ভোটারদের আগ্রহ নেই, কেন্দ্রে আনাই বড় চ্যালেঞ্জ
jugantor
ভোটারদের আগ্রহ নেই, কেন্দ্রে আনাই বড় চ্যালেঞ্জ

  সিলেট ব্যুরো ও ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০১:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। করোনার কারণে একাধিকবার ভোট গ্রহণের তারিখ পরিবর্তন হলেও থেমে নেই প্রার্থীরা। ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। কিন্তু প্রার্থীদের এমন তৎপরতায় ভোটারদের কোনো সাড়া নেই।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, এ উপনির্বাচনে ভোটারদের কোনো আগ্রহ নেই। নেই কোনো নির্বাচনী সভা ও গণসংযোগ। যে প্রার্থী বেশিসংখ্যক ভোটার কেন্দ্রে উপস্থিত করতে পারবেন, তিনিই এগিয়ে যাবেন ভোটের লড়াইয়ে। ফলে নির্বাচনের দিন ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত করাই হবে প্রার্থীদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

ফেঞ্চুগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী মনিলাল ভৌমিক বলেন, প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে কিছু আগ্রহ দেখা গেলেও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে এ নির্বাচন নিয়ে কোনো আগ্রহ নেই। রাস্তা-ঘাট, পাড়া-মহল্লায় প্রার্থীদের কোনো পোস্টার দেখা যাচ্ছে না।

স্থানীয় কয়েকজন জানান, গত ৪ সেপ্টেম্বর সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল সামান্য। আর এটি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন। তাই সাধারণ মানুষের এ নির্বাচনকে নিয়ে তেমন আগ্রহ নেই।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এহসানুল কবির ফেরদৌস জানান, প্রার্থীরা ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত প্রচারণা চালাতে পারবেন। নির্বাচনের জন্য সব প্রস্তুতি চলছে।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৫ জন প্রার্থী। তারা হলেন- ফেরদৌসী বেগম ইকবাল (প্রজাপতি), মোহিনী বেগম (বৈদ্যুতিক পাখা), অ্যাডভোকেট কামরুন নাহার রিপা (কলস), অ্যাডভোকেট সুলতানা রাজিয়া ডলি (পদ্মফুল) ও মিরা বেগম (ফুটবল)।

এ উপজেলায় ৩৬টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলার মোট ভোটার ৭৯ হাজার ৭৬৫ জন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ ডিসেম্বর ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়ে যায়।

ভোটারদের আগ্রহ নেই, কেন্দ্রে আনাই বড় চ্যালেঞ্জ

 সিলেট ব্যুরো ও ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। করোনার কারণে একাধিকবার ভোট গ্রহণের তারিখ পরিবর্তন হলেও থেমে নেই প্রার্থীরা। ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। কিন্তু প্রার্থীদের এমন তৎপরতায় ভোটারদের কোনো সাড়া নেই।

উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ভোটারদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, এ উপনির্বাচনে ভোটারদের কোনো আগ্রহ নেই। নেই কোনো নির্বাচনী সভা ও গণসংযোগ। যে প্রার্থী বেশিসংখ্যক ভোটার কেন্দ্রে উপস্থিত করতে পারবেন, তিনিই এগিয়ে যাবেন ভোটের লড়াইয়ে। ফলে নির্বাচনের দিন ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত করাই হবে প্রার্থীদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

ফেঞ্চুগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী মনিলাল ভৌমিক বলেন, প্রার্থী ও সমর্থকদের মধ্যে কিছু আগ্রহ দেখা গেলেও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে এ নির্বাচন নিয়ে কোনো আগ্রহ নেই। রাস্তা-ঘাট, পাড়া-মহল্লায় প্রার্থীদের কোনো পোস্টার দেখা যাচ্ছে না।

স্থানীয় কয়েকজন জানান, গত ৪ সেপ্টেম্বর সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল সামান্য। আর এটি মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন। তাই সাধারণ মানুষের এ নির্বাচনকে নিয়ে তেমন আগ্রহ নেই।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এহসানুল কবির ফেরদৌস জানান, প্রার্থীরা ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত প্রচারণা চালাতে পারবেন। নির্বাচনের জন্য সব প্রস্তুতি চলছে।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৫ জন প্রার্থী। তারা হলেন- ফেরদৌসী বেগম ইকবাল (প্রজাপতি), মোহিনী বেগম (বৈদ্যুতিক পাখা), অ্যাডভোকেট কামরুন নাহার রিপা (কলস), অ্যাডভোকেট সুলতানা রাজিয়া ডলি (পদ্মফুল) ও মিরা বেগম (ফুটবল)।

এ উপজেলায় ৩৬টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলার মোট ভোটার ৭৯ হাজার ৭৬৫ জন।

উল্লেখ্য, গত ২৫ ডিসেম্বর ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়ে যায়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন