজেলার ঠিকাদার মেসার্স লোকমান ট্রেডার্স (মোসলেম রাড়ি) ও মেসার্স সাকিন ট্রেডার্স (আবুল বাসার সুজন)।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে শুরু হয়ে সড়কটির কাজ শেষ হয় মার্চে। স্থানীয়দের অভিযোগ ঠিকাদাররা ওই সড়ক নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করেছেন। তাই ওই সড়কে জুতা দিয়ে আঁচড় কাটতেই পিচভেদ করে উঠে যায় পাথর।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই সড়কের ধুলাবালু পরিষ্কার না করেই পাথরে নামমাত্র বিটুমিন মিশ্রণ করে পাকাকরণের কাজ করেছিল ঠিকাদার। পাকাকরণের দুই মাস না যেতেই উঠে যাচ্ছে পাথরসহ বিটুমিন।

ওই সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করেন আবদুল জব্বার, আবু তাহের, তাহসিন হোসাইন; তারা অভিযোগ করেন আগের সড়কই ভালো ছিল। সেটিকে তুলে ফেলে নতুন করে পিচ করার কোনো দরকার ছিল না। কারণ এখন ধুলাবালুর ওপর কম করে বিটুমিন দিয়ে সড়ক পাকাকরণ করা হয়েছে। বৃষ্টি হলে সড়কটির পাথরসহ পিচ উঠে যাবে। তা হলে এ সড়ক না করাই ভালো ছিল। পুনরায় সড়কটির সংস্কারের দাবি তাদের।

সড়কটির ঠিকাদার আবুল বাসার সুজন মোবাইল ফোনে জানান, সড়কটিতে নিম্নমানের কাজ হয়নি। কেউ হয়তো বা ভুল তথ্য দিতে পারে। তবে দুয়েক জায়গায় পাথর পিচ উঠতে পারে, এটি স্বাভাবিক।

ডামুড্যা পৌরসভার মেয়র হুমায়ুন কবির বাচ্চু ছৈয়াল বলেন, পৌরসভার কোনো সড়কের কাজ খারাপ হয়নি। আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি, পৌরসভার সামনের ৫০০ মিটার সড়কের কাজও খুব ভালো হয়েছে। খবর ইউএনবি।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.