প্রবাসী মামার মেয়ের সঙ্গে প্রেম, রহস্যজনক মৃত্যু
jugantor
প্রবাসী মামার মেয়ের সঙ্গে প্রেম, রহস্যজনক মৃত্যু

  কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০৪:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে প্রবাসী মামার মেয়ের সঙ্গে প্রেম নিয়ে দ্বন্দ্বে ফয়সাল মোড়ল (২২) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের আজমতপুর গ্রামে। নিহত ওই যুবক একই গ্রামের মোসলেহ উদ্দিন মোড়লের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফয়সালের মা-বাবাসহ পরিবারের সবাই আজমতপুরে তার নানা হাফিজ উদ্দিন খানের বাড়িতে থাকেন। আর ফয়সাল থাকত গাজীপুরে তার প্রবাসী মামা জাকির হোসেন খানের বাসায়। তারা মামা পরিবার নিয়ে আয়ারল্যান্ডে থাকেন।

আয়ারল্যান্ড প্রবাসী মামাতো বোন অরন্যাকে বিয়ে করা নিয়ে তাদের উভয় পরিবারের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছিল। অরন্যা আক্তারকে ফয়সালের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় সে তার মামাসহ পরিবারের সবাইকে হুমকি দিত। এ নিয়ে তার পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলছিল ফয়সালের।

স্থানীয়দের ধারণা এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই যুবককে হত্যা করে হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার পাঁয়তারা করছে নিহতের পরিবারের লোকজন। লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি করে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে ওই যুবকের লাশ দাফন করা হয়েছে। বিষয়টি এলাকার সাধারণ মানুষ জনমনে ব্যাপক চাঞ্চল্যকর ও রহস্যজনক বলে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, অভিমান করে ফয়সাল গলায় রশি পেঁচিয়ে ঘরের আঁড়ার সঙ্গে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে গাজীপুর সদর থানা পুলিশ জানায়, নিহতের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রবাসী মামার মেয়ের সঙ্গে প্রেম, রহস্যজনক মৃত্যু

 কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের কালীগঞ্জে প্রবাসী মামার মেয়ের সঙ্গে প্রেম নিয়ে দ্বন্দ্বে ফয়সাল মোড়ল (২২) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার জাঙ্গালিয়া ইউনিয়নের আজমতপুর গ্রামে। নিহত ওই যুবক একই গ্রামের মোসলেহ উদ্দিন মোড়লের ছেলে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফয়সালের মা-বাবাসহ পরিবারের সবাই আজমতপুরে তার নানা হাফিজ উদ্দিন খানের বাড়িতে থাকেন। আর ফয়সাল থাকত গাজীপুরে তার প্রবাসী মামা জাকির হোসেন খানের বাসায়। তারা মামা পরিবার নিয়ে আয়ারল্যান্ডে থাকেন।

আয়ারল্যান্ড প্রবাসী মামাতো বোন অরন্যাকে বিয়ে করা নিয়ে তাদের উভয় পরিবারের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছিল। অরন্যা আক্তারকে ফয়সালের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় সে তার মামাসহ পরিবারের সবাইকে হুমকি দিত। এ নিয়ে তার পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলছিল ফয়সালের। 

স্থানীয়দের ধারণা এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই যুবককে হত্যা করে হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার পাঁয়তারা করছে নিহতের পরিবারের লোকজন। লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়াই তড়িঘড়ি করে মঙ্গলবার রাত ১২টার দিকে ওই যুবকের লাশ দাফন করা হয়েছে। বিষয়টি এলাকার সাধারণ মানুষ জনমনে ব্যাপক চাঞ্চল্যকর ও রহস্যজনক বলে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, অভিমান করে ফয়সাল গলায় রশি পেঁচিয়ে ঘরের আঁড়ার সঙ্গে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এ বিষয়ে গাজীপুর সদর থানা পুলিশ জানায়, নিহতের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি শেষে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন