পাগলকে গলা কেটে খুন
jugantor
পাগলকে গলা কেটে খুন

  মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩১:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগর এক মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) রোগীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাতে উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের কোম্পানীগঞ্জ নবীনগর সড়কের বাখরনগড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী নাছির মিয়া (৩৫) পার্শ্ববর্তী দেবিদ্বার উপজেলার ভিংলাবাড়ী গ্রামের আব্দুল আওয়ালের ছেলে। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বাখরনগড় গ্রামের মৃত রোশন আলীর ছেলে সোহাগ মিয়াকে (২৪) আটক করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।

অপরদিকে একই রাতে এ ইউনিয়নের নগরপাড় ও গুঞ্জর গ্রামের দুই স্থানে দুজন যুবককে ছুরিকাঘাত করা হয়। আহতরা হলেন- নগরপাড় গ্রামের মৃত খোরশেদ ড্রাইভারের ছেলে তিশা পরিবহনের চালক জসিম উদ্দিন (৩২) ও গকুলনগর গ্রামের জয়দল হোসেনর ছেলে সেন্টু মিয়া (৩৬)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে উপজেলার বাখরনগর গ্রামের কোম্পানীগঞ্জ টু নবীনগর সড়কের পাশে সাঁটারবিহীন দোকান ঘরে মানসিক ভারসাম্যহীন নাছির মিয়ার গলাকাটা লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে মুরাদনগর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

অপরদিকে একই রাত সাড়ে ১১টায় সেন্টু মিয়া প্রতিদিনের মতো সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন, সে সময় কোম্পানীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কাছে আসার পর একজন লোক হাত বাড়ায়। চালক যাত্রী মনে করে গাড়ি থামানোর সঙ্গে সঙ্গেই গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে। সে সময় চালক হাত দিয়ে ছুরির আঘাত ঠেকানোর চেষ্টা করলে ততক্ষণে হাতসহ গলার ভিতর ধারালো ছুরি লেগে যায়।

অন্যদিকে জসিম উদ্দিন উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজার হতে নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে কোম্পানীগঞ্জ-নবীনগর সড়কের কাশেম স’মিলের সামনে আসা মাত্র কে বা কারা পেছন থেকে জসিমের গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আগাত করে। এতে জসিমের গলা ও হাতের রগ কেটে যায়। বর্তমানে আহতরা ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় জড়িত একজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ হত্যাকাণ্ডসহ ছুরিকাঘাতের ঘটনা স্বীকার করেছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি যদি এ ঘটনায় অন্য কোনো রহস্য রয়েছে কিনা।

পাগলকে গলা কেটে খুন

 মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার মুরাদনগর এক মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল) রোগীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। রোববার রাতে উপজেলার নবীপুর পূর্ব ইউনিয়নের কোম্পানীগঞ্জ নবীনগর সড়কের বাখরনগড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী নাছির মিয়া (৩৫) পার্শ্ববর্তী দেবিদ্বার উপজেলার ভিংলাবাড়ী গ্রামের আব্দুল আওয়ালের ছেলে। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বাখরনগড় গ্রামের মৃত রোশন আলীর ছেলে সোহাগ মিয়াকে (২৪) আটক করেছে মুরাদনগর থানা পুলিশ।

অপরদিকে একই রাতে এ ইউনিয়নের নগরপাড় ও গুঞ্জর গ্রামের দুই স্থানে দুজন যুবককে ছুরিকাঘাত করা হয়। আহতরা হলেন- নগরপাড় গ্রামের মৃত খোরশেদ ড্রাইভারের ছেলে তিশা পরিবহনের চালক জসিম উদ্দিন (৩২) ও গকুলনগর গ্রামের জয়দল হোসেনর ছেলে সেন্টু মিয়া (৩৬)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে উপজেলার বাখরনগর গ্রামের কোম্পানীগঞ্জ টু নবীনগর সড়কের পাশে সাঁটারবিহীন দোকান ঘরে মানসিক ভারসাম্যহীন নাছির মিয়ার গলাকাটা লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে মুরাদনগর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

অপরদিকে একই রাত সাড়ে ১১টায় সেন্টু মিয়া প্রতিদিনের মতো সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন, সে সময় কোম্পানীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কাছে আসার পর একজন লোক হাত বাড়ায়। চালক যাত্রী মনে করে গাড়ি থামানোর সঙ্গে সঙ্গেই গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে। সে সময় চালক হাত দিয়ে ছুরির আঘাত ঠেকানোর চেষ্টা করলে ততক্ষণে হাতসহ গলার ভিতর ধারালো ছুরি লেগে যায়।

অন্যদিকে জসিম উদ্দিন উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বাজার হতে নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে কোম্পানীগঞ্জ-নবীনগর সড়কের কাশেম স’মিলের সামনে আসা মাত্র কে বা কারা পেছন থেকে জসিমের গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আগাত করে। এতে জসিমের গলা ও হাতের রগ কেটে যায়। বর্তমানে আহতরা ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় জড়িত একজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ হত্যাকাণ্ডসহ ছুরিকাঘাতের ঘটনা স্বীকার করেছে। আমরা তদন্ত করে দেখছি যদি এ ঘটনায় অন্য কোনো রহস্য রয়েছে কিনা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন