মা হারা ছাগল ছানার প্রতি গাভীর ভালোবাসা
jugantor
মা হারা ছাগল ছানার প্রতি গাভীর ভালোবাসা

  মাহবুব রহমান, রংপুর ব্যুরো  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:২৪:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় ৯ মাস ধরে মা হারা এক ছাগলের ছানাকে নিজের দুধ খাওয়াচ্ছে একটি গাভী। ঘটনাটি রীতিমতো মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়েছে। ছাগলের প্রতি গাভীর বিরল এ ভালোবাসার দৃশ্যটি এক নজর দেখার জন্য ওই বাড়িতে ভিড় করছেন মানুষ।

ঘটনাটি গঙ্গাচড়া উপজেলার গঙ্গাচড়া সদর ইউনিয়নের মেডিকেলপাড়ায় ঘটেছে। সেখানকার প্রয়াত ইমদাদুল হক মিলনের বাড়িতে মায়ার বাঁধনে থাকা ছাগল ও গাভীর দেখা মিলছে।

জানা গেছে, ছাগলটির মা বাচ্চা প্রসবের পরই মারা যায়। এরপর থেকে মা হারানো ছাগল ছানাকে বাঁচাতে গাভীর দুধ খাওয়ানো শুরু করেন মেহেরুন নেছা চায়না। দুধ খেতে দেওয়া ওই গাভীরও বাছুর রয়েছে। মেহেরুন অবুঝ এ প্রাণী দুটিকে আদর করে নামও দিয়েছেন। ছাগলের বাচ্চার নাম রবি আর গাভীর বাচ্চার নাম বাহাদুর। ওই নামে ডাক দিলেই ছুটে আসে ছাগল ও গাভীর বাচ্চা।

প্রয়াত মিলনের স্ত্রী মেহেরুন নেছা চায়না জানান, এখন আর ধরে নিয়ে গিয়ে ছাগলের বাচ্চাকে গাভীর দুধ খাওয়াতে হয় না। ছাগলের বাচ্চাকে নিজের সন্তানের মতো করেই দুধ খেতে দেয় গাভী। শুরুতে বিরক্তবোধ থাকলেও এখন তা আর নেই।

তিনি আরও জানান, ছাগলের বাচ্চাটির বয়স ৯ মাস হতে চলেছে। আর গাভীর বাচ্চাটির বসয় ১০ মাসের কাছাকাছি। এখন ছাগলের বাচ্চাটা ক্ষুধা পেলেই গাভীর কাছে দুধ খেতে ছুটে যায়। কোনো বাধা ছাড়াই গাভীও দুধ খেতে দেয়। গাভীর দুধ খেয়ে ছাগলের বাচ্চাটি বড় হচ্ছে।

গঙ্গাচড়ার স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল বারী স্বপন বলেন, গরু-ছাগল আলাদা জাত হলেও এই বাচ্চা দুটির মধ্যে বেশ ভাবও রয়েছে। যেন একই মায়ের দুই সন্তান। গাভীর দুধ পান করে ছাগলের বাচ্চা বড় হওয়ার দৃশ্য খুব কমই চোখে পড়ে। এটা ছাগলের প্রতি গাভীর বিরল মায়া।

মা হারা ছাগল ছানার প্রতি গাভীর ভালোবাসা

 মাহবুব রহমান, রংপুর ব্যুরো 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় ৯ মাস ধরে মা হারা এক ছাগলের ছানাকে নিজের দুধ খাওয়াচ্ছে একটি গাভী। ঘটনাটি রীতিমতো মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়েছে। ছাগলের প্রতি গাভীর বিরল এ ভালোবাসার দৃশ্যটি এক নজর দেখার জন্য ওই বাড়িতে ভিড় করছেন মানুষ।

ঘটনাটি গঙ্গাচড়া উপজেলার গঙ্গাচড়া সদর ইউনিয়নের মেডিকেলপাড়ায় ঘটেছে। সেখানকার প্রয়াত ইমদাদুল হক মিলনের বাড়িতে মায়ার বাঁধনে থাকা ছাগল ও গাভীর দেখা মিলছে। 

জানা গেছে, ছাগলটির মা বাচ্চা প্রসবের পরই মারা যায়। এরপর থেকে মা হারানো ছাগল ছানাকে বাঁচাতে গাভীর দুধ খাওয়ানো শুরু করেন মেহেরুন নেছা চায়না। দুধ খেতে দেওয়া ওই গাভীরও বাছুর রয়েছে। মেহেরুন অবুঝ এ প্রাণী দুটিকে আদর করে নামও দিয়েছেন। ছাগলের বাচ্চার নাম রবি আর গাভীর বাচ্চার নাম বাহাদুর। ওই নামে ডাক দিলেই ছুটে আসে ছাগল ও গাভীর বাচ্চা।  

প্রয়াত মিলনের স্ত্রী মেহেরুন নেছা চায়না জানান, এখন আর ধরে নিয়ে গিয়ে ছাগলের বাচ্চাকে গাভীর দুধ খাওয়াতে হয় না। ছাগলের বাচ্চাকে নিজের সন্তানের মতো করেই দুধ খেতে দেয় গাভী। শুরুতে বিরক্তবোধ থাকলেও এখন তা আর নেই।

তিনি আরও জানান, ছাগলের বাচ্চাটির বয়স ৯ মাস হতে চলেছে। আর গাভীর বাচ্চাটির বসয় ১০ মাসের কাছাকাছি। এখন ছাগলের বাচ্চাটা ক্ষুধা পেলেই গাভীর কাছে দুধ খেতে ছুটে যায়। কোনো বাধা ছাড়াই গাভীও দুধ খেতে দেয়। গাভীর দুধ খেয়ে ছাগলের বাচ্চাটি বড় হচ্ছে।

গঙ্গাচড়ার স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল বারী স্বপন বলেন, গরু-ছাগল আলাদা জাত হলেও এই বাচ্চা দুটির মধ্যে বেশ ভাবও রয়েছে। যেন একই মায়ের দুই সন্তান। গাভীর দুধ পান করে ছাগলের বাচ্চা বড় হওয়ার দৃশ্য খুব কমই চোখে পড়ে। এটা ছাগলের প্রতি গাভীর বিরল মায়া।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন