‘টিকা পাওয়া আমাদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে না’
jugantor
‘টিকা পাওয়া আমাদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে না’

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি  

২৯ আগস্ট ২০২১, ২২:০২:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মো. খুরশীদ আলম বলেন, টিকা সংগ্রহ ও পাওয়াটা আমাদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে না। এটা টিকা নিয়ে আন্তর্জাতিক যে রাজনীতি তার ওপর নির্ভর করে। টিকা পাওয়া সাপেক্ষে আমরা দ্রুততম সময়ে সবাইকে টিকার আওতায় আনবো। গণটিকা কার্যক্রমের দ্বিতীয় ডোজ আগামী ৭ সেপ্টেম্বর দেয়া হবে।

চিকিৎসক সংকট প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উত্তরাঞ্চলের সবগুলো জেলায় চিকিৎসক সংকট রয়েছে। অতি শিগগিরই আরও সাড়ে ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে এ সমস্যার সমাধান করা হবে। আমরা নতুন নিয়োগকৃত চিকিৎসকদের তাদের নিজ জেলায় পদায়নের চেষ্টা করবো। ৫০ বেডের যে সব হাসপাতালে অপারেশনের সুযোগ রয়েছে সেখানে এ্যানেস্থেশিয়া চিকিৎসক দেয়া হবে।

ডিজি তার এ সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় অভিযোগ আসে উত্তরাঞ্চলের চিকিৎসা সেবায় নজর দেয়া হয় না। এ জন্যই তার এ সফর।

কুড়িগ্রাম হাসপাতালের বিভিন্ন দুর্নীতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা নিব।

এর আগে তিনি কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন। তিনি স্বাস্থ্য সেবা সেবা গ্রহীতাদের নিশ্চিত করতে আরও আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান, কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শহিদুল্লাহ লিংকন, বিএমএ কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি ডা. নাসির উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ডা. লোকমান হাকিম, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. নজরুল ইসলাম, রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আসাদুজ্জামানসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

‘টিকা পাওয়া আমাদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে না’

 কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি 
২৯ আগস্ট ২০২১, ১০:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মো. খুরশীদ আলম বলেন, টিকা সংগ্রহ ও পাওয়াটা আমাদের ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে না। এটা টিকা নিয়ে আন্তর্জাতিক যে রাজনীতি তার ওপর নির্ভর করে। টিকা পাওয়া সাপেক্ষে আমরা দ্রুততম সময়ে সবাইকে টিকার আওতায় আনবো। গণটিকা কার্যক্রমের দ্বিতীয় ডোজ আগামী ৭ সেপ্টেম্বর দেয়া হবে।

চিকিৎসক সংকট প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উত্তরাঞ্চলের সবগুলো জেলায় চিকিৎসক সংকট রয়েছে। অতি শিগগিরই আরও সাড়ে ৪ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ দিয়ে এ সমস্যার সমাধান করা হবে। আমরা নতুন নিয়োগকৃত চিকিৎসকদের তাদের নিজ জেলায় পদায়নের চেষ্টা করবো। ৫০ বেডের যে সব হাসপাতালে অপারেশনের সুযোগ রয়েছে সেখানে এ্যানেস্থেশিয়া চিকিৎসক দেয়া হবে।

ডিজি তার এ সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিভিন্ন সময় অভিযোগ আসে উত্তরাঞ্চলের চিকিৎসা সেবায় নজর দেয়া হয় না। এ জন্যই তার এ সফর।

কুড়িগ্রাম হাসপাতালের বিভিন্ন দুর্নীতির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা নিব।

এর আগে তিনি কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন। তিনি স্বাস্থ্য সেবা সেবা গ্রহীতাদের নিশ্চিত করতে আরও আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. মো. হাবিবুর রহমান, কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শহিদুল্লাহ লিংকন, বিএমএ কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি ডা. নাসির উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ডা. লোকমান হাকিম, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. নজরুল ইসলাম, রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আসাদুজ্জামানসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন