আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়া যুবকের পরিচয় শনাক্ত
jugantor
আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়া যুবকের পরিচয় শনাক্ত

  আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৪৩:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়া যুবকের পরিচয় শনাক্ত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনের পশ্চিম কলোনি রেলগেট এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত যুবকের পরিচয় মিলেছে।

ঘটনায় মারা যাওয়া আবু নাঈম (৩০) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশ ওই যুবকের ট্রেনে কাটা থেঁতলানো ছিন্ন ভিন্ন মরদেহ উদ্ধার করে।

আখাউড়া রেলওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তাৎক্ষণিকভাবে আবু নাঈমের পরিচয় না পাওয়া গেলেও তার প্যান্টের পকেটে থাকা ভাঙা মোবাইলের সিমকার্ড খুলে অন্য মোবাইলে লাগানো হয়। এর পর সেই নাম্বারে ফোন এলে সেই ফোনের সূত্রধরে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় তার পরিচয় পাওয়া যায়।

মরদেহ নিতে আসা আবু নাঈমের পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে আখাউড়া রেলওয়ে থানার ওসি মাজহারুল করিম যুগান্তরকে জানান, আবু নাঈম অবিবাহিত। সে দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকতেন। দেশে ফিরে আসার পরেই মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন তিনি।

সোমবার সকালে কসবায় নিজ বাড়ি থেকে সে বের হয়। মঙ্গলবার সকালে আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা থেঁতলানো ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ।

ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহটি পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রেলওয়ের আখাউড়া থানায় একটি ‘অপমৃত্যু’ মামলা করা হয়েছে বলেও জানান রেল পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়া যুবকের পরিচয় শনাক্ত

 আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা পড়া যুবকের পরিচয় শনাক্ত
ফাইল ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনের পশ্চিম কলোনি রেলগেট এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত যুবকের পরিচয় মিলেছে।

ঘটনায় মারা যাওয়া আবু নাঈম (৩০) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

মঙ্গলবার সকালে আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশ ওই যুবকের ট্রেনে কাটা থেঁতলানো ছিন্ন ভিন্ন মরদেহ উদ্ধার করে।

আখাউড়া রেলওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তাৎক্ষণিকভাবে আবু নাঈমের পরিচয় না পাওয়া গেলেও তার প্যান্টের পকেটে থাকা ভাঙা মোবাইলের সিমকার্ড খুলে অন্য মোবাইলে লাগানো হয়। এর পর সেই নাম্বারে ফোন এলে সেই ফোনের সূত্রধরে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় তার পরিচয় পাওয়া যায়।

মরদেহ নিতে আসা আবু নাঈমের পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে আখাউড়া রেলওয়ে থানার ওসি মাজহারুল করিম যুগান্তরকে জানান, আবু নাঈম অবিবাহিত। সে দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকতেন। দেশে ফিরে আসার পরেই মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন তিনি।

সোমবার সকালে কসবায় নিজ বাড়ি থেকে সে বের হয়। মঙ্গলবার সকালে আখাউড়ায় ট্রেনে কাটা থেঁতলানো ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ।

ময়নাতদন্ত শেষে তার মরদেহটি পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রেলওয়ের আখাউড়া থানায় একটি ‘অপমৃত্যু’ মামলা করা হয়েছে বলেও জানান রেল পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন