অসীমের স্বপ্ন কেড়ে নিল চোর
jugantor
অসীমের স্বপ্ন কেড়ে নিল চোর

  যুগান্তর প্রতিবেদন, বাউফল ও বাউফল প্রতিনিধি  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১২:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতিবন্ধী অসীম ও তার বাবা রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী

পটুয়াখালীর বাউফলে দোকানের তালা ভেঙে এক প্রতিবন্ধীর সর্বস্থ চুরি করে নিয়ে নিয়ে গেছে চোর। বুধবার রাতে বাউফল সদর ইউনিয়নের গোসিংগা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্র জানায়, প্রায় ৩ মাস আগে ভিক্ষুক পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় শারীরিক প্রতিবন্ধী অসীম বৈরাগীকে একটি দোকান উপহার দিয়েছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। বুধবার রাতে চোর দোকানের সবকিছু চুরি করে নিয়ে যায়। এতে আবার নিঃস্ব হয়ে গেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রতিবন্ধী অসীম ও তার বাবা রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী গিয়ে ঘটনা অবহিত করেন।

রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী সাংবাদিকদের বলেন, আমার প্রতিবন্ধী ছেলেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একটি দোকান উপহার দেন। দোকানের পুঁজি হিসেবে খাদ্য সামগ্রী ক্রয় করে দেন। এই দোকানে প্রায় ৩ মাস ধরে ব্যবসা করে আমার ছেলেরভরণ পোষণ দিয়েছি। বুধবার রাতে দোকানের তালা ভেঙেচোর নগদ ৪ হাজার টাকা ও সব মালামাল নিয়ে গেছে। আমার প্রতিবন্ধী ছেলেটির স্বপ্ন ভেঙে গেছে।

তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ঘটনা অবহিত করার পর তিনি আমাদের থানায় যেতে বলেছেন।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অসীমের স্বপ্ন কেড়ে নিল চোর

 যুগান্তর প্রতিবেদন, বাউফল ও বাউফল প্রতিনিধি 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রতিবন্ধী অসীম ও তার বাবা রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী
প্রতিবন্ধী অসীম ও তার বাবা রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী। ছবি: যুগান্তর

পটুয়াখালীর বাউফলে দোকানের তালা ভেঙে এক প্রতিবন্ধীর সর্বস্থ চুরি করে নিয়ে নিয়ে গেছে চোর। বুধবার রাতে বাউফল সদর ইউনিয়নের গোসিংগা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্র জানায়, প্রায় ৩ মাস আগে ভিক্ষুক পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় শারীরিক প্রতিবন্ধী অসীম বৈরাগীকে একটি দোকান উপহার দিয়েছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। বুধবার রাতে চোর দোকানের সবকিছু চুরি করে নিয়ে যায়। এতে আবার নিঃস্ব হয়ে গেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে প্রতিবন্ধী অসীম ও তার বাবা রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী গিয়ে ঘটনা অবহিত করেন।

রাধাকৃষ্ণ বৈরাগী সাংবাদিকদের বলেন, আমার প্রতিবন্ধী ছেলেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একটি দোকান উপহার দেন। দোকানের পুঁজি হিসেবে খাদ্য সামগ্রী ক্রয় করে দেন। এই দোকানে প্রায় ৩ মাস ধরে ব্যবসা করে আমার ছেলের ভরণ পোষণ দিয়েছি। বুধবার রাতে দোকানের তালা ভেঙে চোর নগদ ৪ হাজার টাকা ও সব মালামাল নিয়ে গেছে। আমার প্রতিবন্ধী ছেলেটির স্বপ্ন ভেঙে গেছে।

তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ঘটনা অবহিত করার পর তিনি আমাদের থানায় যেতে বলেছেন।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আল মামুন বলেন, এখন পর্যন্ত লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন