টাকার জন্য মাকে কোপাল পালক ছেলে
jugantor
টাকার জন্য মাকে কোপাল পালক ছেলে

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:১৫:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভায় সন্ত্রাসী দুই বন্ধুসহ পালকপুত্র মো. রুবেল (২০) তার মা পারুল আক্তারকে (৫০) কুপিয়ে আহত করে টাকা লুট করে নিয়েছে।

শনিবার গভীর রাতে বসুরহাট পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের জমিন মাঝির বাড়ির মুকবুল আহাম্মদের বসতঘরে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই ঘটনায় পালিতপুত্র সন্ত্রাসী রুবেল ও তার দুই সহযোগী ওই এলাকার আলী মাঝি বাড়ির সিরাজ উল্যার ছেলে সালাউদ্দিন (২০), মো. ইউসুপের ছেলে মো. ইউনুছকে (২১) গ্রেফতার করেছে।

গুরুতর আহত অবস্থায় পারুল আক্তারকে প্রথমে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রুবেলের পালিত পিতা প্যারালাইসিস রোগী বৃদ্ধ মুকবুল আহম্মদ (৬০) বাদী হয়ে আটক ৩ জনকে আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী মুকবুল আহম্মদ জানান, উপার্জনক্ষম কোনো সন্তান না থাকায় চিকিৎসার জন্য তার বসতবাড়ির দেড় শতাংশ জমি বিক্রি করেন। ওই জমির বায়না বাবদ ২০ হাজার টাকা ঘরে রাখা ছিল। ওই রাতে পারুল আক্তার প্রাকৃতিক ডাকে ঘরের বাহিরে গেলে টাকার লোভে পালক ছেলে রুবেল ও তার দুই সহযোগীসহ শনিবার রাত ১টায় তার বসতঘরে প্রবেশ করে।

এ সময় ঘরে ফেরা মা পারুল আক্তারের কাছে শোকেসের চাবি চায় রুবেল। চাবি দিতে অস্বীকার করলে তার সহযোগীরাসহ এলোপাতাড়ি মা পারুল আক্তারকে হত্যার উদ্দেশ্যে বঁটি দিয়ে কুপিয়ে পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে ওই টাকা নিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন মুকবুল ও তার স্ত্রী বৃদ্ধা পারুলের চিৎকার শুনে তিনজনকে আটক করে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মাধ্যমে পুলিশে সোপর্দ করেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গ্রেফতার তিনজনকে আদালতের মাধ্যমে নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

টাকার জন্য মাকে কোপাল পালক ছেলে

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভায় সন্ত্রাসী দুই বন্ধুসহ পালকপুত্র মো. রুবেল (২০) তার মা পারুল আক্তারকে (৫০) কুপিয়ে আহত করে টাকা লুট করে নিয়েছে।

শনিবার গভীর রাতে বসুরহাট পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের জমিন মাঝির বাড়ির মুকবুল আহাম্মদের বসতঘরে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ওই ঘটনায় পালিতপুত্র সন্ত্রাসী রুবেল ও তার দুই সহযোগী ওই এলাকার আলী মাঝি বাড়ির সিরাজ উল্যার ছেলে সালাউদ্দিন (২০), মো. ইউসুপের ছেলে মো. ইউনুছকে (২১) গ্রেফতার করেছে।

গুরুতর আহত অবস্থায় পারুল আক্তারকে প্রথমে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রুবেলের পালিত পিতা প্যারালাইসিস রোগী বৃদ্ধ মুকবুল আহম্মদ (৬০) বাদী হয়ে আটক ৩ জনকে আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী মুকবুল আহম্মদ জানান, উপার্জনক্ষম কোনো সন্তান না থাকায় চিকিৎসার জন্য তার বসতবাড়ির দেড় শতাংশ জমি বিক্রি করেন। ওই জমির বায়না বাবদ ২০ হাজার টাকা ঘরে রাখা ছিল। ওই রাতে পারুল আক্তার প্রাকৃতিক ডাকে ঘরের বাহিরে গেলে টাকার লোভে পালক ছেলে রুবেল ও তার দুই সহযোগীসহ শনিবার রাত ১টায়  তার বসতঘরে প্রবেশ করে।

এ সময় ঘরে ফেরা মা পারুল আক্তারের কাছে শোকেসের চাবি চায় রুবেল। চাবি দিতে অস্বীকার করলে তার সহযোগীরাসহ এলোপাতাড়ি মা পারুল আক্তারকে হত্যার উদ্দেশ্যে বঁটি দিয়ে কুপিয়ে পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে ওই টাকা নিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন মুকবুল ও তার স্ত্রী বৃদ্ধা পারুলের চিৎকার শুনে তিনজনকে আটক করে পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মাধ্যমে পুলিশে সোপর্দ করেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গ্রেফতার তিনজনকে আদালতের মাধ্যমে নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন