কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার হত্যায় ৪ জনের ফাঁসি
jugantor
কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার হত্যায় ৪ জনের ফাঁসি

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৪২:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

হত্যা মামলা

কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদ শাহ হত্যা মামলায় চার আসামির ফাঁসি ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক (প্রথম আদালত) তাজুল ইসলাম রায় প্রদান করেন। এক জনকীর্ণ আদালতে রায় পড়ে শোনান আদালতের বিচারক। এ সময় আদালতে পাঁচ আসামি উপস্থিত ছিলেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন— কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার গট্টিয়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে সাইদুল ইসলাম, খোকসার মাঠপাড়া এলাকার ইন্তাজ আলী শেখের ছেলে ফারুক হোসেন, শহরের হাউজিং এলাকার গোলাম কিবরিয়ার ছেলে কামাল শেখ ওরফে কামাল হোসেন, কুমারখালীর বানিয়াপাড়া এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে মশিউল আলম ওরফে বাবুল ওরফে বাবলু। মনোয়ার হোসেন ওরফে ডাবলুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, মামলাটি অলোচিত ছিল। পুলিশ তদন্ত করে পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেয়। আসামিরাও তাদের দোষ স্বীকার করে। সব দিক বিবেচনা করে আদালতের বিচারক রায় দিয়েছে। এতে ন্যায়বিচার পেয়েছে সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদের পরিবার।

আদালত সূত্র জানিয়েছে, কুষ্টিয়া সদর সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদ শাহকে ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর রাতে কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া এলাকার বাবর আলী গেটের ভাড়া বাসায় গিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে দণ্ডপ্রাপ্তরা। তার ক্ষতবিক্ষত লাশ রান্নাঘর থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনার পর দিন নিহতের ভাই কামরুজ্জামান শাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেন।

পরে ২০১৯ সালে ১৮ জানুয়ারি মডেল থানা পুলিশ তদন্ত করে পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চাজশিট দেয়। সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে আদালত রায় দেন। অর্থসংক্রান্ত বিষয় নিয়ে হত্যাকাণ্ডটি ঘটে।

কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার হত্যায় ৪ জনের ফাঁসি

 কুষ্টিয়া প্রতিনিধি 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
হত্যা মামলা
ফাইল ছবি

কুষ্টিয়ায় সাবরেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদ শাহ হত্যা মামলায় চার আসামির ফাঁসি ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক (প্রথম আদালত) তাজুল ইসলাম রায় প্রদান করেন। এক জনকীর্ণ আদালতে রায় পড়ে শোনান আদালতের বিচারক। এ সময় আদালতে পাঁচ আসামি উপস্থিত ছিলেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন— কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার গট্টিয়া গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে সাইদুল ইসলাম, খোকসার মাঠপাড়া এলাকার ইন্তাজ আলী শেখের ছেলে ফারুক হোসেন, শহরের হাউজিং এলাকার গোলাম কিবরিয়ার ছেলে কামাল শেখ ওরফে কামাল হোসেন, কুমারখালীর বানিয়াপাড়া এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে মশিউল আলম ওরফে বাবুল ওরফে বাবলু। মনোয়ার হোসেন ওরফে ডাবলুকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, মামলাটি অলোচিত ছিল। পুলিশ তদন্ত করে পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেয়। আসামিরাও তাদের দোষ স্বীকার করে। সব দিক বিবেচনা করে আদালতের বিচারক রায় দিয়েছে। এতে ন্যায়বিচার পেয়েছে সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদের পরিবার। 

আদালত সূত্র জানিয়েছে, কুষ্টিয়া সদর সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদ শাহকে ২০১৮ সালের ৮ অক্টোবর রাতে কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়া এলাকার বাবর আলী গেটের ভাড়া বাসায় গিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে দণ্ডপ্রাপ্তরা। তার ক্ষতবিক্ষত লাশ রান্নাঘর থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনার পর দিন নিহতের ভাই কামরুজ্জামান শাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেন। 

পরে ২০১৯ সালে ১৮ জানুয়ারি মডেল থানা পুলিশ তদন্ত করে পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চাজশিট দেয়। সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে আদালত রায় দেন। অর্থসংক্রান্ত বিষয় নিয়ে হত্যাকাণ্ডটি ঘটে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন