বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান হচ্ছেন আ.লীগের ফরিদ
jugantor
বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান হচ্ছেন আ.লীগের ফরিদ

  যশোর ব্যুরো  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৫৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন রোববার দুপুরে রিটার্নিং অফিসারের কাছে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন।

ফলে মোস্তফা ফরিদ চৌধুরী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণার অপেক্ষায় আছেন। এর আগে মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং অফিসার।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোরের সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হুমায়ন কবীর।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানায়, চলতি বছরের গত ৩ জুন যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরজাহান ইসলাম নীরার মৃত্যু হলে পদটি শূন্য হয়। আগামী ৭ অক্টোবর যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

এ নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধা মনোনয়ন জমা দেন। মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ হলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধার মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়।

বৈধ দুই প্রার্থীর মধ্যে রোববার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। ফলে এ নির্বাচনে একমাত্র বৈধ প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী।

সোমবার নির্বাচন কমিশন গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরীকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী ঘোষণা করবে বলে জানা গেছে।

বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় উপজেলা চেয়ারম্যান হচ্ছেন আ.লীগের ফরিদ

 যশোর ব্যুরো 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন রোববার দুপুরে রিটার্নিং অফিসারের কাছে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন।

ফলে মোস্তফা ফরিদ চৌধুরী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণার অপেক্ষায় আছেন। এর আগে মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং অফিসার।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন যশোরের সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হুমায়ন কবীর।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানায়, চলতি বছরের গত ৩ জুন যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরজাহান ইসলাম নীরার মৃত্যু হলে পদটি শূন্য হয়। আগামী ৭ অক্টোবর যশোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

এ নির্বাচনে অংশ নিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধা মনোনয়ন জমা দেন। মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ হলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহমান কাকন মৃধার মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়।

বৈধ দুই প্রার্থীর মধ্যে রোববার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নূরুল আমিন তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। ফলে এ নির্বাচনে একমাত্র বৈধ প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী।

সোমবার নির্বাচন কমিশন গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরীকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী ঘোষণা করবে বলে জানা গেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন