ভারতে দীর্ঘ কারাভোগের পর দেশে ফিরল ৩৭ কিশোর-কিশোরী
jugantor
ভারতে দীর্ঘ কারাভোগের পর দেশে ফিরল ৩৭ কিশোর-কিশোরী

  বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৩৯:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন কারাভোগের পর বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেছে ভারতে পাচার হওয়া ৩৭ জন বাংলাদেশি কিশোর-কিশোরী। দালালের মাধ্যমে অবৈধপথে এসব কিশোর-কিশোরী বিভিন্ন সময়ে ভারতে যায়।

সোমবার বিকালে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করে।

এসব কিশোর-কিশোরীর বাড়ি বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায়। এদের বয়স ১২ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। প্রায় তিন বছর আগে কাজের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে দালালরা তাদের ভারতে পাচার করে।

যশোরের একটি বেসরকারি সাহায্য সংস্থা জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের প্রোগ্রাম কর্মকর্তা মুহিত হোসেন জানান, সংসারে অভাব-অনটনের সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন সময় ভালো কাজের কথা বলে এসব নারী-পুরুষ ও শিশুকে ভারতে পাচার করে দালালরা। পরে তাদের বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ব্যবহার করা হয়। ভারতীয় পুলিশ পাচারকারীদের কাছ থেকে তাদের উদ্ধার করে আদালতে পাঠায়। সেখান থেকে তাদের আশ্রয় হয় ভারতীয় এনজিও সংস্থার শেল্টার হোমে। পরে উদ্ধার হওয়ারা বাংলাদেশি কিনা তা যাচাই করা হয়। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারত সরকারের দেওয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে এসব নারী-পুরুষ এবং শিশুরা আজ দেশে ফিরেছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ওসি আহসান হাবিব জানান, সীমান্ত পথে বিভিন্ন সময়ে ভারতে পাচার হওয়া ৩৭ জন কিশোর-কিশোরী ভারত সরকারের দেয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে দেশে ফিরে এসেছে।

ভারতে দীর্ঘ কারাভোগের পর দেশে ফিরল ৩৭ কিশোর-কিশোরী

 বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘদিন কারাভোগের পর বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেছে ভারতে পাচার হওয়া ৩৭ জন বাংলাদেশি কিশোর-কিশোরী। দালালের মাধ্যমে অবৈধপথে এসব কিশোর-কিশোরী বিভিন্ন সময়ে ভারতে যায়।

সোমবার বিকালে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে তাদের হস্তান্তর করে।

এসব কিশোর-কিশোরীর বাড়ি বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায়। এদের বয়স ১২ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে। প্রায় তিন বছর আগে কাজের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে দালালরা তাদের ভারতে পাচার করে।

যশোরের একটি বেসরকারি সাহায্য সংস্থা জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের  প্রোগ্রাম কর্মকর্তা মুহিত হোসেন জানান, সংসারে অভাব-অনটনের সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন সময় ভালো কাজের কথা বলে এসব নারী-পুরুষ ও শিশুকে ভারতে পাচার করে দালালরা। পরে তাদের বিভিন্ন ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ব্যবহার করা হয়। ভারতীয় পুলিশ পাচারকারীদের কাছ থেকে তাদের উদ্ধার করে আদালতে পাঠায়। সেখান থেকে তাদের আশ্রয় হয় ভারতীয় এনজিও সংস্থার শেল্টার হোমে। পরে উদ্ধার হওয়ারা বাংলাদেশি কিনা তা যাচাই করা হয়। প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারত সরকারের দেওয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে এসব নারী-পুরুষ এবং শিশুরা আজ  দেশে ফিরেছে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ওসি আহসান হাবিব জানান, সীমান্ত পথে বিভিন্ন সময়ে ভারতে পাচার হওয়া ৩৭ জন কিশোর-কিশোরী ভারত সরকারের দেয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে দেশে ফিরে এসেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন