সুন্দরবনে পারমিটবিহীন চার ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলে আটক
jugantor
সুন্দরবনে পারমিটবিহীন চার ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলে আটক

  শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সুন্দরবনে পারমিটবিহীন চার ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলে আটক

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের মেহের আলীর চরের একটি খাল থেকে পারমিটবিহীন চারটি ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলেকে আটক কেরেছে বন বিভাগ। সোমবার সন্ধ্যায় গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বন বিভাগের বিশেষ বাহিনী ‘স্মার্ট’ দলের সদস্যরা তাদের আটক করে।

এসব জেলে বন বিভাগের চোখ এবং সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দুবলা ও মেহের আলীর চরসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে মৎস্য শিকার করে আসছিল।

এ ঘটনার বিষয়ে বন বিভাগ জানায়, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সাগরে টিকতে না পেরে ট্রলার নিয়ে মেহের আলী খালে আশ্রয় নেন এই অবৈধ জেলেরা। এ খবর টহলরত স্মার্ট দলের সদস্যরা জানতে পেরে ট্রলারের পাসপারমিট দেখতে চাইলে জেলেরা কিছুই দেখাতে পারেননি। পরে তাদের আটক করে ট্রলারসহ দুবলার টহল ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

দুবলার জেলেপল্লী টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রহ্লাদ চন্দ্র রায় জানান, জব্দকৃত ফিশিং ট্রলারগুলো হচ্ছে— এফবি মায়ের দোয়া, এফবি মামা-ভাগ্নে, এফবি তাহিরা-১ এবং এফবি ইউসুফ। ট্রলার চারটির মালিক পিরোজপুরের রাজা মিয়া ও মোশারেফ হোসেন নামে দুই মৎস্য ব্যবসায়ী। তবে এ ঘটনায় আটককৃত ৪৪ জেলের নাম-ঠিকানা জানাতে পারেননি তিনি।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) মো. শামসুল আরেফীন জানান, সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এসব জেলে দীর্ঘদিন ধরে সাগর ও সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকায় চুরি করে মাছ শিকার করে আসছিল। এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুন্দরবনে পারমিটবিহীন চার ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলে আটক

 শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সুন্দরবনে পারমিটবিহীন চার ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪ জেলে আটক
ছবি: যুগান্তর

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের মেহের আলীর চরের একটি খাল থেকে পারমিটবিহীন চারটি ফিশিং ট্রলারসহ ৪৪  জেলেকে আটক কেরেছে বন বিভাগ।  সোমবার সন্ধ্যায় গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বন বিভাগের বিশেষ বাহিনী ‘স্মার্ট’ দলের সদস্যরা তাদের আটক করে।

এসব জেলে বন বিভাগের চোখ এবং সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দুবলা ও মেহের আলীর চরসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে মৎস্য শিকার করে আসছিল।

এ ঘটনার বিষয়ে বন বিভাগ জানায়, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সাগরে টিকতে না পেরে ট্রলার নিয়ে মেহের আলী খালে আশ্রয় নেন এই অবৈধ জেলেরা। এ খবর টহলরত স্মার্ট দলের সদস্যরা জানতে পেরে ট্রলারের পাসপারমিট দেখতে চাইলে জেলেরা কিছুই দেখাতে পারেননি। পরে তাদের আটক করে ট্রলারসহ দুবলার টহল ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

দুবলার জেলেপল্লী টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রহ্লাদ চন্দ্র রায় জানান, জব্দকৃত ফিশিং ট্রলারগুলো হচ্ছে— এফবি মায়ের দোয়া, এফবি মামা-ভাগ্নে, এফবি তাহিরা-১ এবং এফবি ইউসুফ। ট্রলার চারটির মালিক পিরোজপুরের রাজা মিয়া ও মোশারেফ হোসেন নামে দুই মৎস্য ব্যবসায়ী। তবে এ ঘটনায় আটককৃত ৪৪ জেলের নাম-ঠিকানা জানাতে পারেননি তিনি।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসিএফ) মো. শামসুল আরেফীন জানান, সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এসব জেলে দীর্ঘদিন ধরে সাগর ও সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকায় চুরি করে মাছ শিকার করে আসছিল। এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন