কলেজশিক্ষককে পিটিয়ে জেলে মেয়র, মাদক মামলায় গ্রেফতার ছেলে
jugantor
কলেজশিক্ষককে পিটিয়ে জেলে মেয়র, মাদক মামলায় গ্রেফতার ছেলে

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৫৭:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভার আলোচিত সেই মেয়র মুক্তার আলীর ছেলে রাজু আহম্মেদকে মাদক মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নিজ বাড়ি পিয়াদাপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গত ৬ জুলাই আড়ানী পৌরবাজারে মনোয়ার হোসেন মঞ্জু নামের এক কলেজশিক্ষককে মারধর করেন মেয়র মুক্তার। এ নিয়ে ওই রাতেই ভুক্তভোগী শিক্ষক মামলা করেন। পরে রাত ৩টার দিকে পুলিশ তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৯৪ লাখ টাকা, সই করা চেক, আগ্নেয়াস্ত্র এবং মাদক উদ্ধার করে। আটক করা হয় তার স্ত্রী এবং দুই ভাতিজাকে।

৯ জুলাই ভোরে পাবনার পাকশী এলাকা থেকে মুক্তার আলী ও তার শ্যালক রজন আলীকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর মেয়রের বাড়িতে অভিযান চালানো হলে আবারো এক লাখ ৩২ হাজার টাকা, মাদক ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ১২ জুলাই মেয়র মুক্তার আলীকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হয়। মুক্তার বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

এ বিষয়ে রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতে খায়ের আলম বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার একটি দল মাদক মামলার পলাতক আসামি রাজু আহম্মেদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বর্তমানে সে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

কলেজশিক্ষককে পিটিয়ে জেলে মেয়র, মাদক মামলায় গ্রেফতার ছেলে

 বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী পৌরসভার আলোচিত সেই মেয়র মুক্তার আলীর ছেলে রাজু আহম্মেদকে মাদক মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নিজ বাড়ি পিয়াদাপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গত ৬ জুলাই আড়ানী পৌরবাজারে মনোয়ার হোসেন মঞ্জু নামের এক কলেজশিক্ষককে মারধর করেন মেয়র মুক্তার। এ নিয়ে ওই রাতেই ভুক্তভোগী শিক্ষক মামলা করেন। পরে রাত ৩টার দিকে পুলিশ তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৯৪ লাখ টাকা, সই করা চেক, আগ্নেয়াস্ত্র এবং মাদক উদ্ধার করে। আটক করা হয় তার স্ত্রী এবং দুই ভাতিজাকে। 

৯ জুলাই ভোরে পাবনার পাকশী এলাকা থেকে মুক্তার আলী ও তার শ্যালক রজন আলীকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর মেয়রের বাড়িতে অভিযান চালানো হলে আবারো এক লাখ ৩২ হাজার টাকা, মাদক ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ১২ জুলাই মেয়র মুক্তার আলীকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হয়। মুক্তার বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

এ বিষয়ে রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতে খায়ের আলম বলেন, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার একটি দল মাদক মামলার পলাতক আসামি রাজু আহম্মেদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বর্তমানে সে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন