ইবিতে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সশরীরে পরীক্ষা
jugantor
ইবিতে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সশরীরে পরীক্ষা

  ইবি প্রতিনিধি  

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১০:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সশরীরে পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রশাসন। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের হল ও পরিবহণ ফি মওকুফ করা হয়েছে।

শনিবার প্রাশাসনের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সভা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সভা সূত্রে জানা যায়, বিভাগগুলো চাইলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনার্স-মাস্টার্স ও অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা সশরীরে অথবা অনলাইনে নিতে পারবে। তবে এ সময় আবাসিক হলসমূহ বন্ধ থাকবে। তবে যদি শিক্ষার্থীরা আবাসন সুবিধা ছাড়া পরীক্ষা দিতে রাজি না হয় তাহলে বিভাগসমূহ তাদের পরীক্ষা গ্রহণ করতে পারবে না।

এদিকে ইবি ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রমৈত্রী, শাখা ছাত্রদল ও ছাত্রলীগসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের কয়েক দফা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০-২১ অর্থবছরের সব শিক্ষাবর্ষের আবাসিক ও পরিবহণ ফি মওকুফ করা হয়েছে। তবে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের পূর্ববর্তী সময়ে কোনো শিক্ষার্থী এসব ফি পরিশোধ করে থাকলে তা ফেরত দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি।

এ বিষয়ে ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে আমরা তাদের হল ও পরিবহণ ফি মওকুফ করেছি। করোনার কারণে যদি আরও বেশি সময় ক্যাম্পাস বন্ধ থাকে তাহলে আবারো বিষয়টি বিবেচনায় আনা হবে। এছাড়া বিভাগসমূহের সুবিধা অনুযায়ী অনলাইন পরীক্ষার পাশাপাশি সশরীরেও পরীক্ষা নিতে পারবে বলে জানান তিনি।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন, পরিবহণ প্রশাসক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

ইবিতে ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সশরীরে পরীক্ষা

 ইবি প্রতিনিধি 
০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সশরীরে পরীক্ষা গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) প্রশাসন। একই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের হল ও পরিবহণ ফি মওকুফ করা হয়েছে। 

শনিবার প্রাশাসনের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সভা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম সাংবাদিকদের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

সভা সূত্রে জানা যায়, বিভাগগুলো চাইলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনার্স-মাস্টার্স ও অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা সশরীরে অথবা অনলাইনে নিতে পারবে। তবে এ সময় আবাসিক হলসমূহ বন্ধ থাকবে। তবে যদি শিক্ষার্থীরা আবাসন সুবিধা ছাড়া পরীক্ষা দিতে রাজি না হয় তাহলে বিভাগসমূহ তাদের পরীক্ষা গ্রহণ করতে পারবে না।

এদিকে ইবি ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রমৈত্রী, শাখা ছাত্রদল ও ছাত্রলীগসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের কয়েক দফা দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০-২১ অর্থবছরের সব শিক্ষাবর্ষের আবাসিক ও পরিবহণ ফি মওকুফ করা হয়েছে। তবে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের পূর্ববর্তী সময়ে কোনো শিক্ষার্থী এসব ফি পরিশোধ করে থাকলে তা ফেরত দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি।

এ বিষয়ে ভিসি প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে আমরা তাদের হল ও পরিবহণ ফি মওকুফ করেছি। করোনার কারণে যদি আরও বেশি সময় ক্যাম্পাস বন্ধ থাকে তাহলে আবারো বিষয়টি বিবেচনায় আনা হবে। এছাড়া বিভাগসমূহের সুবিধা অনুযায়ী অনলাইন পরীক্ষার পাশাপাশি সশরীরেও পরীক্ষা নিতে পারবে বলে জানান তিনি।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন, পরিবহণ প্রশাসক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন