‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’
jugantor
‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পদ্মার মধ্যে চকরাজাপুর ইউনিয়নের কালিদাসখালী চরের আবদুস সুবান ব্যাপারীর ছেলে বাদশা ব্যাপারী পদ্মার ভাঙন দেখে আগে থেকেই বাড়িঘরের মালামাল বোঝাই করে নৌকায় অন্যস্থানে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

শ্যালোচালিত নৌকাটি কালিদাসখালী পদ্মা নদীর ঘাট থেকে কিছুদূর যেতেই প্রবল ঢেউ ও স্রোতের কবলে পড়ে। মাঝি হাবলু ব্যাপারী নৌকা নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে ডুবে যায়।

রাজশাহীর বাঘায় পদ্মায় নৌকা ডুবে বাড়ির মালামাল পানির নিচে তলিয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার পদ্মা নদীর কালিদাসখালী এলাকার চকরাজাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আজিজুল আযমের বাড়ির পূর্বদিকে এ নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে বাদশা ব্যাপারী বলেন, মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা। পদ্মার ভাঙনের ভয়ে আগে থেকেই ঘর ভেঙে বাড়ির আসবাবপত্র নিয়ে চন্ডিপুর এলাকায় যাওয়ার সময় নৌকাডুবে অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। নৌকায় ঘর তৈরির টিন, চাল-ডালসহ বাড়ির আসবাবপত্র ছিল। তবে আমি ও মাঝিসহ ৬ জন সাঁতরে কিনারে উঠে প্রাণে রক্ষা করতে পেরেছি। নৌকাতে বোঝাই করা মালামাল হারিয়ে গেছে।

চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল আযম বলেন, ঘটনাটি জানার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এতে নৌকাটি উদ্ধার করা সম্ভব হলেও মালামাল উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’

 বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পদ্মার মধ্যে চকরাজাপুর ইউনিয়নের কালিদাসখালী চরের আবদুস সুবান ব্যাপারীর ছেলে বাদশা ব্যাপারী পদ্মার ভাঙন দেখে আগে থেকেই বাড়িঘরের মালামাল বোঝাই করে নৌকায় অন্যস্থানে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

শ্যালোচালিত নৌকাটি কালিদাসখালী পদ্মা নদীর ঘাট থেকে কিছুদূর যেতেই প্রবল ঢেউ ও স্রোতের কবলে পড়ে। মাঝি হাবলু ব্যাপারী নৌকা নিয়ন্ত্রণ করতে না পারলে ডুবে যায়।

রাজশাহীর বাঘায় পদ্মায় নৌকা ডুবে বাড়ির মালামাল পানির নিচে তলিয়ে গেছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার পদ্মা নদীর কালিদাসখালী এলাকার চকরাজাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আজিজুল আযমের বাড়ির পূর্বদিকে এ নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে বাদশা ব্যাপারী বলেন, মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা। পদ্মার ভাঙনের ভয়ে আগে থেকেই ঘর ভেঙে বাড়ির আসবাবপত্র নিয়ে চন্ডিপুর এলাকায় যাওয়ার সময় নৌকাডুবে অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। নৌকায় ঘর তৈরির টিন, চাল-ডালসহ বাড়ির আসবাবপত্র ছিল। তবে আমি ও মাঝিসহ ৬ জন সাঁতরে কিনারে উঠে প্রাণে রক্ষা করতে পেরেছি। নৌকাতে বোঝাই করা মালামাল হারিয়ে গেছে।

চকরাজাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল আযম বলেন, ঘটনাটি জানার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। এতে নৌকাটি উদ্ধার করা সম্ভব হলেও মালামাল উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন