টিভি দেখে ভয়ঙ্কর ‘রাসেল ভাইপার’ ধরল কিশোর
jugantor
টিভি দেখে ভয়ঙ্কর ‘রাসেল ভাইপার’ ধরল কিশোর

  টঙ্গীবাড়ি (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৮ আগস্ট ২০২১, ১৫:০১:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

টিভি দেখে ভয়ঙ্কর ‘রাসেল ভাইপার’ ধরল কিশোর

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় একটি বিষধর রাসেল ভাইপার (চন্দ্রবোড়া) সাপের বাচ্চা উদ্ধার করেছে এক কিশোর।

শনিবার বেলা ১টার উপজেলা বন কর্মকর্তা হুমায়ন কবিরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা শেখ রাসেল ফখরুদ্দিন জানান, শুক্রবার বিকালে উপজেলার হাসাইল বাজার পদ্মা নদীর শাখা পয়েন্ট থেকে রাসেল ভাইপার সাপটি আটক করে স্থানীয় এক কিশোর আলভী। সে ওই গ্রামের রিপন শিকদারের ছেলে।

আলভির বাবা রিপন শিকদার বলেন, আমার ছেলে নিয়মিত টিভি চ্যানেল ন্যাশনাল জিওগ্রাফি ও ডিসকভারি দেখে। সে অভিজ্ঞতা থেকেই পদ্মা নদীতে আসা বিষধর সাপটিকে আটক করে। পরে প্লাস্টিকের একটি জারে সাপটি বন্দি করে রাখে। সাপটি লম্বায় আনুমানিক দেড় ফিটের মতো হবে।

এর আগেও এ অঞ্চল থেকে আরও একটি বড় রাসেল ভাইপার আটক হয়েছিল। পরে স্থানীয়রা পিটিয়ে সাপটি মেরে ফেলেন। কিছু দিন পর পর রাসেল ভাইপার আটকের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।

তিনি আরও জানান, উপজেলার বন কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা শনিবার দুপুরে এসে সাপটি নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে উপজেলা বন কর্মকর্তা হুমায়ন কবির খান জানান, খবর পেয়ে সাপটি উদ্ধার করা হয়েছে। এটি এখন জেলা বন বিভাগে নেওয়া হচ্ছে। তারা সাপটি পরীক্ষা করে দেখে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেবে।

টিভি দেখে ভয়ঙ্কর ‘রাসেল ভাইপার’ ধরল কিশোর

 টঙ্গীবাড়ি (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৮ আগস্ট ২০২১, ০৩:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
টিভি দেখে ভয়ঙ্কর ‘রাসেল ভাইপার’ ধরল কিশোর
ছবি: যুগান্তর

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় একটি বিষধর রাসেল ভাইপার (চন্দ্রবোড়া) সাপের বাচ্চা উদ্ধার করেছে এক কিশোর।

শনিবার বেলা ১টার উপজেলা বন কর্মকর্তা হুমায়ন কবিরের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা শেখ রাসেল ফখরুদ্দিন জানান, শুক্রবার বিকালে উপজেলার হাসাইল বাজার পদ্মা নদীর শাখা পয়েন্ট থেকে রাসেল ভাইপার সাপটি আটক করে স্থানীয় এক কিশোর আলভী। সে ওই গ্রামের রিপন শিকদারের ছেলে।

আলভির বাবা রিপন শিকদার বলেন, আমার ছেলে নিয়মিত টিভি চ্যানেল ন্যাশনাল জিওগ্রাফি ও ডিসকভারি দেখে। সে অভিজ্ঞতা থেকেই পদ্মা নদীতে আসা বিষধর সাপটিকে আটক করে। পরে প্লাস্টিকের একটি জারে সাপটি বন্দি করে রাখে। সাপটি লম্বায় আনুমানিক দেড় ফিটের মতো হবে।

এর আগেও এ অঞ্চল থেকে আরও একটি বড় রাসেল ভাইপার আটক হয়েছিল। পরে স্থানীয়রা পিটিয়ে সাপটি মেরে ফেলেন। কিছু দিন পর পর রাসেল ভাইপার আটকের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে।

তিনি আরও জানান, উপজেলার বন কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা শনিবার দুপুরে এসে সাপটি নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে উপজেলা বন কর্মকর্তা হুমায়ন কবির খান জানান, খবর পেয়ে সাপটি উদ্ধার করা হয়েছে। এটি এখন জেলা বন বিভাগে নেওয়া হচ্ছে। তারা সাপটি পরীক্ষা করে দেখে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত নেবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন