দুই সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ে
jugantor
দুই সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ে

  কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২৫:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

লঘুচাপ ও অমাবস্যার প্রভাবে কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। ফলে দীর্ঘদিন পর জেলেদের জালে ইলিশের দেখা মিলছিল, কিন্তু ৩ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত থাকায় দুই সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয় ফিরেছে আলীপুর-মহিপুর মৎস্য বন্দরে।

এদিকে সোমবার স্বাভাবিক জোয়ায়ের থেকে ৩-৪ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সৈকতের বিভিন্ন স্থাপনায় উত্তাল ঢেউ আছড়ে পড়ছে বলে স্থানীয়দের দাবি।

রোববার রাত থেকে সাগর উত্তাল থাকায় কুয়াকাটার মৎস্য বন্দর আলীপুর ও মহিপুরের খাপড়াভাঙ্গা নদীতে এসব মাছধরা ট্রলার জড়ো হয়।

গত এক সপ্তাহ ধরে স্থানীয় ছোট ট্রলারের জেলেদের জালে তেমন ইলিশের দেখা মিলছিল না। বড় ট্রলারের জালে কিছু ইলিশ ধরা পড়ার মধ্যে বৈরী আবহাওয়া ‘মরার ওপর খাড়ার ঘা’ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে চিন্তিত জেলেরা জানিয়েছেন।

সাগর থেকে ফিরে আসা জেলেরা যুগান্তরকে জানায়, অস্বাভাবিক ঢেউয়ের তোড়ে টিকতে না পারায় সম্পদ ও জীবন রক্ষার জন্য মাছ শিকার বন্ধ রেখে তীরে ফিরতে বাধ্য হয়েছেন তারা। ইতোমধ্যে উপকূলের কয়েক হাজার মাছধরা ট্রলার আন্ধারমানিক, রাবনাবাদ, সোনাতলা নদীসহ বিভিন্ন নদ-নদীতেও আশ্রয় নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, লঘুচাপের প্রভাবে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

দুই সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ে

 কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লঘুচাপ ও অমাবস্যার প্রভাবে কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। ফলে দীর্ঘদিন পর জেলেদের জালে ইলিশের দেখা মিলছিল, কিন্তু ৩ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত থাকায় দুই সহস্রাধিক মাছধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয় ফিরেছে আলীপুর-মহিপুর মৎস্য বন্দরে।

এদিকে সোমবার স্বাভাবিক জোয়ায়ের থেকে ৩-৪ ফুট পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সৈকতের বিভিন্ন স্থাপনায় উত্তাল ঢেউ আছড়ে পড়ছে বলে স্থানীয়দের দাবি।

রোববার রাত থেকে সাগর উত্তাল থাকায় কুয়াকাটার মৎস্য বন্দর আলীপুর ও মহিপুরের খাপড়াভাঙ্গা নদীতে এসব মাছধরা ট্রলার জড়ো হয়।

গত এক সপ্তাহ ধরে স্থানীয় ছোট ট্রলারের জেলেদের জালে তেমন ইলিশের দেখা মিলছিল না। বড় ট্রলারের জালে কিছু ইলিশ ধরা পড়ার মধ্যে বৈরী আবহাওয়া ‘মরার ওপর খাড়ার ঘা’ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে চিন্তিত জেলেরা জানিয়েছেন।

সাগর থেকে ফিরে আসা জেলেরা যুগান্তরকে জানায়, অস্বাভাবিক ঢেউয়ের তোড়ে টিকতে না পারায় সম্পদ ও জীবন রক্ষার জন্য মাছ শিকার বন্ধ রেখে তীরে ফিরতে বাধ্য হয়েছেন তারা। ইতোমধ্যে উপকূলের কয়েক হাজার মাছধরা ট্রলার আন্ধারমানিক, রাবনাবাদ, সোনাতলা নদীসহ বিভিন্ন নদ-নদীতেও আশ্রয় নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, লঘুচাপের প্রভাবে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন