সন্তান পরিচয়ে বৃদ্ধাকে হোটেলে ফেলে রেখে গেল ‘ছেলে’
jugantor
সন্তান পরিচয়ে বৃদ্ধাকে হোটেলে ফেলে রেখে গেল ‘ছেলে’

  কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি  

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২৪:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

‘আমার মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি’। ছেলে পরিচয়ে খাবার হোটেলে অজ্ঞান এক নারীকে বসিয়ে রেখে এভাবেই চলে যান ছেলে পরিচয়দানকারী এক যুবক। এরপর আর ফিরে আসেননি তিনি।

হোটেলেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান বৃদ্ধা মহিলা (৬০)। খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানার এক এসআই এসে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বৃদ্ধা নারীর নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বিকালে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহরের শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজে।

শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজের ম্যানেজার রিফাত হোসেন জানান, দুপুর দেড়টার দিকে বৃদ্ধা মহিলাকে সঙ্গে নিয়ে এক যুবক এসে একদম পেছনের দিকে বসেন। ১০/১৫ মিনিট পর ওই ছেলেটি তাকে বলেন, মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি। এরপর আর যুবক আর ফিরে আসেনি। বসেই থাকেন ওই মহিলা। পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হলে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা: ইমতিয়াজ আলম জানান, অজ্ঞাত মহিলার চিকিৎসা চলছে। রাত সাড়ে ১০ টা পর্যন্ত জ্ঞান ফিরে আসেনি। এখনো তার জ্ঞান ফিরে আসেনি। কিন্তু তার অক্সিজেন লেভেল ও প্রেসার ঠিক আছে।

কালীগঞ্জ থানার এসআই আলামিন হোসেন জানান, তিনি বৃহস্পতিবার ইমার্জেন্সী ডিউটিতে ছিলেন। খবর পেয়ে শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজে গিয়ে মহিলা উদ্ধার করেন। তখন তিনি অজ্ঞান ছিলেন। এরপর চিকিৎসার জন্য কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

সন্তান পরিচয়ে বৃদ্ধাকে হোটেলে ফেলে রেখে গেল ‘ছেলে’

 কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি 
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:২৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘আমার মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি’। ছেলে পরিচয়ে খাবার হোটেলে অজ্ঞান এক নারীকে বসিয়ে রেখে এভাবেই চলে যান ছেলে পরিচয়দানকারী এক যুবক। এরপর আর ফিরে আসেননি তিনি। 

হোটেলেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান বৃদ্ধা মহিলা (৬০)। খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানার এক এসআই এসে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বৃদ্ধা নারীর নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।  

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার বিকালে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহরের শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজে।

শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজের ম্যানেজার রিফাত হোসেন জানান, দুপুর দেড়টার দিকে বৃদ্ধা মহিলাকে সঙ্গে নিয়ে এক যুবক এসে একদম পেছনের দিকে বসেন। ১০/১৫ মিনিট পর ওই ছেলেটি তাকে বলেন, মা এখানে থাক, ওষুধ কিনে এনে নিয়ে যাচ্ছি। এরপর আর যুবক আর ফিরে আসেনি। বসেই থাকেন ওই মহিলা। পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হলে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়। 

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা: ইমতিয়াজ আলম জানান, অজ্ঞাত মহিলার চিকিৎসা চলছে। রাত সাড়ে ১০ টা পর্যন্ত জ্ঞান ফিরে আসেনি। এখনো তার জ্ঞান ফিরে আসেনি। কিন্তু তার অক্সিজেন লেভেল ও প্রেসার ঠিক আছে।

কালীগঞ্জ থানার এসআই আলামিন হোসেন জানান, তিনি বৃহস্পতিবার ইমার্জেন্সী ডিউটিতে ছিলেন। খবর পেয়ে শাহী নান্না বিরিয়ানি হাউজে গিয়ে মহিলা উদ্ধার করেন। তখন তিনি অজ্ঞান ছিলেন। এরপর চিকিৎসার জন্য কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন