চাঁদপুরে রেলওয়ের ১৬টি ফিসপ্লেট চুরি, ১০টি উদ্ধার
jugantor
চাঁদপুরে রেলওয়ের ১৬টি ফিসপ্লেট চুরি, ১০টি উদ্ধার

  চাঁদপুর প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৩১:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরে রেলওয়ের ১৬টি (এমএসপ্লেট) ফিসপ্লেট চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ১০টি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার রাতে ৫নং কয়লাঘাটের রেলওয়ে ওয়াসঘাট থেকে ২ জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে একজন হ্যান্ডকাফ খুলে পালিয়ে যায়। অপর একজনকে পুলিশে সোপর্দ করেছে চাঁদপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

বড় স্টেশন এলাকার রেল ওয়াশফিটের ১৬টি ফিসপ্লেট (এমএস প্লেট) চুরি হয়ে যায়। চুরির বিষয়টি জানতে পেরে শনিবার রাতে স্থানীয় এলাকার কয়েকজন যুবক চাঁদপুর শহরের রেলওয়ে কাঁচা কলোনি এলাকার জলিল গাজীর ছেলে মনির হোসেন গাজী (৩০) ও মৃত রতন গাজীর ছেলে মোহন গাজীকে (৩২) আটক করে রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেন। পরে রেলওয়ের লোকজন নতুনবাজারের লোহা ব্যবসায়ী মুকবুলের লোহার দোকান থেকে ১০টি ফিসপ্লেট উদ্ধার করেন।

এদিকে দুজনকে আটকের পর চাঁদপুর রেলওয়ের বড় স্টেশন থেকে মোহন গাজী নামে এক আসামি পালিয়ে যায় বলে জানান চাঁদপুর রেলওয়ে থানার ওসি মুরাদ উল্লাহ বাহার।

এদিকে ১ জন আসামি পালানোর বিষয়টিকে রহস্যজনক মনে করছেন স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ বড় স্টেশন এলাকার কয়েকজন যুবক রেলওয়ের ফিসপ্লেট চুরি করা মনির এবং মোহনকে আটক করে রেলওয়ের লোকজনের কাছে সোপর্দ করেন। কিন্তু কোনো এক অদৃশ্য কারণে কীভাবে একজন আসামি হ্যান্ডকাফ পরা থাকা সত্ত্বেও পালিয়ে যায় সে বিষয়টি বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে চাঁদপুর রেলওয়ের হাবিলদার খোরশেদ আলম জানান, রেললাইনের ফিসপ্লেট চুরির ঘটনায় দুজন আটক হয়েছে ঠিকই। তবে আমাদের একজন নিরাপত্তা কর্মী উপস্থিত থাকায় প্রস্রাব করতে গিয়ে মোহন নামের একজন আসামি হ্যান্ডকাফ খুলে পালিয়ে যায়। আটককৃত মনিরের বিরুদ্ধে আমরা লিখিত অভিযোগ দিয়ে চাঁদপুর রেলওয়ে থানা পুলিশে সোপর্দ করেছি।

বাংলাদেশ রেলওয়ে লাকসামের রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইয়াসিন উল্লাহ জানান, রেলওয়ের মোট ১৬টি এমএস প্লেট চুরি হয়েছে। এর মধ্যে ১০টি উদ্ধার হয়েছে এবং ১ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলার এজাহার দিয়ে রেলওয়ে থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি ব্যবস্থা নেবে চাঁদপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে চাঁদপুর রেলওয়ে থানার ওসি মুরাদ উল্ল্যাহ বাহার জানান, রেলওয়ের এসএম প্লেট চুরির ঘটনায় ১ জনকে আটক করে থানায় হস্তান্তর করেছেন রেলওয়ের লোকজন। দুজনকে আসামি করে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা মামলার এজাহার দিয়ে আসামিকে আদালতে প্রেরণ করব।

এর আগে গত সপ্তাহে মৃদুল কান্তি দাস নামে লোহা ব্যবসায়ীকে আটটি রেলবিটসহ আটক করে আদালতে প্রেরণ করে জিআরপি।

চাঁদপুরে রেলওয়ের ১৬টি ফিসপ্লেট চুরি, ১০টি উদ্ধার

 চাঁদপুর প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরে রেলওয়ের ১৬টি (এমএসপ্লেট) ফিসপ্লেট চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ১০টি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার রাতে ৫নং কয়লাঘাটের রেলওয়ে ওয়াসঘাট থেকে ২ জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে একজন হ্যান্ডকাফ খুলে পালিয়ে যায়। অপর একজনকে পুলিশে সোপর্দ করেছে চাঁদপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

বড় স্টেশন এলাকার রেল ওয়াশফিটের ১৬টি ফিসপ্লেট (এমএস প্লেট) চুরি হয়ে যায়। চুরির বিষয়টি জানতে পেরে শনিবার রাতে স্থানীয় এলাকার কয়েকজন যুবক চাঁদপুর শহরের রেলওয়ে কাঁচা কলোনি এলাকার জলিল গাজীর ছেলে মনির হোসেন গাজী (৩০) ও মৃত রতন গাজীর ছেলে মোহন গাজীকে (৩২) আটক করে রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেন। পরে রেলওয়ের লোকজন নতুনবাজারের লোহা ব্যবসায়ী মুকবুলের লোহার দোকান থেকে ১০টি ফিসপ্লেট উদ্ধার করেন।

এদিকে দুজনকে আটকের পর চাঁদপুর রেলওয়ের বড় স্টেশন থেকে মোহন গাজী নামে এক আসামি পালিয়ে যায় বলে জানান চাঁদপুর রেলওয়ে থানার ওসি মুরাদ উল্লাহ বাহার।

এদিকে ১ জন আসামি পালানোর বিষয়টিকে রহস্যজনক মনে করছেন  স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ বড় স্টেশন এলাকার কয়েকজন যুবক রেলওয়ের ফিসপ্লেট চুরি করা মনির এবং মোহনকে আটক করে রেলওয়ের লোকজনের কাছে সোপর্দ করেন। কিন্তু কোনো এক অদৃশ্য কারণে কীভাবে একজন আসামি হ্যান্ডকাফ পরা থাকা সত্ত্বেও পালিয়ে যায় সে বিষয়টি বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে চাঁদপুর রেলওয়ের হাবিলদার খোরশেদ আলম জানান, রেললাইনের ফিসপ্লেট চুরির ঘটনায় দুজন আটক হয়েছে ঠিকই। তবে আমাদের একজন নিরাপত্তা কর্মী উপস্থিত থাকায় প্রস্রাব করতে গিয়ে মোহন নামের একজন আসামি হ্যান্ডকাফ খুলে পালিয়ে যায়। আটককৃত মনিরের বিরুদ্ধে আমরা লিখিত অভিযোগ দিয়ে চাঁদপুর রেলওয়ে থানা পুলিশে সোপর্দ করেছি। 

বাংলাদেশ রেলওয়ে লাকসামের রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইয়াসিন উল্লাহ জানান, রেলওয়ের  মোট ১৬টি এমএস প্লেট চুরি হয়েছে। এর মধ্যে ১০টি উদ্ধার হয়েছে এবং ১ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলার এজাহার দিয়ে রেলওয়ে থানা পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি ব্যবস্থা নেবে চাঁদপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে চাঁদপুর রেলওয়ে থানার ওসি মুরাদ উল্ল্যাহ বাহার জানান, রেলওয়ের এসএম প্লেট চুরির ঘটনায় ১ জনকে আটক করে থানায় হস্তান্তর করেছেন রেলওয়ের লোকজন। দুজনকে আসামি করে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা মামলার এজাহার দিয়ে আসামিকে আদালতে প্রেরণ করব।

এর আগে গত সপ্তাহে মৃদুল কান্তি দাস নামে লোহা ব্যবসায়ীকে আটটি রেলবিটসহ আটক করে আদালতে প্রেরণ করে জিআরপি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন