বাবাকে হত্যার অভিযোগ বোনের, দুই মাস পর লাশ উত্তোলন
jugantor
বাবাকে হত্যার অভিযোগ বোনের, দুই মাস পর লাশ উত্তোলন

  বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি  

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৪:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে দাফনের ২ মাস ৬ দিন পর কবর থেকে এক বৃদ্ধের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের নির্দেশে রোববার দুপুরে উপজেলার নূরপুর মালঞ্চি গ্রামের স্থানীয় কবরস্থান থেকে রুস্তম আলী মণ্ডল ওরফে রাকশেদ আলী (৮৫) নামের ওই বৃদ্ধের লাশ উত্তোলন করা হয়।

লাশ উত্তোলনের সময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খালিদ হাসান, বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফরিদুজ্জামান, বাগাতিপাড়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মজিবর রহমান, ওসি সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এজাহার, স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাকশেদ আলীর তৃতীয় মেয়ে চায়না বেগম গত ৯ আগস্ট তার বাবাকে বিষ খাইয়ে ও পরে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে মর্মে বড়ভাই মজনু আলী, ভাবি শিমু বেগম ও মজনুর শাশুড়ি জুলেখা বেগমের বিরুদ্ধে নাটোর জেলা জজকোর্টে মামলা করেন। ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করা হয়।

জানা গেছে, বৃদ্ধ রাকশেদ আলী চলতি বছরের ২৮ জুন তার বড়ছেলে মজনুর নামে জমি রেজিস্ট্রি করে দেন। পরে তিনি ওই রাত আনুমানিক পৌনে ৩টার দিকে মারা যান। পরে বেলা আড়াইটার দিকে জানাজা শেষে স্থানীয় একটি কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

মামলার বাদী রাকশেদ আলীর মেয়ে চায়না বেগম বলেন, বাবার কাছ থেকে জমি রেজিস্ট্রি করে নেওয়ার পর খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছে এবং পরে বালিশচাপা দিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমি এ হত্যার বিচার চাই।

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, আদালতের নির্দেশে লাশটি কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বাবাকে হত্যার অভিযোগ বোনের, দুই মাস পর লাশ উত্তোলন

 বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি 
০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে দাফনের ২ মাস ৬ দিন পর কবর থেকে এক বৃদ্ধের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের নির্দেশে রোববার দুপুরে উপজেলার নূরপুর মালঞ্চি গ্রামের স্থানীয় কবরস্থান থেকে রুস্তম আলী মণ্ডল ওরফে রাকশেদ আলী (৮৫) নামের ওই বৃদ্ধের লাশ উত্তোলন করা হয়।

লাশ উত্তোলনের সময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খালিদ হাসান, বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফরিদুজ্জামান, বাগাতিপাড়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মজিবর রহমান, ওসি সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এজাহার, স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাকশেদ আলীর তৃতীয় মেয়ে চায়না বেগম গত ৯ আগস্ট তার বাবাকে বিষ খাইয়ে ও পরে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে মর্মে বড়ভাই মজনু আলী, ভাবি শিমু বেগম ও মজনুর শাশুড়ি জুলেখা বেগমের বিরুদ্ধে নাটোর জেলা জজকোর্টে মামলা করেন। ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্তের জন্য আদালতের নির্দেশে লাশ উত্তোলন করা হয়।

জানা গেছে, বৃদ্ধ রাকশেদ আলী চলতি বছরের ২৮ জুন তার বড়ছেলে মজনুর নামে জমি রেজিস্ট্রি করে দেন। পরে তিনি ওই রাত আনুমানিক পৌনে ৩টার দিকে মারা যান। পরে বেলা আড়াইটার দিকে জানাজা শেষে স্থানীয় একটি কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

মামলার বাদী রাকশেদ আলীর মেয়ে চায়না বেগম বলেন, বাবার কাছ থেকে জমি রেজিস্ট্রি করে নেওয়ার পর খাবারের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছে এবং পরে বালিশচাপা দিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমি এ হত্যার বিচার চাই।

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, আদালতের নির্দেশে লাশটি কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন