অবশেষে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে ছাত্রলীগ নেতার বিয়ে!
jugantor
অবশেষে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে ছাত্রলীগ নেতার বিয়ে!

  পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫৭:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

পালিয়েও রক্ষা পাননি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাওটানাহাট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রিপন।

অবশেষে ২৪ ঘণ্টা পর রিপন ও তুলির দুই পরিবারের সমঝোতায় তাদের বিয়ের রেজিস্ট্রি ও চুক্তিপত্র সম্পূর্ণ হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে এ বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল।

জানা যায়, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামের ইট ভাটার মালিক মৃত মিঠু মিয়ার মেয়ে তুলি আক্তার ও শিবদেব ভবানীপুর গ্রামের মো. আজিজুল হকের ছেলে মেহেদী হাসান রিপন দীর্ঘদিন ধরে প্রেম করে আসছিলেন। প্রেমের টানে রিপন গতকাল সোমবার রাতে তুলির সঙ্গে দেখা করতে যান।

ওই রাতে রিপন তুলির পরিবারের কাছে ধরা পড়লে রিপন তুলির পরিবারের কাছে কথা দিয়ে আসেন তুলিকে তিনি বিয়ে করবেন। কিন্তু রিপন কথা না রেখে পালিয়ে যান। পালিয়ে গিয়েও শেষ রক্ষা হলো না তার। কারণ এদিকে তুলি আক্তার বিয়ের দাবিতে রিপনের বাড়িতে অবস্থান শুরু করেন। অর্ধদিবস অবস্থান করার পর দুই পরিবারের সমঝোতায় বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়েছে।

রিপনের মা অসুস্থ থাকায় আগামী সপ্তাহে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে বলে জানিয়েছেন ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল।

অবশেষে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে ছাত্রলীগ নেতার বিয়ে!

 পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি  
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পালিয়েও রক্ষা পাননি রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাওটানাহাট মালিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রিপন।

অবশেষে ২৪ ঘণ্টা পর রিপন ও তুলির দুই পরিবারের সমঝোতায় তাদের বিয়ের রেজিস্ট্রি ও চুক্তিপত্র সম্পূর্ণ হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে ৯ লাখ টাকা দেনমোহরে এ বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়। ঘটনাটি ঘটেছে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল। 

জানা যায়, উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব গ্রামের ইট ভাটার মালিক মৃত মিঠু মিয়ার মেয়ে তুলি আক্তার ও শিবদেব ভবানীপুর গ্রামের মো. আজিজুল হকের ছেলে মেহেদী হাসান রিপন দীর্ঘদিন ধরে প্রেম করে আসছিলেন। প্রেমের টানে রিপন গতকাল সোমবার রাতে তুলির সঙ্গে দেখা করতে যান। 

ওই রাতে রিপন তুলির পরিবারের কাছে ধরা পড়লে রিপন তুলির পরিবারের কাছে কথা দিয়ে আসেন তুলিকে তিনি বিয়ে করবেন। কিন্তু রিপন কথা না রেখে পালিয়ে যান। পালিয়ে গিয়েও শেষ রক্ষা হলো না তার। কারণ এদিকে তুলি আক্তার বিয়ের দাবিতে রিপনের বাড়িতে অবস্থান শুরু করেন। অর্ধদিবস অবস্থান করার পর দুই পরিবারের সমঝোতায় বিয়ের রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হয়েছে। 

রিপনের মা অসুস্থ থাকায় আগামী সপ্তাহে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে বলে জানিয়েছেন ছাওলা ইউনিয়নের জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুজ্জোহা চঞ্চল। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন