বদলির সংবাদে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে ভূমি কর্মকর্তাকে ঘেরাও
jugantor
বদলির সংবাদে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে ভূমি কর্মকর্তাকে ঘেরাও

  দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি   

০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:২২:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বদলির সংবাদে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে ঘেরাও করেন ভুক্তভোগীরা।

স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে এবং জমির দাখিলা খারিজসহ সরকারি জমি বরাদ্দ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিরীহ নারী-পুরুষদের কাছ থেকে ১০-২০ হাজার টাকা করে দুই শতাধিক মানুষের কাছ থেকে প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে স্থানীয় মানুষ জানান।

বুধবার বিকালে স্থানীয় লোকজন জানতে পারেন হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আলাল উদ্দিনকে অন্যত্র বদলি করা হয়েছে। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ বুধবার বিকাল ৫টা থেকে বৃহস্পতিবার বেলা ৪টা পর্যন্ত তার অফিস ঘেরাও করে আটকে রাখেন। ঘুষের টাকা ফেরত না দেওয়া পর্যন্ত তাকে আটকে রাখার ঘোষণা দেন।

বৃহস্পতিবার হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন অফিসে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ তাদের কাছ থেকে নেওয়া টাকা ফেরতের দাবিতে তাকে অফিস কক্ষে আটক রেখেছেন।

বিধবা ভিক্ষুক খোদেজা জানান, তিনি ভিক্ষা করে সংসার চালান। তার কাছ থেকে ঘর দেওয়ার কথা বলে ১৫ হাজার টাকা নিয়েছেন।

সবুজপুর গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে আরিফুল ভূমিহীনের আবেদন করেছেন। এজন্য তার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছেন।

একই ধরনের অভিযোগ সবার মুখে মুখে। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের বলেন, এলাকায় দুই থেকে আড়াই শতাধিক মানুষকে নামজারি, দাখিলা, খাসজমি বন্দোবস্ত এবং সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে অসহায় সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে টাকা আদায় করেছেন। তবে কি পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, অন্তত ২০-২৫ লাখ টাকা হবে।

এ বিষয়ে হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আলাল উদ্দিন জানান, আমি দুই দিন ধরে কিছু খেতে পারি না, আমার ব্রেইন ঠিক নেই। মাথা কাজ করছে না। আমি অসুস্থ। টাকা নিয়েছেন কিনা- জিজ্ঞাসা করলে মাথা নাড়িয়ে না দেখান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ যুগান্তরকে বলেন, স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বদলির সংবাদে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে ভূমি কর্মকর্তাকে ঘেরাও

 দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি  
০২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বদলির সংবাদে ঘুষের টাকা ফেরতের দাবিতে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে ঘেরাও করেন ভুক্তভোগীরা। 

স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে এবং জমির দাখিলা খারিজসহ সরকারি জমি বরাদ্দ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিরীহ নারী-পুরুষদের কাছ থেকে ১০-২০ হাজার টাকা করে দুই শতাধিক মানুষের কাছ থেকে প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন বলে স্থানীয় মানুষ জানান। 

বুধবার বিকালে স্থানীয় লোকজন জানতে পারেন হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আলাল উদ্দিনকে অন্যত্র বদলি করা হয়েছে। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ বুধবার বিকাল ৫টা থেকে বৃহস্পতিবার বেলা ৪টা পর্যন্ত তার অফিস ঘেরাও করে আটকে রাখেন। ঘুষের টাকা ফেরত না দেওয়া পর্যন্ত তাকে আটকে রাখার ঘোষণা দেন। 

বৃহস্পতিবার হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন অফিসে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, প্রায় ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ তাদের কাছ থেকে নেওয়া টাকা ফেরতের দাবিতে তাকে অফিস কক্ষে আটক রেখেছেন। 

বিধবা ভিক্ষুক খোদেজা জানান, তিনি ভিক্ষা করে সংসার চালান। তার কাছ থেকে ঘর দেওয়ার কথা বলে ১৫ হাজার টাকা নিয়েছেন। 

সবুজপুর গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে আরিফুল ভূমিহীনের আবেদন করেছেন। এজন্য তার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা নিয়েছেন। 

একই ধরনের অভিযোগ সবার মুখে মুখে। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের বলেন, এলাকায় দুই থেকে আড়াই শতাধিক মানুষকে নামজারি, দাখিলা, খাসজমি বন্দোবস্ত এবং সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে অসহায় সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে টাকা আদায় করেছেন। তবে কি পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, অন্তত ২০-২৫ লাখ টাকা হবে। 

এ বিষয়ে হাতীভাঙ্গা ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আলাল উদ্দিন জানান, আমি দুই দিন ধরে কিছু খেতে পারি না, আমার ব্রেইন ঠিক নেই। মাথা কাজ করছে না। আমি অসুস্থ। টাকা নিয়েছেন কিনা- জিজ্ঞাসা করলে মাথা নাড়িয়ে না দেখান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ যুগান্তরকে বলেন, স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন