করতোয়ায় ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ
jugantor
করতোয়ায় ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ

  দিনাজপুর ও বিরামপুর প্রতিনিধি  

০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০৮:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

নৌকাবাইচ

এপারে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা আর ওপারে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা। মাঝখানে খরস্রোতা করতোয়া নদী। টইটুম্বুর এই নদীর দুই কূলেই বুধবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা অবধি ছিল হাজার হাজার মানুষের উপচেপড়া ভিড়। করতোয়া নদীতে যুগ যুগ ধরে আসা ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ দেখতেই ভিড় করে এসব মানুষ।

করতোয়া নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচের আয়োজন করে স্থানীয় হাসানখোর স্পোর্টিং ক্লাব। যুগ যুগ ধরে চলে আসা ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ দেখতে প্রতি বছরই এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করে থাকে করতোয়া নদীর দুই ধারের দুই জেলার দুই উপজেলার মানুষ। আর এরই ধারাবাহিকতায় নৌকাবাইচ অনুষ্ঠানের খবর পেয়ে এবারও বুধবার দুপুর থেকেই নদীর দুই কূলে ভিড় করে হাজার হাজার মানুষ।

নদীর দুই ধারে বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসে স্থানীয় মেলাও। এতে কেনাকাটাও চলে নৌকাবাইচ দেখতে আসা মানুষের।

ঘোড়াঘাট পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর মুটুক সওদাগর ও সমাজসেবক সাব্বির হোসেন জানান, নৌকাবাইচ কেন্দ্র করে প্রতি বছর এই দিনটিতে উৎসবে মেতে ওঠে এই এলাকার মানুষ। করোনা সংক্রমণ কমে আসায় এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি।

ঘোড়াঘাট পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার মিলন বলেন, প্রতি বছর এই নৌকাবাইচ উপলক্ষ্যে পাশাপাশি দুই জেলার দুই উপজেলার মানুষের এক মিলনমেলা হয়। শুধু এই দুই উপজেলার মানুষ নন, নৌকাবাইচ কেন্দ্র করে দূরদূরান্ত থেকে আসা আত্মীয়স্বজনে ভরে যায় এ এলাকার প্রায় প্রত্যেকটি বাড়ি।

নৌকাবাইচে এবার বিজয়ী হয় গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা দল। সন্ধ্যায় ঘোড়াঘাট উপজেলার হাজীরঘাটে অনুষ্ঠিত হয় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান। বিজয়ী দলকে একটি বড় খাসি উপহার দেওয়া হয়। পাশাপাশি সম্মানস্বরূপ উপহার দেওয়া হয় অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি দলকেই।

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে যৌথভাবে প্রধান অতিথি ছিলেন, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ এবং দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার মিলন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পলাশবাড়ী উপজেলার ১নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু, ঘোড়াঘাট পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফেরদৌসি আরা বিলকিছ, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহেব আলী, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুটুক সওদাগর ও সমাজসেবক সাব্বির হোসেন প্রমুখ।

করতোয়ায় ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ

 দিনাজপুর ও বিরামপুর প্রতিনিধি 
০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নৌকাবাইচ
ফাইল ছবি

এপারে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা আর ওপারে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা। মাঝখানে খরস্রোতা করতোয়া নদী। টইটুম্বুর এই নদীর দুই কূলেই বুধবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা অবধি ছিল হাজার হাজার মানুষের উপচেপড়া ভিড়। করতোয়া নদীতে যুগ যুগ ধরে আসা ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ দেখতেই ভিড় করে এসব মানুষ।

করতোয়া নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচের আয়োজন করে স্থানীয় হাসানখোর স্পোর্টিং ক্লাব। যুগ যুগ ধরে চলে আসা ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ দেখতে প্রতি বছরই এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করে থাকে করতোয়া নদীর দুই ধারের দুই জেলার দুই উপজেলার মানুষ। আর এরই ধারাবাহিকতায় নৌকাবাইচ অনুষ্ঠানের খবর পেয়ে এবারও বুধবার দুপুর থেকেই নদীর দুই কূলে ভিড় করে হাজার হাজার মানুষ।

নদীর দুই ধারে বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসে স্থানীয় মেলাও। এতে কেনাকাটাও চলে নৌকাবাইচ দেখতে আসা মানুষের।

ঘোড়াঘাট পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর মুটুক সওদাগর ও সমাজসেবক সাব্বির হোসেন জানান, নৌকাবাইচ কেন্দ্র করে প্রতি বছর এই দিনটিতে উৎসবে মেতে ওঠে এই এলাকার মানুষ। করোনা সংক্রমণ কমে আসায় এবারও তার ব্যত্যয় ঘটেনি।

ঘোড়াঘাট পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার মিলন বলেন, প্রতি বছর এই নৌকাবাইচ উপলক্ষ্যে পাশাপাশি দুই জেলার দুই উপজেলার মানুষের এক মিলনমেলা হয়। শুধু এই দুই উপজেলার মানুষ নন, নৌকাবাইচ কেন্দ্র করে দূরদূরান্ত থেকে আসা আত্মীয়স্বজনে ভরে যায় এ এলাকার প্রায় প্রত্যেকটি বাড়ি।

নৌকাবাইচে এবার বিজয়ী হয় গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা দল। সন্ধ্যায় ঘোড়াঘাট উপজেলার হাজীরঘাটে অনুষ্ঠিত হয় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান। বিজয়ী দলকে একটি বড় খাসি উপহার দেওয়া হয়। পাশাপাশি সম্মানস্বরূপ উপহার দেওয়া হয় অংশগ্রহণকারী প্রত্যেকটি দলকেই।

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে যৌথভাবে প্রধান অতিথি ছিলেন, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম মোকছেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ এবং দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার মিলন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পলাশবাড়ী উপজেলার ১নং কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু, ঘোড়াঘাট পৌরসভার প্যানেল মেয়র ফেরদৌসি আরা বিলকিছ, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাহেব আলী, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুটুক সওদাগর ও সমাজসেবক সাব্বির হোসেন প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন