৫ মিনিটের ব্যবধানে বৃদ্ধাকে দুটি টিকা
jugantor
৫ মিনিটের ব্যবধানে বৃদ্ধাকে দুটি টিকা

  সুনামগঞ্জ ও যুগান্তর প্রতিবেদন, তাহিরপুর  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৭:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

খুদেজা খাতুন

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে এক বৃদ্ধাকে পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুবার সিনোফার্মের দুই ডোজ করোনা টিকা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের নিচতলার টিকাদান কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

ওই বৃদ্ধার নাম খোদেজা খাতুন (৭৪)। তিনি ওই উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের নোয়ানগর গ্রামের খেলু মিয়ার স্ত্রী।

টিকাগ্রহণকারী খোদেজা খাতুন জানান, সকালে স্বামীর সঙ্গে টিকা কেন্দ্রে গিয়েছিলেন। এক ডোজ টিকা দেওয়ার পর তার শরীর দুর্বল লাগছিল। তাই তিনি পাশে আরেকটি চেয়ারে গিয়ে বসলে আরেকজন সেবিকা হঠাৎ করে এসে তার শরীরে আরেক ডোজ টিকা পুশ করে দেন।

খোদেজা খাতুনের স্বামী খেলু মিয়া বলেন, স্ত্রীকে দুবার টিকা দেওয়ার বিষয়টি আরেকজন সেবিকাকে জানালে তিনি বলেন, কিছু হবে না আপনারা বাড়িতে চলে যান। এ ব্যাপারে অন্যদের জিজ্ঞেস করেও তিনি কোনো সদুত্তর পাননি।

তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত টিকা প্রদানকারী স্বাস্থ্য সেবিকা মরিয়ম বেগম দ্বিতীয় টিকা প্রদানের কারণে দুঃখ প্রকাশ করে যুগান্তরকে বলেন, পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুটি টিকা পুশ করার কারণে কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দেবে না। আসলে বয়োবৃদ্ধার হাতে কার্ড দেখে আমি উনাকে টিকা পুশ করেছিলাম।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৈয়দ আবুআহম্মদশাফি যুগান্তরকে বলেন, আমি ঢাকায় রয়েছি, এ বিষয়ে কিছু জানি না। তবে এক ব্যক্তিকে একই দিনে দুবার ভ্যাকসিনের ডোজ দেওয়ার কোনো নিয়ম নেই; বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন বলেন, একই ব্যক্তিকে দুই ডোজ ঠিকা দেওয়ার কোনো কারণ নেই। এমন কোনো অভিযোগ আমি শুনিনি। তবে আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। এমন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে অবশ্যই তদন্তপূর্বক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

৫ মিনিটের ব্যবধানে বৃদ্ধাকে দুটি টিকা

 সুনামগঞ্জ ও যুগান্তর প্রতিবেদন, তাহিরপুর 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খুদেজা খাতুন
খুদেজা খাতুন। ছবি: যুগান্তর

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে এক বৃদ্ধাকে পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুবার সিনোফার্মের দুই ডোজ করোনা টিকা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। 

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের নিচতলার টিকাদান কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

ওই বৃদ্ধার নাম খোদেজা খাতুন (৭৪)। তিনি ওই উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের নোয়ানগর গ্রামের খেলু মিয়ার স্ত্রী।

টিকাগ্রহণকারী খোদেজা খাতুন জানান, সকালে স্বামীর সঙ্গে টিকা কেন্দ্রে গিয়েছিলেন। এক ডোজ টিকা দেওয়ার পর তার শরীর দুর্বল লাগছিল। তাই তিনি পাশে আরেকটি চেয়ারে গিয়ে বসলে আরেকজন সেবিকা হঠাৎ করে এসে তার শরীরে আরেক ডোজ টিকা পুশ করে দেন।

খোদেজা খাতুনের স্বামী খেলু মিয়া বলেন, স্ত্রীকে দুবার টিকা দেওয়ার বিষয়টি আরেকজন সেবিকাকে জানালে তিনি বলেন, কিছু হবে না আপনারা বাড়িতে চলে যান। এ ব্যাপারে অন্যদের জিজ্ঞেস করেও তিনি কোনো সদুত্তর পাননি।

তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত টিকা প্রদানকারী স্বাস্থ্য সেবিকা মরিয়ম বেগম দ্বিতীয় টিকা প্রদানের কারণে দুঃখ প্রকাশ করে যুগান্তরকে বলেন, পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুটি টিকা পুশ করার কারণে কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা  দেবে না। আসলে বয়োবৃদ্ধার হাতে কার্ড দেখে আমি উনাকে টিকা পুশ করেছিলাম।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৈয়দ আবু আহম্মদ শাফি যুগান্তরকে বলেন, আমি ঢাকায় রয়েছি, এ বিষয়ে কিছু জানি না। তবে এক ব্যক্তিকে একই দিনে দুবার ভ্যাকসিনের ডোজ দেওয়ার কোনো নিয়ম নেই; বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন বলেন, একই ব্যক্তিকে দুই ডোজ ঠিকা দেওয়ার কোনো কারণ নেই। এমন কোনো অভিযোগ আমি শুনিনি। তবে আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। এমন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে অবশ্যই তদন্তপূর্বক শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন