স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার পর ঘরে মিলল গৃহবধূর নিথর দেহ, স্বজনদের দাবি হত্যা
jugantor
স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার পর ঘরে মিলল গৃহবধূর নিথর দেহ, স্বজনদের দাবি হত্যা

  রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩৫:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

শাহানা আক্তার

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় শাহানা আক্তার নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার ভোরে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সোমবাইজ্যা হাট এলাকা থেকে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শাহানা আক্তার একই এলাকার বেদারুল আলমের স্ত্রী।

এদিকে নিহত গৃহবধূ বড়বোন রোকসানা আক্তারের দাবি, বোনকে তার স্বামী হত্যা করে লাশ রশিতে ঝুলিয়ে রেখেছে।

রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি মো. মাহবুব মিলকী বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে পদক্ষেপ নেয়া হবে। প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যা ধারণা করা হচ্ছে। থানায় অপমৃত্যু মামলা হবে।

পদুয়া ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার মো. শাহজাহান বলেন, উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার বেদারুল আলমের সঙ্গে একই গ্রামের শাহানা আক্তারের ২০১২ সালে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে শাহানা আক্তার তার শয়নকক্ষে গিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। তার স্বামী বারান্দায় ছিলেন।

দীর্ঘক্ষণ দরজা না খোলায় সন্দেহ হলে পরিবারের লোকজন প্রতিবেশীদের ডেকে ঘরের দরজা ভেঙে দেখেন ঘরের বিমের সঙ্গে রশিতে ঝুলানো শাহানার নিথর দেহ। পরে দেখেন ওই গৃহবধূ মারা গেছেন। তাৎক্ষণিক পুলিশকে খবর দিলে তারা লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

স্বামীর সঙ্গে ঝগড়ার পর ঘরে মিলল গৃহবধূর নিথর দেহ, স্বজনদের দাবি হত্যা

 রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শাহানা আক্তার
শাহানা আক্তার। ছবি: যুগান্তর

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় শাহানা আক্তার নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার ভোরে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সোমবাইজ্যা হাট এলাকা থেকে ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শাহানা আক্তার একই এলাকার বেদারুল আলমের স্ত্রী।

এদিকে নিহত গৃহবধূ বড়বোন রোকসানা আক্তারের দাবি, বোনকে তার স্বামী হত্যা করে লাশ রশিতে ঝুলিয়ে রেখেছে।

রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি মো. মাহবুব মিলকী বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে পদক্ষেপ নেয়া হবে। প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যা ধারণা করা হচ্ছে। থানায় অপমৃত্যু মামলা হবে।

পদুয়া ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বার মো. শাহজাহান বলেন, উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার বেদারুল আলমের সঙ্গে একই গ্রামের শাহানা আক্তারের ২০১২ সালে বিয়ে হয়।  বিয়ের পর থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকত। তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে শাহানা আক্তার তার শয়নকক্ষে গিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। তার স্বামী বারান্দায় ছিলেন।

দীর্ঘক্ষণ দরজা না খোলায় সন্দেহ হলে পরিবারের লোকজন প্রতিবেশীদের ডেকে ঘরের দরজা ভেঙে দেখেন ঘরের বিমের সঙ্গে রশিতে ঝুলানো শাহানার নিথর দেহ। পরে দেখেন ওই গৃহবধূ মারা গেছেন। তাৎক্ষণিক পুলিশকে খবর দিলে তারা লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন