স্বামীর কাছ থেকে মায়ের পাওনা টাকা আদায়ে ব্যর্থ, গৃহবধূর আত্মহত্যা
jugantor
স্বামীর কাছ থেকে মায়ের পাওনা টাকা আদায়ে ব্যর্থ, গৃহবধূর আত্মহত্যা

  কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২১:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বামীর কাছ থেকে মায়ের পাওনা টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ফাঁসিতে ঝুলে নাজমা বেগম নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দিনগত রাতে উপজেলার টোক ইউনিয়নের উজুলি দীঘিরপাড় গুচ্ছগ্রামে নাজমার মায়ের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে।

নাজমা বেগম নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেলিগাতি গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে।

নাজমার মা সাজেদা বেগম জানান, তিনি প্রায় সাড়ে তিন বছর সৌদি আরবে গৃহকর্মীর কাজ করে গত মাসে দেশে এসেছেন। নাজমার কাছে পাঠানো প্রায় আড়াই লাখ টাকা তার স্বামী সাইফুল কৌশলে বাগিয়ে নিয়ে ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন। দেশে ফেরার পর সম্প্রতি সেই টাকা ফেরত চাইলে সাইফুলের সঙ্গে তার মেয়ের চরম বিরোধ শুরু হয়। এ নিয়ে সোমবার রাতে সাইফুলের সঙ্গে নাজমার মোবাইল ফোনে ঝগড়া হলে একপর্যায়ে সে গভীর রাতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

তিনি আরও জানান, স্থানীয় মাতবর ও পুলিশের লোকজন লাশ দাফনের পর সাইফুলের কাছ থেকে পাওনা টাকা উদ্ধারে সহায়তা করার আশ্বাস দিলে তিনি এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ করেননি।

উল্লেখ্য, প্রায় ছয় মাস আগে টোক ইউনিয়নের শহরটোক এলাকার ভাঙাড়ি ব্যবসায়ী সাইফুলের সঙ্গে নাজমার বিয়ে হয়। এ বিষয়ে জানতে সাইফুলের মোবাইল ফোনে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

কাপাসিয়া থানার ওসি আলম চাঁদ জানান, এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। সাইফুলের কাছে নাজমার মায়ের পাওনা টাকার বিষয়ে তিনি এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বামীর কাছ থেকে মায়ের পাওনা টাকা আদায়ে ব্যর্থ, গৃহবধূর আত্মহত্যা

 কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বামীর কাছ থেকে মায়ের পাওনা টাকা আদায়ে ব্যর্থ হয়ে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ফাঁসিতে ঝুলে নাজমা বেগম নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। 

সোমবার দিনগত রাতে উপজেলার টোক ইউনিয়নের উজুলি দীঘিরপাড় গুচ্ছগ্রামে নাজমার মায়ের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে। 

নাজমা বেগম নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেলিগাতি গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে। 

নাজমার মা সাজেদা বেগম জানান, তিনি প্রায় সাড়ে তিন বছর সৌদি আরবে গৃহকর্মীর কাজ করে গত মাসে দেশে এসেছেন। নাজমার কাছে পাঠানো প্রায় আড়াই লাখ টাকা তার স্বামী সাইফুল কৌশলে বাগিয়ে নিয়ে ব্যবসায় বিনিয়োগ করেন। দেশে ফেরার পর সম্প্রতি সেই টাকা ফেরত চাইলে সাইফুলের সঙ্গে তার মেয়ের চরম বিরোধ শুরু হয়। এ নিয়ে সোমবার রাতে সাইফুলের সঙ্গে নাজমার মোবাইল ফোনে ঝগড়া হলে একপর্যায়ে সে গভীর রাতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। 

তিনি আরও জানান, স্থানীয় মাতবর ও পুলিশের লোকজন লাশ দাফনের পর সাইফুলের কাছ থেকে পাওনা টাকা উদ্ধারে সহায়তা করার আশ্বাস দিলে তিনি এ বিষয়ে থানায় কোনো অভিযোগ করেননি। 

উল্লেখ্য, প্রায় ছয় মাস আগে টোক ইউনিয়নের শহরটোক এলাকার ভাঙাড়ি ব্যবসায়ী সাইফুলের সঙ্গে নাজমার বিয়ে হয়। এ বিষয়ে জানতে সাইফুলের মোবাইল ফোনে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

কাপাসিয়া থানার ওসি আলম চাঁদ জানান, এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। সাইফুলের কাছে নাজমার মায়ের পাওনা টাকার বিষয়ে তিনি এখনও কোনো লিখিত অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন