ধোবাউড়ায় স্বাস্থ্যকেন্দ্র যেন ভুতুড়ে বাড়ি
jugantor
ধোবাউড়ায় স্বাস্থ্যকেন্দ্র যেন ভুতুড়ে বাড়ি

  আবুল হাশেম, ধোবাউড়া (ময়মনসিংহ)  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৩৪:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

চতুর্দিকে পানি আর ময়লা আবর্জনার স্তূপ। আশপাশে রয়েছে গাছপালা ও বাঁশঝাড়। গেট খোলা কিন্তু ভিতরে কোনো সাড়া-শব্দ নেই। দেখে মনে হচ্ছে পুরনো কোনো বাড়ি। ভিতরের পরিবেশটা আরও ভয়ানক। ঠিক যেন ভুতুড়ে বাড়ি।

ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার ঘোষগাঁও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির এ বেহাল অবস্থা। প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় ধরে নেই মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা।

স্থানীয় এক যুবক জানান, ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি এটা নাকি হাসপাতাল। তবে কোনদিন কোনো সেবা দিতে কাউকে দেখা যায়নি। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে একজন আয়া ছাড়া কাউকে দেখা যায় না। কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তিনি শুধু সামনের গেটটা খুলে রাখেন। বিনা চিকিৎসায়, বিনা ওষুধে ফিরে যান সাধারণ রোগীরা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সরকারিভাবে যে ওষুধগুলো বরাদ্দ রয়েছে তা বিক্রি করে দেওয়া হয়। এতে সেবাবঞ্চিত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ৫টি স্বাস্থ্যকেন্দ্র রয়েছে। জনবল সংকটসহ নানা সমস্যায় ভেঙ্গে পড়েছে সব কেন্দ্রের সেবা। এছাড়াও নানান অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মে বেহাল হয়ে পড়েছে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সেবা কার্যক্রম।

মাঠকর্মীদের সেবা কার্যক্রম কাগজে-কলমে থাকলেও মাঠ পর্যায়ে নেই মাঠকর্মীরা। জন্ম নিয়ন্ত্রণের সরঞ্জাম শুধু মাঠকর্মীরা গ্রহণ করেন। পরে তা কোথায় যায় কেউ জানে না। অজপাড়া এলাকা হিসেবে কোনো কোনো পরিবারে ৮-৯ জন সন্তান থাকলেও কোনো পদক্ষেপ বা সচেতন করার উদ্যোগ নেই পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠ কর্মীদের।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন, জনবল সংকটে ব্যাহত হচ্ছে এসব সেবা কার্যক্রম। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস সূত্রে জানা যায়, সাধারণ রোগী সেবা, গর্ভবতী সেবা, গর্ভোত্তর, মা ও শিশু, পরিবার পরিকল্পনা, প্রসূতি মায়েদের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদানসহ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে বিভিন্ন সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করার কথা রয়েছে। কিন্তু মাঠপর্যায়ে নেই এসব সেবা। ৭টি ইউনিয়নে পরিবার পরিকল্পনা মাঠকর্মী হিসেবে ৩২ পদে রয়েছে ১৮ জন। তাদের মাঝে অধিকাংশ মাঠে না যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সুলতান উদ্দিন আহমেদ বলেন, জনবল সংকটের কারণে প্রয়োজনীয় সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে যারা রয়েছেন তারা কাজ করছেন।

ধোবাউড়ায় স্বাস্থ্যকেন্দ্র যেন ভুতুড়ে বাড়ি

 আবুল হাশেম, ধোবাউড়া (ময়মনসিংহ) 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চতুর্দিকে পানি আর ময়লা আবর্জনার স্তূপ। আশপাশে রয়েছে গাছপালা ও বাঁশঝাড়। গেট খোলা কিন্তু ভিতরে কোনো সাড়া-শব্দ নেই। দেখে মনে হচ্ছে পুরনো কোনো বাড়ি। ভিতরের পরিবেশটা আরও ভয়ানক। ঠিক যেন ভুতুড়ে বাড়ি।

ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার ঘোষগাঁও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির এ বেহাল অবস্থা। প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় ধরে নেই মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা।

স্থানীয় এক যুবক জানান, ছোটবেলা থেকে শুনে আসছি এটা নাকি হাসপাতাল। তবে কোনদিন কোনো সেবা দিতে কাউকে দেখা যায়নি। ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে একজন আয়া ছাড়া কাউকে দেখা যায় না। কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তিনি শুধু সামনের গেটটা খুলে রাখেন। বিনা চিকিৎসায়, বিনা ওষুধে ফিরে যান সাধারণ রোগীরা।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সরকারিভাবে যে ওষুধগুলো বরাদ্দ রয়েছে তা বিক্রি করে দেওয়া হয়। এতে সেবাবঞ্চিত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ৫টি স্বাস্থ্যকেন্দ্র রয়েছে। জনবল সংকটসহ নানা সমস্যায় ভেঙ্গে পড়েছে সব কেন্দ্রের সেবা। এছাড়াও নানান অব্যবস্থাপনা ও অনিয়মে বেহাল হয়ে পড়েছে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সেবা কার্যক্রম।

মাঠকর্মীদের সেবা কার্যক্রম কাগজে-কলমে থাকলেও মাঠ পর্যায়ে নেই মাঠকর্মীরা। জন্ম নিয়ন্ত্রণের সরঞ্জাম শুধু মাঠকর্মীরা গ্রহণ করেন। পরে তা কোথায় যায় কেউ জানে না। অজপাড়া এলাকা হিসেবে কোনো কোনো পরিবারে ৮-৯ জন সন্তান থাকলেও কোনো পদক্ষেপ বা সচেতন করার উদ্যোগ নেই পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের মাঠ কর্মীদের।

তবে কর্তৃপক্ষ বলছেন, জনবল সংকটে ব্যাহত হচ্ছে এসব সেবা কার্যক্রম। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস সূত্রে জানা যায়, সাধারণ রোগী সেবা, গর্ভবতী সেবা, গর্ভোত্তর, মা ও শিশু, পরিবার পরিকল্পনা, প্রসূতি মায়েদের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদানসহ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে বিভিন্ন সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করার কথা রয়েছে। কিন্তু মাঠপর্যায়ে নেই এসব সেবা। ৭টি ইউনিয়নে পরিবার পরিকল্পনা মাঠকর্মী হিসেবে ৩২ পদে রয়েছে ১৮ জন। তাদের মাঝে অধিকাংশ মাঠে না যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সুলতান উদ্দিন আহমেদ বলেন, জনবল সংকটের কারণে প্রয়োজনীয় সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে যারা রয়েছেন তারা কাজ করছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন