অর্থ আত্মসাৎ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর
jugantor
অর্থ আত্মসাৎ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীতে প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাৎ মামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। একই সঙ্গে রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে নরসিংদী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ফৌওজিয়া হারসা এ আদেশ প্রদান করেন। অভিযুক্ত এসএম সানিয়েল আরেফিন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য।

আদালত সূত্রে জানা যায়, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এসএম সানিয়েল আরেফিন নরসিংদী সাহেপ্রতাব এলাকায় অবস্থিত ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। উক্ত প্রতিষ্ঠানটির নামে জনতা ব্যাংকের কাছ থেকে প্রায় ১১ কোটি ৪ লাখ টাকা ঋণ গ্রহণ করেন।

কিন্তু ঋণ নিয়েও ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। পরবর্তীতে ব্যাংক সুদ ও ঋণের দায়ে প্রতিষ্ঠানটি দেউলিয়া হয়ে যায়। এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিকে স্বচ্ছল করতে ২০২০ সালের ৪ আগস্ট সুইডেন বাংলা ট্রেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের নিকট ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ৩০ শতাংশ শেয়ার প্রায় আড়াই কোটি টাকায় বিক্রি করেন উক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিকরা।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে রেজিস্ট্রি চুক্তি সম্পাদন করেন দুই পক্ষ। কিন্তু তিন মাস পার হতে না হতেই ম্যানচেস্টার কম্পোজিট ট্রেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের পরিচালকরা চুক্তি ভঙ্গ করে পুরো মিলটি অন্যত্র বিক্রি করে দেন। একই সঙ্গে সুইডেন বাংলা টেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের কাছ থেকে নেওয়া আড়াই কোটি টাকা ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং পাওনা টাকা চাইলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করেন।

এরই পরিপ্রেক্ষিতি চলতি বছেরের ২০ আগস্ট সুইডেন বাংলা টেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বাদী হয়ে ম্যানচেস্টার কম্পোজিট ট্রেক্সটাইল মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনসহ ৭ জন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। আদালতের বিচারক উভয়পক্ষের কৌঁসুলিদের যুক্তিতর্ক শুনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেন। একই সঙ্গে মামলায় অভিযুক্ত ৬ জনের জামিন মঞ্জুর করেন।

মঙ্গলবার অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার আইনজীবী পুনরায় জামিন আবেদন করেন। একই সঙ্গে আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা। পরে উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনে আদালতের বিচারক অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ প্রদান করা হয়।

শুনানীতে বাদীপক্ষের হয়ে অংশ নেন অ্যাডভোকেট একেএম মনির হোসেন। বিবাদী পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন।

অর্থ আত্মসাৎ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীতে প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাৎ মামলায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। একই সঙ্গে রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ প্রদান করা হয়। 

মঙ্গলবার দুপুরে নরসিংদী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক ফৌওজিয়া হারসা এ আদেশ প্রদান করেন। অভিযুক্ত এসএম সানিয়েল আরেফিন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য। 

আদালত  সূত্রে জানা যায়, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা এসএম সানিয়েল আরেফিন নরসিংদী সাহেপ্রতাব এলাকায় অবস্থিত ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। উক্ত প্রতিষ্ঠানটির নামে জনতা ব্যাংকের কাছ থেকে প্রায় ১১ কোটি ৪ লাখ টাকা ঋণ গ্রহণ করেন। 

কিন্তু ঋণ নিয়েও ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। পরবর্তীতে ব্যাংক সুদ ও ঋণের দায়ে প্রতিষ্ঠানটি দেউলিয়া হয়ে যায়। এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিকে স্বচ্ছল করতে ২০২০ সালের ৪ আগস্ট  সুইডেন বাংলা ট্রেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের নিকট ম্যানচেস্টার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের ৩০ শতাংশ শেয়ার  প্রায় আড়াই কোটি টাকায় বিক্রি করেন উক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিকরা। 

এরই পরিপ্রেক্ষিতে রেজিস্ট্রি চুক্তি সম্পাদন করেন দুই পক্ষ। কিন্তু তিন মাস পার হতে না হতেই ম্যানচেস্টার কম্পোজিট ট্রেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের পরিচালকরা চুক্তি ভঙ্গ করে পুরো মিলটি অন্যত্র বিক্রি করে দেন। একই সঙ্গে সুইডেন বাংলা টেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের কাছ থেকে নেওয়া আড়াই কোটি টাকা ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানায় এবং পাওনা টাকা চাইলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করেন। 

এরই পরিপ্রেক্ষিতি চলতি বছেরের ২০ আগস্ট  সুইডেন বাংলা টেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান বাদী হয়ে ম্যানচেস্টার কম্পোজিট ট্রেক্সটাইল মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। 

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনসহ ৭ জন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। আদালতের বিচারক উভয়পক্ষের কৌঁসুলিদের যুক্তিতর্ক শুনে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সানিয়েল আরেফিনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেন। একই সঙ্গে মামলায় অভিযুক্ত ৬ জনের জামিন মঞ্জুর করেন। 

মঙ্গলবার অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার আইনজীবী পুনরায় জামিন আবেদন করেন। একই সঙ্গে আদালতে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা। পরে উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শুনে আদালতের বিচারক অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ প্রদান করা হয়। 

শুনানীতে বাদীপক্ষের হয়ে অংশ নেন অ্যাডভোকেট একেএম মনির হোসেন। বিবাদী পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন