পুকুরপাড় থেকে ধরার পর ছেড়ে দেওয়া হলো অজগরটি
jugantor
পুকুরপাড় থেকে ধরার পর ছেড়ে দেওয়া হলো অজগরটি

  রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৩:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় লোকালয় থেকে উদ্ধার হওয়া অজগর সাপটি গভীর বনে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। স্থানীয় বনবিভাগ উপজেলার পারুয়া ইউনিয়নের জঙ্গল পারুয়া এলাকার গভীর বনে বুধবার দুপুরে এটি ছেড়ে দেয়।

এ সময় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহেদুর রহমান তালুকদার, স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হাশেম, বনবিভাগের ইছামতী রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খসরুল আমিন উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবুল হাশেম জানান, মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে মধ্যপারুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে পুকুরপাড়ে স্থানীয় লোকজন অজগরটি দেখতে পান। দ্রুত স্থানীয় সাপুড়ে সুরেশ মালাকারকে খবর দেন স্থানীয় লোকজন। সুরেশ মালাকার এসে অজগরটি উদ্ধার করে নিয়ে যান। পরে বনবিভাগকে খবর দিলে তারা এসে সাপুড়ের কাছ থেকে সাপটি নিয়ে গভীর বনে ছেড়ে দেন।

চট্টগ্রাম উত্তর বনবিভাগের অধীন রাঙ্গুনিয়ার ইছামতী রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খসরুল আমিন জানান, সাপুড়েকে নিয়ে সাপটি এলাকার গভীর বনে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সাপটির রং অনেকটা সবুজ বর্ণের, দৈর্ঘ্য ৯ ফুট, ওজন ১০ কেজি। খাবারের সন্ধানে সাপটি লোকালয়ে আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পুকুরপাড় থেকে ধরার পর ছেড়ে দেওয়া হলো অজগরটি

 রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় লোকালয় থেকে উদ্ধার হওয়া অজগর সাপটি গভীর বনে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। স্থানীয় বনবিভাগ উপজেলার পারুয়া ইউনিয়নের জঙ্গল পারুয়া এলাকার গভীর বনে বুধবার দুপুরে এটি ছেড়ে দেয়।

এ সময় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহেদুর রহমান তালুকদার, স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল হাশেম, বনবিভাগের ইছামতী রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খসরুল আমিন উপস্থিত ছিলেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবুল হাশেম জানান, মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে মধ্যপারুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে পুকুরপাড়ে স্থানীয় লোকজন অজগরটি দেখতে পান। দ্রুত স্থানীয় সাপুড়ে সুরেশ মালাকারকে খবর দেন স্থানীয় লোকজন। সুরেশ মালাকার এসে অজগরটি উদ্ধার করে নিয়ে যান। পরে বনবিভাগকে খবর দিলে তারা এসে সাপুড়ের কাছ থেকে সাপটি নিয়ে গভীর বনে ছেড়ে দেন।

চট্টগ্রাম উত্তর বনবিভাগের অধীন রাঙ্গুনিয়ার ইছামতী রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খসরুল আমিন জানান, সাপুড়েকে নিয়ে সাপটি এলাকার গভীর বনে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সাপটির রং অনেকটা সবুজ বর্ণের, দৈর্ঘ্য ৯ ফুট, ওজন ১০ কেজি। খাবারের সন্ধানে সাপটি লোকালয়ে আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন