মায়ের সেবাযত্ন করায় স্বামীর চাপাতির কোপে গৃহবধূ হাসপাতালে
jugantor
মায়ের সেবাযত্ন করায় স্বামীর চাপাতির কোপে গৃহবধূ হাসপাতালে

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫০:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

মাদারীপুরের রাজৈরে মায়ের সেবাযত্ন করায় ক্ষিপ্ত এক পাষণ্ড স্বামীর চাপাতির কোপে স্ত্রী রিক্তা (২৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার হৃদয়নন্দী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত রিক্তা বেগম (২৫) উক্ত গ্রামের জলিল বেপারীর মেয়ে এবং পাষণ্ড স্বামী পার্শ্ববর্তী ঘোষালকান্দি গ্রামের বাদশা শেখের ছেলে লাভলু শেখ। ঘটনার পর থেকে লাভলু শেখ পলাতক রয়েছে।

আহত রিক্তার ভাই হৃদয় বেপারী জানান, কয়েক দিন ধরে আমার মা অসুস্থ হয়ে রাজৈর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। খবর পেয়ে আমার বোন রিক্তা স্বামীর বাড়ি থেকে মাকে দেখতে হাসপাতালে যায় এবং মায়ের সেবাযত্ন করে। শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হাসপাতাল থেকে বাড়িতে এলে মায়ের সেবাযত্ন করায় ক্ষিপ্ত হয়ে দুলাভাই লাভলু আমার বোন রিক্তাকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যায়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় রিক্তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আমরা এ ঘটনার সঠিক বিচার চাই।

আহতের পিতা জলিল বেপারী জানান, আমার মেয়েকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে। তার পিঠে ৩৫টি সেলাই দেয়া হয়েছে। এখন তার অবস্থা গুরুতর।

রাজৈর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, ভক্তুভোগীরা অভিযোগ করলে আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মায়ের সেবাযত্ন করায় স্বামীর চাপাতির কোপে গৃহবধূ হাসপাতালে

 টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাদারীপুরের রাজৈরে মায়ের সেবাযত্ন করায় ক্ষিপ্ত এক পাষণ্ড স্বামীর চাপাতির কোপে স্ত্রী রিক্তা (২৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার হৃদয়নন্দী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত রিক্তা বেগম (২৫) উক্ত গ্রামের জলিল বেপারীর মেয়ে এবং পাষণ্ড স্বামী পার্শ্ববর্তী ঘোষালকান্দি গ্রামের বাদশা শেখের ছেলে লাভলু শেখ। ঘটনার পর থেকে লাভলু শেখ পলাতক রয়েছে।

আহত রিক্তার ভাই হৃদয় বেপারী জানান, কয়েক দিন ধরে আমার মা অসুস্থ হয়ে রাজৈর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন। খবর পেয়ে আমার বোন রিক্তা স্বামীর বাড়ি থেকে মাকে দেখতে হাসপাতালে যায় এবং মায়ের সেবাযত্ন করে। শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে হাসপাতাল থেকে বাড়িতে এলে মায়ের সেবাযত্ন করায় ক্ষিপ্ত হয়ে দুলাভাই লাভলু আমার বোন রিক্তাকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যায়। পরে মুমূর্ষু অবস্থায় রিক্তাকে উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আমরা এ ঘটনার সঠিক বিচার চাই।

আহতের পিতা জলিল বেপারী জানান, আমার মেয়েকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে। তার পিঠে ৩৫টি সেলাই দেয়া হয়েছে। এখন তার অবস্থা গুরুতর।

রাজৈর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, ভক্তুভোগীরা অভিযোগ করলে আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন