বিয়ের আশ্বাসে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা, গর্ভপাতের অভিযোগ
jugantor
বিয়ের আশ্বাসে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা, গর্ভপাতের অভিযোগ

  সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:২২:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বাড়ির মালিকের বিয়ের আশ্বাসে অবৈধ সম্পর্কে ভাড়াটিয়া এক নারী (৩৬) অন্তঃসত্ত্বা হয়ে ৫ মাস পর গর্ভপাতের অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নের নীলটেক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত বাড়ির মালিক নীল চান (৪০) ওই এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে।

ভিকটিম জনৈক নারী জানান, ৩ বছর আগে আমার স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর ১ ছেলে ও ১ মেয়ে নিয়ে নীল চানের বাড়িতে ঘর ভাড়া নেন। প্রায় ২ বছর যাবত বসবাস করে আসছিলেন। এরই মধ্যে ভাড়াবাড়ির মালিক নীল চান বিভিন্ন সময় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আমার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের চেষ্টা করেন। ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে বিভিন্ন সময় জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

তিনি জানান, একপর্যায়ে আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ি। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে অভিযুক্ত নীল চানের বড়ভাই লাল চান ও তার পরিবারসহ স্থানীয়রা ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। পরিবারের চাপে ও বিয়ের আশ্বাস দিয়ে নীল চান আমাকে তার নিজ খরচে গত ৮ আগস্ট সাভারের প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে ৫ মাসের বাচ্চা নষ্ট করে দেয়। পরে আমাকে বিয়ে ও ভরণপোষণ না করায় থানায় অভিযোগ করি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নীল চানের বাড়ি গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। নীল চানের বড়ভাই লাল চান বলেন, আমি একই বাড়িতে থাকলেও ব্যবসার কাজে বাহিরে থাকায় এ ঘটনা আমি জানি না। তবে ঘটনা সত্য হলে শাস্তি হওয়া দরকার।

স্থানীয় প্রতিবেশী নুরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

এ ব্যাপারে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সুমন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিয়ের আশ্বাসে অবৈধ সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা, গর্ভপাতের অভিযোগ

 সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বাড়ির মালিকের বিয়ের আশ্বাসে অবৈধ সম্পর্কে ভাড়াটিয়া এক নারী (৩৬) অন্তঃসত্ত্বা হয়ে ৫ মাস পর গর্ভপাতের অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার জয়মন্টপ ইউনিয়নের নীলটেক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত বাড়ির মালিক নীল চান (৪০) ওই এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে।

ভিকটিম জনৈক নারী জানান, ৩ বছর আগে আমার স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর ১ ছেলে ও ১ মেয়ে নিয়ে নীল চানের বাড়িতে ঘর ভাড়া নেন। প্রায় ২ বছর যাবত বসবাস করে আসছিলেন। এরই মধ্যে ভাড়াবাড়ির মালিক নীল চান বিভিন্ন সময় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আমার সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের চেষ্টা করেন। ফাঁকা বাড়িতে একা পেয়ে বিভিন্ন সময় জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

তিনি জানান, একপর্যায়ে আমি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ি। বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে অভিযুক্ত নীল চানের বড়ভাই লাল চান ও তার পরিবারসহ স্থানীয়রা ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। পরিবারের চাপে ও বিয়ের আশ্বাস দিয়ে নীল চান আমাকে তার নিজ খরচে গত ৮ আগস্ট সাভারের প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে ৫ মাসের বাচ্চা নষ্ট করে দেয়। পরে আমাকে বিয়ে ও ভরণপোষণ না করায় থানায় অভিযোগ করি। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নীল চানের বাড়ি গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। নীল চানের বড়ভাই লাল চান বলেন, আমি একই বাড়িতে থাকলেও ব্যবসার কাজে বাহিরে থাকায় এ ঘটনা আমি জানি না। তবে ঘটনা সত্য হলে শাস্তি হওয়া দরকার।

স্থানীয় প্রতিবেশী নুরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

এ ব্যাপারে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই  সুমন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন