বড়াইগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের পদত্যাগ
jugantor
বড়াইগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

  বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি  

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৫২:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বড়াইগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক সুরাইয়া আক্তার কলি পদত্যাগ করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলমের হাতে পদত্যাগপত্র জমা দেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বনপাড়া পৌর মেয়র কেএম জাকির হোসেন।

সুরাইয়া আক্তার কলি জানান, গত ২০১৯ সালের ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর একই বছরের ১৭ এপ্রিল আনুষ্ঠানিক শপথ নেন। তিনি নির্বাচনের আগে থেকেই বনপাড়া শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মহিলা অনার্স কলেজের প্রভাষক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

সম্প্রতি তার কর্মরত কলেজটিকে প্রধানমন্ত্রী সরকারীকরণ করেছেন। তাই একজন সরকারি কলেজের শিক্ষক হওয়ার নিয়মানুযায়ী একই সঙ্গে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ নেই। এ কারণে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম পদত্যাগপত্র পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পদত্যাগপত্রটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগে পাঠানো হবে। সেখানে পদত্যাগপত্রটি গৃহীত হলে পদটি শূন্য ঘোষণা করা হবে।

প্রসঙ্গত ইতিপূর্বে তার পিতা মরহুম এশারত আলী বড়াইগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মা মমতাজ এশারত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।

বড়াইগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

 বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি 
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বড়াইগ্রাম উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের পদত্যাগ
ছবি: যুগান্তর

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক সুরাইয়া আক্তার কলি পদত্যাগ করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলমের হাতে পদত্যাগপত্র জমা দেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বনপাড়া পৌর মেয়র কেএম জাকির হোসেন।

সুরাইয়া আক্তার কলি জানান, গত ২০১৯ সালের ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর একই বছরের ১৭ এপ্রিল আনুষ্ঠানিক শপথ নেন। তিনি নির্বাচনের আগে থেকেই বনপাড়া শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব মহিলা অনার্স কলেজের প্রভাষক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

সম্প্রতি তার কর্মরত কলেজটিকে প্রধানমন্ত্রী সরকারীকরণ করেছেন। তাই একজন সরকারি কলেজের শিক্ষক হওয়ার নিয়মানুযায়ী একই সঙ্গে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ নেই। এ কারণে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম পদত্যাগপত্র পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পদত্যাগপত্রটি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।  সেখান থেকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগে পাঠানো হবে। সেখানে পদত্যাগপত্রটি গৃহীত হলে পদটি শূন্য ঘোষণা করা হবে।

প্রসঙ্গত ইতিপূর্বে তার পিতা মরহুম এশারত আলী বড়াইগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মা মমতাজ এশারত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন